এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার মুখ্যমন্ত্রীকে “জঙ্গি” বলে আক্রমণ হেভিওয়েট মন্ত্রীর! জোর শোরগোল!

এবার মুখ্যমন্ত্রীকে “জঙ্গি” বলে আক্রমণ হেভিওয়েট মন্ত্রীর! জোর শোরগোল!

দিল্লি বিধানসভার নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে ততই রাজনৈতিক মহলের পারদ বাড়তে শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই সভা-সমিতির মধ্যে দিয়ে দিল্লির বর্তমান শাসকদল আম আদমি পার্টিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করছেন বিজেপির ছোট, বড়, মেজো সমস্ত স্তরের নেতারাই। যা কিছুটা হলেও বেকায়দায় ফেলে দিয়েছে দিল্লির শাসক দলকে।

বস্তুত, কেন্দ্রের ক্ষমতায় এলেও, এখনও পর্যন্ত দিল্লির শাসনক্ষমতা দখল করতে পারেনি ভারতীয় জনতা পার্টি। তাই সেদিক থেকে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে আম আদমি পার্টিকে সরিয়ে সেই জায়গায় নিজেদের ক্ষমতা কায়েম করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে তারা। আর এই পরিস্থিতিতে বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে জনসভার মধ্য দিয়ে দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে শুরু হয়েছে জোর টক্কর। তবে এঈ রাজনৈতিক চর্চার মাঝেই এবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে “জঙ্গি” বলে আক্রমণ করতে দেখা গেল বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে। যা নির্বাচনের মরশুমে নতুন করে বিতর্ক তৈরি করল বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, “কেজরিওয়াল নির্দোষ মুখ নিয়ে জিজ্ঞাসা করছেন যে, তিনি সন্ত্রাসী কিনা! আমি বলতে চাই, আপনি সন্ত্রাসবাদী। আর এর পক্ষে অনেক প্রমান রয়েছে। আপনি নিজেই বলেছিলেন, আপনি নৈরাজ্যবাদী। সন্ত্রাসবাদী ও নৈরাজ্যবাদীদের মধ্যে খুব একটা পার্থক্য নেই।” আর বিজেপি নেতার এই কথাতেই এখন তৈরি হয়েছে বিতর্ক। প্রসঙ্গত, এই প্রথম নয়। এর আগেও অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে জঙ্গি বলে আখ্যা দিয়েছিলেন বিজেপি নেতা পরবেশ শর্মা। যেখানে তিনি বলেছিলেন, দিল্লিতে কেজরিওয়ালের মত অনেক নাটওয়ারলাল এবং সন্ত্রাসবাদি আছে। আমি বুঝতে পারি না যে কাশ্মীরের সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে, না দিল্লির কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে লড়তে হবে!” আর এর পরেই সেই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে।

যেখানে তিনি বলেন, “আমি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তি। আমি দিনে 4 বার ইনসুলিন নিই। এমন পরিস্থিতিতে আমি দুবার দুর্নীতির বিরুদ্ধে অনশন করেছি। একবার 15 দিনের জন্য এবং পরে 10 দিনের জন্য। প্রত্যেক ডাক্তার বলেছিলেন যে 24 ঘন্টার বেশি আপনি বাঁচবেন না। আমি আমার জীবন দেশের জন্য বাজি রেখে ছিলাম। আমি কিভাবে সন্ত্রাসী হতে পারি! আমাকে সন্ত্রাসবাদী আখ্যা দেওয়ায় আমার মা-বাবা দুঃখ পেয়েছেন। তারা মর্মাহত।” তবে অরবিন্দ কেজরিওয়াল কিছুদিন আগে এই কথা বললেও, বিজেপি নেতারা যে তাদের অবস্থান থেকে সরে আসবেন না, তা এদিন বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর প্রকাশ জাভড়েকরের মন্তব্য থেকেই আরও একবার পরিষ্কার হয়ে গেল বলেই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

তবে বিরোধীদের একাংশ বলছেন, আসলে বিজেপি নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে বরাবর দেশপ্রেমের জিগির তোলে‌। এক্ষেত্রে তারা অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে হারাতে পারবে না জেনে এখন তার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহী তকমা লাগাতে শুরু করেছে। তবে বিরোধীরা এমন নানা প্রশ্ন তুললেও, দিল্লী বিধানসভা নির্বাচনের মরসুমে বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পক্ষ থেকে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে উদ্দেশ্য করে এহেন কটাক্ষ কতটা সোরগোল তোলে! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!