এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কাটমানি টাকা ফেরত পেতে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি ঘেরাওয়ের পরামর্শ বিজেপি সভাপতির

কাটমানি টাকা ফেরত পেতে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি ঘেরাওয়ের পরামর্শ বিজেপি সভাপতির

এবারের লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে তৃণমূলের ভরাডুবির পেছনে নিচুতলার কর্মীদের দুর্নীতিই যে অন্যতম দায়ী, তা ফলাফল পর্যালোচনা বৈঠকেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। আর এরপরই গত 18 ই জুন নজরুল মঞ্চে কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকে কেউ কাটমানি খেলে তা বরদাস্ত করা হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

যার ফলে রাজ্য রাজনীতিতে তীব্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়। আর মুখ্যমন্ত্রীর এহেন হুঁশিয়ারির পরই দিকে দিকে তৃণমূল নেতাদের বাড়ি ঘেরাও করে টাকা ফেরতের দাবিতে সাধারণ মানুষের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ সংঘটিত হয়। কিন্তু রাজ্যে কাটমানীর এই বাড়বাড়ন্তের জন্য তৃণমূল নেত্রীই প্রধানভাবে দায়ী বলে এবার সরব হতে শুরু করেছে বিজেপি।

সূত্রের খবর, রবিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী কাটমানি নিয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীনের মত কথা বলায় সমাজে বিশৃংখল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে তো সবকিছুই ওনার অনুপ্রেরণায় হয়। কাটমানির ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। আসলে মুখ্যমন্ত্রী সব জানতেন যে তৃণমূলের নেতারা কাটমানি নেয়। তাই উনি নিজের দায় এড়াতে পারেন না। এবার মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়ি ঘেরাও করে ধরনা দেওয়া উচিত।”

আর মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ তথা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের এহেন মন্তব্যকে কেন্দ্র করেই এবার রাজ্য রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েছে বিতর্ক।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অনেকে বলছেন, কাটমানি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে তৃনমূলই সব থেকে বেশি বিপাকে পড়েছে। আর তাই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবার এই ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীকে দায়ী করে তার বিরুদ্ধে সরব হলেন। তবে
তৃনমূলের পক্ষ থেকে অবশ্য দিলীপ ঘোষের এহেন বক্তব্যকে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

তাদের দাবি, রাজ্যে বিজেপি অশান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে। আর তাইতো মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তারা এইরকম অপমানজনক মন্তব্য করছে। এদিকে ভাটপাড়া নিয়ে এবং রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি প্রসঙ্গেও এদিন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন দিলীপ ঘোষ।

তিনি বলেন, “রাজ্যের পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে ভাটপাড়ায় পুলিশের ডিজি ঢুকতে পারছেন না। অনেক মানুষ এখনও ঘরছাড়া। সরকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুরোপুরি ব্যর্থ। আগামী দিনে বাংলার মানুষই রাষ্ট্রপতি শাসনের জন্য দাবি তুলবেন।”

সব মিলিয়ে এবার কাটমানি ইস্যু ও রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা অবনতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!