এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্য কৃষকের ঋণ মুকুবের দাবিতে জোরদার আইন অমান্য কর্মসূচী কংগ্রেসের

রাজ্য কৃষকের ঋণ মুকুবের দাবিতে জোরদার আইন অমান্য কর্মসূচী কংগ্রেসের

এবার রাজ্য কৃষকদের ঋণ মুকুব এবং পশ্চিমবঙ্গে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবীতে ডি এম অফিসে ডেপুটেশন এবং আইন অমান্য কর্মসূচি পালন করল মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেস। বহরমপুর টেক্সটাইল কলেজ মোড়ে আয়োজিত কংগ্রেসের ডেপুটেশন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক এবং সর্বভারতীয় কংগ্রেসের সম্পাদক গৌরব গগৈ, রাজ্য কংগ্রেস মুখপাত্র তথা কংগ্রেস নেতা ওমপ্রকাশ মিশ্র, জঙ্গীপুর সাংসদ অভিজিত্‍ মুখার্জী, জেলার কংগ্রেস বিধায়কগন সহ কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা।

অনুষ্ঠান চলাকালীন এই মঞ্চ থেকেই প্রদেশ কংগ্রেসের কয়েকজন নেতৃত্ব জেলাশাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দেন। উল্লেখ্য,৫ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে ৩ রাজ্যের বড় জয়ের পিছনে কংগ্রেসের মূল হাতিয়ার ছিল কৃষি ঋণ মুকুব। ক্ষমতায় আসার পরই নিজেদের সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে কংগ্রেস। দলের সুপ্রিমো রাহুল গান্ধীর পদাঙ্ক অনুসরণ করেই আগামী লোকসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বড়সড় জয় পেতেই কৃষিঋণ নিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছে প্রদেশ কংগ্রেস,এমনটাই ধারণা অভিজ্ঞমহলের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

মঞ্চ থেকেই তৃণমূল নেতা-কর্মীদের হুঁসিয়ারী দিয়ে প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন,তৃণমূল বলে রেখেছে পঞ্চায়েত নির্বাচনের মতো লোকসভা নির্বাচন হবে এ রাজ্যে। কাজেই গত ভোটের মতো এই নির্বাচনেও সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে শাসকদল। তাই তিনি শাসকদলকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বললেন,”আমি কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলছি ন্যাড়া বেলতলা একবারই যায়। এই মুর্শিদাবাদে যারা তৃনমূলের যারা মস্তান তারা কান খুলে শুনে নিন, তোদের হাতে গুলি আছে, পিস্তল আছে, টাকা আছে। তোদের মস্তান আছে, তোদের বাপ পুলিস আছে, তোদের বাপের বাপ আছে নবান্নতে, পশ্চিমবঙ্গ সরকার আছে তোদের। তোদের টাকার অভাব নেই, তোদের গুলির অভাব নেই, মস্তানের অভাব নেই তোদের কোন কিছুর অভাব নেই।”

কংগ্রেসের এই বর্ষীয়ান নেতা তৃণমূলকে হুঁসিয়ারী দিয়ে আরো জানান,শাসকদল যদি পুলিশ প্রশাসনের মদত নিয়ে মুর্শিদাবাদের একটি বুথও দখল করতে পারে তাহলে রাজনীতি থেকে তিনি অবসর নেবেন। এটা বলেই তিনি প্রদেশ কংগ্রেসের তরফ থেকে লোকসভা ভোটের প্রস্তুতির দামামা বাজিয়ে দিলেন। মুর্শিদাবাদ যে কংগ্রেসের শক্তঘাঁটি,একথা অজানা নেই রাজনীতিসচেতন মানুষের। রাজনৈতিকমহলে এই জেলা ‘অধীরগড়’ বলেও পরিচিত।

সেই মুর্শিদাবাদে গত পঞ্চায়েত ভোটে গজিয়ে উঠেছে জোড়া ফুল। এবং সম্পূর্ণ অসাংবিধানিক ভাবেই তৃণমূল বুথ দখল করে মুর্শিদাবাদে জয় পেয়েছে বলেই অভিযোগ ওঠে জেলা কংগ্রেসর তরফ থেকে। তাই আসন্ন লোকসভা ভোটে মুর্শিদাবাদে দলের হৃতগৌরব ফিরে পেতে কোমর বেঁধে ময়দানে নেমেছে সোমেন মিত্রের দল।

Top
error: Content is protected !!