এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সরকারি ডাক্তারদের উৎসাহ দিতে এবার বড় পদক্ষেপ নিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী

সরকারি ডাক্তারদের উৎসাহ দিতে এবার বড় পদক্ষেপ নিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যাবস্থাকে ঢেলে সাজাতে একগুচ্ছ পদক্ষেপ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রোগীরা যাতে সমস্যায় না পরে তার কারনে ডাক্তারদের সঠিক পরিষেবা দানের উৎসাহ দেওয়ার জন্য ভালো কাজে পুরস্কারও ঘোষনা করা হয়েছে সরকালের তরফে। শুধু ঘোষনাই নয়, বাস্তবেও এখন থেকে প্রতি বছরেই বিভিন্ন জেলা ও গ্রামীন সরকারি হাসপাতাল ও চিকিৎসকদের সম্মানিতও করা হচ্ছে। এবার সেই চিকিৎসকদের কাজে আরও উৎসাহ দিতে ও মনোযোগী করে তুলতে ইনসেনটিভ প্রথা চালু করতে চাইছে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর।

মূলত কাজের নিরিখেই এই ইনসেনটিভ দেওয়া হবে চিকিৎসদের। সমালোচকদের মতে, বিভিন্ন সময় ট্রেনিং রিজার্ভ সহ বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে সরকারের সাথে চিকিৎসকদের যে দূরত্ব তৈরি হয় তা আটকাতেই সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তরের উদ্যোগে চালু হচ্ছে চিকিৎসকদের জন্য এই ইনসেনটিভ প্রথা।  জানা গেছে, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফেও রাজ্যের সরকারি চিকিৎসকদের কাজে উৎসাহ প্রদানের জন্য জাতীয় স্বাস্থ্য মিশন খাতে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে বলে রাজ্য সরকারকে জানানো হয়েছে। আর তাই সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ঋনভারে জর্জরিত রাজ্য এই ইনসেনটিভ প্রথা চালু করে চিকিৎসকদের খুশি রাখতে চাইছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এ প্রসঙ্গে রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডাঃ অজয় চক্রবর্তী বলেন, “বেশ কিছুদিন ধরেই এব্যাপারে পরিকল্পনা চলছে। ইতিমধ্যেই আমরা সিজারের কাজে প্রশিক্ষিত সরকারি অ্যানাস্থেসিওলজিস্টদের আর্থিক ইনসেনটিভ দিচ্ছি।” এখন এই ইনসেনটিভ কি শুধুই সার্টিফিকেট ও পদোন্নতির ওপর নির্ভর করে দেওয়া হবে নাকি এতে লাভেরও মুখ দেখবেন চিকিৎসকরা? এ প্রশ্নের উত্তরে “দেখা যাক” বলে জল্পনা উসকে দিয়েচেন রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অধিকর্তা। তবে সরকারের উদ্যোগে চিকিৎসকদের জন্য এই ইনসিনটেভ প্রথা চালু হলে একদিকে যেমন চিকিৎসকদের চাকরি ছাড়ার প্রবনতা কমবে ঠিক তেমনি নতুন পাশ করা  ডাক্তারদেরও সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছাশক্তি প্রবল হবে বলে মনে করছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকেরা।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!