এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের উন্নয়নকে শিকেয় তুলে প্রমোদভ্রমণে ব্যস্ত প্রধান-সহ বেশিরভাগ সদস্য – পঞ্চায়েতে ঝুলছে তালা!

মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের উন্নয়নকে শিকেয় তুলে প্রমোদভ্রমণে ব্যস্ত প্রধান-সহ বেশিরভাগ সদস্য – পঞ্চায়েতে ঝুলছে তালা!

বাংলার প্রত্যন্ত প্রান্তে উন্নয়নকে পৌঁছে দিতে যখন রাত দিন এক করে খেটে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তখনই সেই শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন পঞ্চায়েতের প্রধান সহ 9 সদস্যের ভ্রমণের জেরে শিকেয় উঠছে পরিষেবা। আর আশ্চর্য এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর 24 গোপালনগরের চৌবেড়িয়া এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে।

স্থানীয় সূত্রের খবর, 15 আসন বিশিষ্ট এই পঞ্চায়েতে এবারে শাসকদলের মোট সদস্য সংখ্যা রয়েছে 11 জন। 11 জনের মধ্যে প্রধান সহ 9 জন পুরীতে ঘুরতে যাওয়া সেই পঞ্চায়েত অফিসেও পরে গিয়েছে তালা‌। যার জেরে সরকারি প্রয়োজনে এসেও পঞ্চায়েতের গেট থেকে ঘুরে যেতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

কিন্তু প্রধান এবং শাসক দলের সদস্যরা না থাকলে কেন পঞ্চায়েতের পরিষেবা শিকেয় উঠবে! কেনই বা সেই পঞ্চায়েতের সরকারি কর্মীরা অফিসে উপস্থিত হবেন না! এই রকমই বিভিন্ন প্রশ্ন তুলে সেই তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই সরব হয়েছেন বিজেপির চার সদস্য।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

কেন এভাবে পঞ্চায়েতের কাজে বিঘ্ন ঘটছে! এদিন এই প্রসঙ্গে এই পঞ্চায়েতের প্রধান কাকলি নন্দীর স্বামী বলেন, “স্ত্রী বেড়াতে গিয়েছেন একথা ঠিক। তবে পঞ্চায়েতের অফিসের কাজে কোনোরূপ ব্যাঘাত ঘটছে না।” কিন্তু যেখানে খোদ দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী সরকারি কাজে কোনো মানুষকে ফেরানো যাবে না বলে সমস্ত প্রশাসনিক বৈঠক থেকে সকলের উদ্দেশ্যে বার্তা দিচ্ছেন সেখানে কেন এই ধরনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া মিলছে তৃনমূল পরিচালিত গোপালনগরের চৌবেড়িয়া এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে?

এদিন এই প্রসঙ্গে বনগাঁ দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক সুরজিত বিশ্বাস বলেন, “ঠান্ডার জন্যই কর্মীরা অফিসের দরজা- জানলা বন্ধ রেখেছেন। তাই অনেকে ভাবছেন পঞ্চায়েত অফিস বন্ধ। তবে এই ঘটনাটা সত্যি নয়।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে গোটা ঘটনাটি খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বনগাঁর মহকুমা শাসক কাকলি মুখোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে এবার পঞ্চায়েত প্রধান সহ 9 সদস্য প্রমোদভ্রমনে ব্যস্ত থাকায় শিকেয় উঠছে গোপালনগরের চৌবেড়িয়া এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের কাজকর্ম।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!