এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > স্যাটে ডিএ মামলা – কি হল কনফেডারেশনের করা ‘মেনশনের’? কবে থেকে শুরু শুনানি?

স্যাটে ডিএ মামলা – কি হল কনফেডারেশনের করা ‘মেনশনের’? কবে থেকে শুরু শুনানি?

Priyo Bandhu Media

দীর্ঘ ১৭ মাসের আইনি লড়াইয়ের পর কলকাতা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে জানায় যে ডিএ রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের অধিকারের মধ্যে পড়ে। কিন্তু এই ডিএর হার কি হবে বা তা বছরে কবর করে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের পাওয়া উচিত – এই নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কলকাতা হাইকোর্ট স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটকে নির্দেশ দেয়। ফলে, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের স্বার্থরক্ষার জন্য দীর্ঘ আইনি লড়াই করা কনফেডারেশন অব স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজের পক্ষ থেকে গত ৫ ই সেপ্টেম্বর মামলাটি স্যাটে নথিভুক্ত করা হয়।

আজ সেই মামলার মেনশন হওয়ার কথা ছিল স্যাটে। এই প্রসঙ্গে প্রিয় বন্ধু বাংলার তরফে কনফেডারেশন অব স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজের সাধারণ সম্পাদক মলয় মুখোপাধ্যায়ের সাথে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আজ আমাদের তরফ থেকে হাইকোর্টের রায়ের কপি সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় নথি স্যাটের দুই বিচারপতির কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। তাঁরা তা গ্রহণ করে আগামী পরশুদিন অর্থাৎ ১২ ই সেপ্টেম্বর আবার শুনানির জন্য জানিয়েছেন। আমরা আশা করছি আগামী পরশু রাজ্য সরকারকে এই বিষয়ে জানানো হবে এবং এই মামলার মূল শুনানির দিন ধার্য্য করা হবে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

মলয়বাবু এই প্রসঙ্গে আরো জানান, আমরা আজ ৪ সপ্তাহের হিসেবে ধরে অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে শুনানির জন্য আবেদন করেছিলাম, কিন্তু দুই বিচারপতি নিজেদের আলোচনার পরে, আজ সেই ব্যাপারে কিছু চূড়ান্ত কিছু জানান নি। তবে আশা করছি আগামী পরশুর শুনানিতে আমরা হয়ত আগামী ১ লা অক্টোবর শুনানির জন্য দিন পেলেও পেতে পারি। তবে, আগামী পরশু কি হবে সেই সিদ্ধান্ত তো নেবেন বিচারপতিরা। আমরা যেহেতু রায়ের কপি আজই সরকারিভাবে তাঁদের হাতে তুলে দিলাম – তাই, হয়ত তাঁরা তা পড়ে আদালতের নির্দেশিকা বুঝে সেইদিন সেইমত সিদ্ধান্ত নেবেন।

তবে আদালতে এত দীর্ঘ আইনি যুদ্ধের পরে ঐতিহাসিক রায় পেয়ে রীতিমত আত্মবিশ্বাসী শোনায় মলয়বাবুর গলা। তিনি স্পষ্ট জানান, কর্মচারীদের হকের পাওনা তাঁদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য আমরা লড়াই-আন্দোলন এবং আইনের রাস্তা – সব রকমের প্রচেষ্টা করে যাচ্ছি। সুতরাং এই মামলায় শুনানির জন্য অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে দিন ধার্য্য করার জন্য আমরা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সবথেকে বড় কথা, কর্মচারীদের স্বার্থে এই ঐতিহাসিক মামলায় আমরা জট তাড়াতাড়ি সম্ভব ন্যায়বিচার তাঁদের দিতে চাই এবং সেই বিষয়ে কোনো উদ্যোগে কোনো ফাঁক আমরা রাখছি না।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!