এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শেষ রক্ষা হল না, বাংলায় বাম-কংগ্রেসের জোট নিয়ে নয়া জট?

শেষ রক্ষা হল না, বাংলায় বাম-কংগ্রেসের জোট নিয়ে নয়া জট?

Priyo Bandhu Media


কথায় আছে, সকালটা দেখলেই সারা দিনটা কেমন যাবে তা পরিষ্কার হয়ে যায়। আর তাইতো প্রথম থেকেই রায়গঞ্জ ও মুর্শিদাবাদ লোকসভা আসন নিয়ে দু’পক্ষের দড়ি টানাটানিতে অনেকেরই মনেই জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল যে, তাহলে এবার হয়তো আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দু’পক্ষের যতই ইচ্ছা থাকুক, হাতে হাত ধরে লড়ার সেই বাসনা পূর্ণ হবে না বাম এবং কংগ্রেসের। আর অবশেষে সেই জল্পনাতেই শিলমোহর পড়তে চলেছে।

সূত্রের খবর, বামফ্রন্টের বিরুদ্ধে বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ তুলে রাজ্যে “একলা চলো” নীতি নিয়ে অবশেষে রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলার 42 টি আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী কারা হবে তাদের একটি তালিকা তৈরি করে দিল্লিতে তার চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। জানা গেছে, শনিবারই প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেন রাজ্য কংগ্রেসের নেতারা।

আর সেখানেই বামফ্রন্ট প্রার্থী ঘোষণার আগে তাদের কিছু না জানিয়েই একতরফাভাবে তা ঘোষণা করে দিয়েছে। তাই এক্ষেত্রে জোট করে কোনো লাভ নেই বলে সওয়াল করেন রাজ্য কংগ্রেসের একাধিক নেতা নেত্রী। আর তারপরই রাজ্যে একা লড়ার সিদ্ধান্ত নেয় কংগ্রেস।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এমনকি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধী দল বিজেপিকে সরাবে এতদিন বামেদের সাথে জোটের পক্ষে সওয়াল করেছিলেন যে দীপা দাশমুন্সি, এদিন তিনিও বামেদের সঙ্গে জোটের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করেন বলে জানা গেছে। আর এরপরই সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নিয়ে বামেদের সঙ্গে জোটের ব্যাপারে অনীহা প্রকাশ করে বাংলার 42 টি লোকসভা আসনেই সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম দিয়ে তা চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য দিল্লিতে পাঠিয়ে দেয় রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেস। কিন্তু কারা কারা থাকছে কংগ্রেসের এই প্রার্থী তালিকায়?

জানা গেছে, প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী, দীপা দাশমুন্সি, আবু হাসেম খান চৌধুরীর মতো নেতারা এবার নিজ নিজ জেলায় প্রার্থী হতে পারেন। তবে সবটাই নির্ভর করছে হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তের ওপর। এখন দিল্লিতে পাঠানো রাজ্য কংগ্রেসের এই প্রার্থী তালিকা সম্পর্কে হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে ঠিক কী জানানো হয় এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!