এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কড়া হচ্ছে নির্বাচন কমিশন – ভোটারদের ভয় বা প্রলোভন দেখিয়ে জরিমানা, হতে পারে জেলও

কড়া হচ্ছে নির্বাচন কমিশন – ভোটারদের ভয় বা প্রলোভন দেখিয়ে জরিমানা, হতে পারে জেলও

নির্বাচন আসলেই বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন দল সন্ত্রাস চালিয়ে গণতন্ত্রকে প্রহসনে পরিণত করে বলে অভিযোগ তুলতে দেখা যায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলিকে। আর এদিক থেকে বঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগেভাগে নির্বাচন কমিশনে নালিশ জানিয়ে যাতে এই নির্বাচনকে রাজ্যে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ রূপ দেওয়া যায় তার জন্য কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থার আর্জি জানিয়েছিল বিরোধীরা।

আর তাই বিরোধী দলগুলোর এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এবার রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও তাদের আশ্রিত দুষ্কৃতীদের ভোটারদের মধ্যে কোনো ভয়-ভীতি বা ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রলোভন দেখানোর চেষ্টা করলে নির্বাচন কমিশনের কাছে যদি কেউ অভিযোগ করে তাহলে সেই ব্যক্তির জেল বা আর্থিক জরিমানার নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জারি হতেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের তরফ সেই ব্যাপারটি জানিয়ে জেলা জুড়ে সচেতনতা তৈরি করার জন্য একগুচ্ছ আধুনিক পদক্ষেপ নেওয়া হল।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে সমস্ত রাজনৈতিক দলকে অবহিত করতে এবং সাধারন মানুষকে সজাগ করতে লিফলেট, মাইকিং এবং সুসজ্জিত ট্যাবলোর মাধ্যমে আধুনিক ভাবে প্রচার চালাচ্ছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসন। এছাড়াও জেলার ঐতিহ্যমন্ডিত খন শিল্পীরা এই বিষয়টিকে নিয়ে পালা গান লেখার কাজও শুরু করে দিয়েছেন বলে জানা গেছে। এদিকে জেলা প্রশাসনের তরফ এইভাবে ভোটারদের সচেতন করতে আধুনিক প্রচারপর্বে খুশি সকলেই।

এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তথ্য সংস্কৃতিক আধিকারিক শান্তনু চক্রবর্তী বলেন, “ভোটারদের সচেতনতা বাড়াতে জেলা নির্বাচন দপ্তরের তরফে নানা প্রচার চালানো হচ্ছে। কোনো ব্যক্তি যদি ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন বা ভোটদাতাদের কোনোরূপ ভয় দেখান তাহলে সেই সম্পর্কে অভিযোগ জমা পড়লে আমরা তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এদিকে জেলা প্রশাসনের এহেন উদ্যোগে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে রাজনৈতিক দলগুলোর তরফে। এদিন এই প্রসঙ্গে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষ বলেন, “ভোটদাতাদের প্রলোভন দেওয়ার কোনো প্রয়োজন আমাদের নেই। কারণ রাজ্য সরকার সারা বছর ধরে মানুষের পাশে থেকেছে। আমরা এমনিতেই সাধারন মানুষের আশীর্বাদ পাব। সারাবছর কাজ না করায় বিজেপির এসব প্রয়োজন হলেও হতে পারে।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের শাসকদলের প্ররোচনায় যেভাবে সন্ত্রাস হয়েছে সেই ঘটনার কথা উল্লেখ করে জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক মানস সরকার বলেন, “বিগত পঞ্চায়েতে কি হয়েছে তা জেলার মানুষ প্রত্যক্ষ করেছেন। লোকসভা নির্বাচনে ওরা সেই পথ নেওয়ার চেষ্টা করবে। তাই কমিশনের এই উদ্যোগে আমরা সকলেই খুশি।”

অন্যদিকে এই ব্যাপারে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের বামপ্রার্থী রনেন বর্মন বলেন, “তৃণমূল ও বিজেপি আকণ্ঠ দুর্নীতিতে ডুবে টাকা দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করবে। তাই এই ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের নজরদারি পাশাপাশি আমরাও যদি কোনো অভিযোগ পাই তাহলে সেখানে নালিশ জানাব।”

সব মিলিয়ে এবার নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ পেয়েই ভোটারদের প্রভাবিত করতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের তরফে উদ্যোগ নেওয়া হলে সেই অপরাধীদের যে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে সেই ব্যাপারে সাধারণ মানুষ ও জেলাবাসীকে সচেতন করতে জোর প্রচারে নেমে পড়ল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসন।

Top
error: Content is protected !!