এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে অশালীন আক্রমণ করলেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা

সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে অশালীন আক্রমণ করলেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা

কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে এদিন বিজেপি দলের পক্ষ থেকেই বর্ধমান জেলার দুর্গাপুরে সিটি সেন্টারে একটি জনসভার আয়োজন করা হয়েছিলো । দলের পক্ষ থেকে সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু। সভায় নিজের ভাষণে জয় বন্দ্যোপাধ্যায় মূলত রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনায় মুখর হলেন। তাঁর মতে তৃণমূল কংগ্রেসের পাপের ঘড়া পূর্ণ হয়ে গেছে। তাই তাদের খারাপ কাজের শাস্তি রাজ্যের সাধারণ মানুষই দেবেন। বিজেপি দল কিছুই করবেনা। একই সাথে তিনি আগামী দিনের সম্ভবনার বিষয়ে আগাম অনুমান করে বললেন খুব শীঘ্র রাজ্যের সাধারণ মানুষের রোষের মুখে পড়বেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন মুখ্যমন্ত্রীকে অশালীন আক্রমণ করতেও ছাড়েননি তিনি। তিনি বলেন , ‘এমন একদিন আসছে যেদিন পশ্চিমবাংলার মানুষ কালীঘাটে গিয়ে ঝ্যাঁটা মেরে মমতা ব্যানার্জিকে রাজ্য থেকে বিদায় করবে।’

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

একই সাথে মুখ্যমন্ত্রীকে একপ্রকার চ্যালেঞ্জ করে এই বিজেপি নেতা জানান নেতা হোক বা সাধারণ মানুষ সকলেই মুখ্যমন্ত্রীর চোখ রাঙানিকে ভয় পায়না বরং তাঁরা সেটা নিজেদের সহ্য করে কারণ সকলের কাছে আদতে সেটা উপরে ওঠার সিঁড়ি কারণ মুখ্যমন্ত্রীর শাসন মেনে নিলে আখেরে তাদেরই লাভ । এই কারণে অনেকেই মুখ্যমন্ত্রীর মিথ্যা প্রশংসা করে শুধুমাত্র এই কারণে যে তাঁরা জানেন মুখ্যমন্ত্রী নিজের প্রশংসা শুনে খুশি হয়ে তাঁদেরই প্রত্যাশা পুরণ করবেন। তবে এত কিছু করেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আগামী ২০ বছরেও তিনি গতি চ্যুত করতে পারবেন না বলে দাবি করলেন এই বিজেপি নেতা। শুধু মুখ্যমন্ত্রীওই নয় একই সাথে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যন্য মন্ত্রীদের সমালোচনা করে জয় বাবু বলেন রাজ্যের শাসক দলের নেতা কর্মীদের টাকার নেশা হয়ে গেছে। যা কিনা সাড়ানো সম্ভব নয়। ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের প্রতিকারের জন্যে বাজারে নানা চিকিৎসা পদ্ধতির সফল প্রয়োগ সম্ভব হলেও টাকার নেশার মতো দুরারোগ্য ব্যাধির সারানোর জন্যে কোনো চিকিৎসা পদ্ধতি এখনও আবিষ্কার হয়নি। রাজ্যের উন্নয়ন হচ্ছে তা কেবল রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মন্ত্রী এবং ঐ দলের কর্মী সমর্থকেরাই দাবি করেন। রাজ্যের সর্বত্র কান পাতলেই শোনা যায় সাধারণ মানুষ রাজ্য সুরকাররে কাজের নিন্দা করছে। ক্ষোভ প্রকাশ করে বলছে এই সরকার তাদের কোনো দাবিই পূরণ করেনি। পবিত্র ঈদ উপলক্ষ্যে তিনদিনের সরকারী ছুটি ঘোষণা প্রসঙ্গে তিনি বললেন এই ছুটির কথা প্রকাশ্যে আসার পরে সরকারের তরফে তা অস্বীকার করা হয় । এখন জয় বাবুর দাবি অ্যাডিশনাল সেক্রেটারির সই করা সরকারী নোটিশটি কি তাহলে মিথ্যা! তাঁর মতে রাজ্য সরকার নিজেই নিজের বলা কথা এবং কাজের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে। তবে মুখ্যমন্ত্রীকে এই অশালীন আক্রমণে সর্ব রাজনৈতিকমহল। তাঁদের মতে রাজনৈতিক মতপার্থক্য থাকতেই পারে তবে এইভাবে অশালীন ভাষা প্রয়োগ করা উচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!