এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কর্মচারীদের যুক্তিগ্রাহ্য যেটা পাওয়া উচিত, সেটা মুখ্যমন্ত্রীই দেবেন – তাই রাজ্য সরকারের পাশে থাকুন: শুভেন্দু অধিকারী

কর্মচারীদের যুক্তিগ্রাহ্য যেটা পাওয়া উচিত, সেটা মুখ্যমন্ত্রীই দেবেন – তাই রাজ্য সরকারের পাশে থাকুন: শুভেন্দু অধিকারী

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বঞ্চনার প্রতিবাদে দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে গর্জে উঠছে বিরোধী দলগুলি। এমনকি এই ব্যাপারে বিভিন্ন সময় সভা সমিতি করে সরকার ও মুখ্যমন্ত্রীকেও চেপে ধরেছে তাঁরা। কিন্তু সামনেই যে লোকসভা ভোট। আর সেই লোকসভা ভোটে যাতে এই সরকারি কর্মচারীরা কোনোরূপ বাধা হয়ে না দাঁড়ায় সে জন্য ফের সেই সরকারি কর্মীদের পাশে থাকার আশ্বাস দিলেন রাজ্যের পরিবহন ও পরিবেশ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

সূত্রের খবর, গত শনিবার ল্যান্ড এন্ড ল্যান্ড রিফর্ম এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের ত্রয়োদশ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বর্ধমানের সংস্কৃতি লোকমঞ্চের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন শুভেন্দু অধিকারী। আর এই অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকেই একদিকে যেমন কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরোধিতায় সুর চড়াতে দেখা যায় তাঁকে ঠিক তেমনি রাজ্যের বর্তমান তৃণমূল সরকার সরকারি কর্মচারীদের পাশে যে সব সময় থাকবে এব্যাপারেও সকলকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেন তিনি।

জানা যায়, এদিনের এই অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে রাজ্যের বর্তমান সরকার সরকারি কর্মচারীদের উন্নয়নের জন্য যে প্রভূত পদক্ষেপ নিয়েছে সেই কথাটি উল্লেখ করেন মন্ত্রী। এদিন শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “2011 সালে রাজ্যকে যে অবস্থায় ছেড়ে গিয়েছিল বামেরা, সেই জায়গা থেকে ঘুরূ দাঁড়াতে আমাদের কিছুটা সময় লাগবে। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর ক্ষমতা এবং অর্থনৈতিক সামর্থের মধ্যে আপনাদের জন্য বেশ কিছু ইতিবাচক পদক্ষেপ নিয়েছেন। আরও কিছু করা প্রয়োজন আছে। যেগুলো করা উচিত, সেগুলো তিনিই আপনাদের দিয়ে দেবেন। এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনো বিকল্প নেই।”

মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যের বর্তমান সরকারের উদ্যোগে সরকারি কর্মচারীদের হওয়া এই প্রভূত উন্নয়নের জন্যই 2008,9 এবং 2011 সালের বিধানসভা নির্বাচনের থেকেও বিগত 2013 এবং 2018 সালের পঞ্চায়েত ভোট এবং লোকসভা ও বিধানসভা ভোটে তৃণমূল সরকার ভালো সাফল্য পেয়েছে বলেও এদিন মন্তব্য করেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিনের এই সভা থেকে বিগত বাম সরকারের মন্ত্রী হিসেবে পরিচিত লক্ষ্মণ শেঠেরও কড়া সমালোচনা করেন তিনি। তিনি বলেন, “তৎকালীন এইচডিএর চেয়ারম্যান লক্ষ্মণ শেঠ জমি অধিগ্রহণের নোটিশ জারি করেছিলেন। ভাগাড়, কবরস্থানে যেগুলির পাত্তা দেওয়া যায়না নন্দীগ্রামের সেগুলি পর্যন্ত বিতরণ করা হয়েছে। ভূমিদপ্তরকে কার্যত নষ্ট করে দিয়েছিল বিগত বামফ্রন্ট সরকার। আমাদের সরকার সেখানে স্বচ্ছতা এনে অনলাইনে মিউটেশন পদ্ধতি চালু করেছে। দেশের কোথাও কৃষিজমিতে খাজনা মুকুবের ব্যবস্থা নেই। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে এই রাজ্যে তা হয়েছে।”

এদিকে শুভেন্দু অধিকারীর এদিনের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে দেশের বর্তমান বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারকেও। নোট বাতিল থেকে জিএসটি, মূল্যবৃদ্ধি – একের পর এক ইস্যু তুলে ধরে কেন্দ্রের মোদি সরকারকে কটাক্ষ করে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “দেশের জনবিরোধী সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন, তাতে সকলের শামিল হওয়া উচিত।”

সব মিলিয়ে এবার রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের পাশে যে তাঁদের সরকারই রয়েছে তা প্রমাণ করতে মরিয়া হয়ে উঠলেন রাজ্যের পরিবহন ও পরিবেশ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!