এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কংগ্রেস নেতার বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কি বললেন অধীর চৌধুরি

কংগ্রেস নেতার বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কি বললেন অধীর চৌধুরি

কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেতা হুমায়ুন কবীর এবার দল ছেড়ে বিজেচৌধুরিপিতে যোগ দিতে চলেছেন এমনটাই জানা যাচ্ছে। কলকাতার এক জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী এদিন এই নিয়ে মুখ খুললেন প্রদশ কংগ্রেস সভাপতি। তিনি জানালেন যে এ প্রসঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর  বলেন, “কে কোন দলে যাবেন, সেটা তাঁর নিজস্ব ব্যাপার। তবে হুমায়ুন কবীরকে হারানোর জন্য তৃণমূল সবরকম চেষ্টা করেছে।” তৃণমূলের সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে তিনি ভোটের দিন তিনি সরে দাঁড়িয়েছিলেন। এরপর ভোট গণনার দিনও তাদের কর্মীদের মারধর করেছে তৃণমূল দাবি হুমায়ূনবাবুর, আর তার পরেই তিনি দিল্লি উড়ে যান আর সেখানে গিয়ে তাঁর এখন দেখা করার কথা শীর্ষ নেতৃত্বের সাথে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

জানা গেছে যে এত সন্ত্রাস করছে তৃণমূল তবুও নাকি চুপ করে আছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব আর তাই সেই ক্ষোভ থেকেই দল ছাড়ছেন তিনি। এই নিয়ে তিনি জানান যে, “তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই করার সাহস ও মানসিকতা জেলা কংগ্রেসের নেই। কংগ্রেস এখন দুর্বল হয়ে পড়েছে। রাজ্যে এত মার খাচ্ছে দল, কিন্তু দলের হাইকমান্ডের কোনও প্রতিক্রিয়া নেই । এই কংগ্রেসের সঙ্গে থাকা যায় না।” প্রসঙ্গত,তিনি কংগ্রেস করতেন এরপর বিধায়ক হন। কিন্তু এরপর ২০১২ সালে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়ে তৃণমূলের মন্ত্রী হন। কিন্তু মাত্র ৬ মাস মন্ত্রী থাকার পর উপনির্বাচনে পরাজিত হন হুমায়ুনবাবু। তার পর থেকেই ক্রমশ দলের সাথে অজানা কারণে তাঁর দূরত্ব বাড়তে থাকে। এরপর হঠাৎ দলবিরোধী কার্যকলাপের জন্য তাঁকে শোকজ করে তৃণমূল। ফের একরাশ ক্ষোভ নিয়ে পূর্বদল ফের কংগ্রেসে ফিরে আসেন তিনি। আর এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলা পরিষদের কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ান। কিন্তু ভোটের দিন সকালেই তৃণমূলের সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে প্রতিবাদ জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেন হুমায়ুন কবীর।

যদিও এই খবরের সত্যতা বা সূত্র সম্পর্কে ওই ওয়েব পোর্টালে কিছু লেখা নেই, প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফেও এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!