এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বেগ কাটাতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি, আপনাদের সেবক হয়েই থাকব: ফিরহাদ

মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বেগ কাটাতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি, আপনাদের সেবক হয়েই থাকব: ফিরহাদ

তৃণমূল দলের তথা রাজ্য প্রশাসনের সর্বোচ্চ মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কাজের নিরিখে তিনিই তাঁর সহকর্মীদের পুরস্কৃত করেন। তাই প্রশাসনিক পদ থেকে রাজনৈতিক পদ, প্রায় সব বিষয়েই মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তৎপর তৃণমূলের নেতারা। আর এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাঁকুড়া শহরে পানীয় জল প্রকল্পের উদ্বোধন শেষে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্বেগকে কাটাতে পেরেছেন, তাই তিনি ধন্য বলে জানালেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

সূত্রের খবর, শনিবার বাঁকুড়া শহরে পানীয় জল প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী। এছাড়াও ছিলেন পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তরের মুখ্যসচিব সুব্রত গুপ্ত, রাজ্য পঞ্চায়েত, গ্রামোন্নয়ন ও জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, বাঁকুড়ার জেলাশাসক উমাশঙ্কর এস, জেলা পরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু, আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি সহ অন্যান্যরা।

সেই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে উঠে ফিরহাদ হাকিম বলেন, “2016 সালে বিধানসভা ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রী বাঁকুড়ায় রাজনৈতিক প্রচার এসে আমাকে ফোন করে বলেছিলেন, ববি তুই পুরমন্ত্রী হয়েছিস, বাঁকুড়ার মানুষের জন্য একটু জল দিতে পারিস না! সেদিন বাঁকুড়ার মানুষের পানীয় জলের সংকটে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বেগ দেখেছিলাম। তার পরের দিনই আমি চেয়ারম্যান সহ অন্যান্য আধিকারিকদের কলকাতায় ডেকে পাঠিয়ে পরিকল্পনা তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছিলাম। 116 কোটি টাকার এই প্রকল্প আজ বাস্তবায়িত হয়েছে। তাই এদিন মানুষের আনন্দের দিন। মুখ্যমন্ত্রীর সেদিনের উদ্বেগ কাটাতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। আগামী দিনে আমিও আপনাদের সেবক হয়ে থাকব।” তবে এই প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে পৌরসভার 14 টি ওয়ার্ডে বাড়ি বাড়ি পানীয় জল পৌঁছলেও দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ দ্রুত শুরু হবে এবং বাকি অংশগুলোতেও সেই জল পৌঁছে যাবে বলে জানিয়ে দেন পুরমন্ত্রী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

জানা যায়, রাজ্যের মোট 125 টি পৌরসভার মধ্যে 97 টি পৌরসভাতেই পরিস্রুত পানীয় জলের প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আর এর মধ্যে 56 টি পৌরসভাতেই সেই কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। বাঁকুড়ায় এই প্রকল্পের জন্য 178 কিলোমিটার পাইপলাইন ইতিমধ্যেই বসানো হয়েছে। যার ফলে উপকৃত হবেন প্রায় 1 লক্ষ 65 হাজার মানুষ।

এদিন এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম বলেন, “বামফ্রন্ট সরকার 34 বছরে তিনটি পৌরসভায় পানীয় জলের প্রকল্প চালু করেছিল। আর এই সরকার আট বছরে 97 টি পৌরসভায় তা চালু করেছে।কয়েকটি পৌরসভায় জলের উৎস পাওয়া না যাওয়ায় সেখানে প্রকল্প তৈরি করা যাচ্ছে না, ভবিষ্যতে সেখানেও চেষ্টা হবে।”

অন্যদিকে এদিনের সভা থেকে জল সংরক্ষণের ব্যাপারেও গুরুত্ব দেন ফিরাদ হাকিম। তবে শুধু পরিস্রুত পানীয় জল প্রকল্প সম্পর্কে বক্তব্য রাখাই নয়, এদিন সার্কিট হাউসে বসে বিজেপি ও নরেন্দ্র মোদিরও কঠোর সমালোচনা করেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী। তিনি বলেন, “মোদিজী চাওয়ালা থেকে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। কিন্তু আজ চাওয়ালাদের ভুলে বিদেশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হয়ে চা তৈরি করে মানুষকে খাইয়েছেন। এতেই বোঝা যায় যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে মাটির মানুষের সম্পর্ক কতটা নিবিড়।”

Top
error: Content is protected !!