এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মোদী সরকারের বিরুদ্ধে এবার ২৯ হাজার কোটি টাকার কয়লা কেলেঙ্কারির বিস্ফোরক অভিযোগ কংগ্রেসের

মোদী সরকারের বিরুদ্ধে এবার ২৯ হাজার কোটি টাকার কয়লা কেলেঙ্কারির বিস্ফোরক অভিযোগ কংগ্রেসের

যতই এগিয়ে আসছে দেশের লোকসভা নির্বাচন ততই যেন বিপাকে পড়ছে কেন্দ্রের  বিজেপি সরকার। এবার কয়লা কেলেঙ্কারিতে সেই বিজেপির বিরুদ্ধে 29 কোটি টাকার অভিযোগ আসায় প্রবল অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির। রাফালের রেশ এখনও কাটেনি, আর এরমাঝেই ফের গতকাল দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ইন্দোনেশিয়া থেকে যে কয়লা আনা হয়েছে তাতে বেশি দাম দেখানো হয়েছে বলে বিজেপির বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ তুললেন দিল্লির কংগ্রেস মুখপাত্র জয়রাম রমেশ।

 সূত্রের খবর, এই কয়লা কেলেঙ্কারিতে ঠিক রাফালকান্ডের মতই প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ট ব্যাবসায়ীরা রয়েছেন। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের সচিব হাসমুখ আধিয়া এই সমস্ত চুক্তির তথ্য স্টেট ব্যাঙ্ক থেকে চেয়েছিলেন কিন্তু সেখান থেকেও তথ্য দেওয়া যাবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদিন সেই ইস্যুতেও বিজেপিকে কটাক্ষ করেন কংগ্রেস মুখপাত্র শুধু তাই নয়, এর প্রমান হিসাবে গত 2016 সালের 20 মে স্টেট ব্যাঙ্কের চেয়ারপার্সনকে লেখা কেন্দ্রীয় অর্থসচিব হাসমুখ আধিয়ার চিঠি এবং সেই বছরেরই 24 মে তৎকালীন স্টেট ব্যাঙ্কের চেয়ারপার্সনের লেখা চিঠিও এদিন সাংবাদিক বৈঠকে তুলে ধরেন তিনি।

পাশাপাশি এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যে কয়েকটি প্রশ্নও ছুড়ে দেন জয়রাম রমেশ। 2014 সালের অক্টোবরে এই ব্যাপারে ডিআই তদন্তে নামলে সিঙ্গাপুর আদালতে মামলা হয়। কিন্তু তারপরেও তো বহুবার নরেন্দ্র মোদী সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেছেন তাহলে তিনি কেন সেখানকার প্রধানমন্ত্রীকে এই ক্ষতির কথা বলেলনি? এইভাবে দেশের তদন্ত আটকে থাকায় তীব্র ক্ষোভও প্রকাশ করেন তিনি।

এদিকে কংগ্রেসের এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করে পাল্টা সাংবাদিক বৈঠক করেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ তথা জাতীয় মুখপাত্র অনিল বালুনি। তিনি বলেন, “কংগ্রেসের উদ্দেশ্যই মিথ্যা প্রচার। 2014 সালে এই ব্যাপারে ডিআরআই তদন্ত শুরু করেছে। আর সেই সালেই তো বিজেপি ক্ষমতায় এসেছে। তাহলে এ দায় তো কংগ্রেসের।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাল্টা মুখ খুলে কংগ্রেসের জয়রাম রমেশ বলেন, “কোন আমলে দুর্নীতি হয়েছে সেটা বিষয় নয়, দেখতে হবে তদন্ত যেন ঠিকমত চলে। কংগ্রেস দুর্নীতিতে যুক্ত হলে তদন্ত চাইত না।” সব মিলিয়ে লোকসভার আগে বিজেপি-কংগ্রেস দ্বৈরথে উত্তাল জাতীয় রাজনীতি।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!