এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > জেনে শুনেই কি বিষ পান করতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন বিস্তারিত

জেনে শুনেই কি বিষ পান করতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন বিস্তারিত

Priyo Bandhu Media


এই প্রথম রথের রশিতে টান দিতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, হিন্দু ভোটকে টানতেই এই কৌশল দাবি বিরোধীদের।এবারের লোকসভা ভোটে তৃণমূলকে কিছুটা চাপে ফেলে দিয়ে বিজেপি 18 টি আসন নিজেদের দখলে রেখে ঘাসফুল শিবিরের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছে। আর বাংলায় বিজেপির এই উত্থানের পরই জয় শ্রীরাম স্লোগানকে কেন্দ্র করে তীব্র রাজনৈতিক উত্তাপ ছড়াতে শুরু করে।

বেশ কিছু জায়গায় তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের গাড়ি লক্ষ্য করে কিছু যুবক জয় শ্রীরাম স্লোগান দিলে তাকে গালাগালি দিচ্ছে বলে পাল্টা গাড়ি থেকে বাইরে বেরিয়ে এসে রুদ্রমূর্তি ধারণ করতে দেখা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যা নিয়ে নানা ট্রোল এবং সমালোচনারও শিকার হন তিনি। এদিকে বঙ্গ রাজনীতির রণাঙ্গনে ধর্ম নিয়ে যুদ্ধ হওয়ায় রীতিমত হতচকিত হয়ে যান অনেকেই।

আর এই পরিস্থিতিতে এবার রথযাত্রাকে কেন্দ্র করে ফের ময়দানে নেমে পড়লেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত, এতদিন রথযাত্রা অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করতে ইসকনে অংশগ্রহণ করতে দেখা যেত মুখ্যমন্ত্রীকে। কিন্তু এবার প্রথম কোনো জেলায় রথের রশিতে টান দিতে দেখা যাবে তাঁকে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, রথযাত্রা উপলক্ষে এই প্রথমবার শ্রীরামপুরের মাহেশের রথযাত্রায় অংশ নেবেন তিনি। অনেকে বলছেন, লোকসভা ভোটে ভরাডুবি হওয়ার পরই এবার নিজেদের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার করতে সাধারণ মানুষের সঙ্গে আরও বেশি করে মিশে যেতে চায় তৃণমূল। আর তাইতো ইসকন অপেক্ষা এবার হুগলির মাহেশের রথে গিয়ে মানুষের সাথে তাদের নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে বলে প্রমাণ করতে মরিয়া চেষ্টা চালাবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ইতিমধ্যেই এই মুখ্যমন্ত্রীর মাহেশের রথযাত্রার উদ্বোধনকে ঘিরে সেখানে জোর প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। আঁঁটোসাটো নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, তার জন্যও বাড়তি সর্তকতা অবলম্বন করেছে প্রশাসন। আর এই পরিস্থিতিতে মাহেশের রথযাত্রায় মুখ্যমন্ত্রী আসলে তাঁকে জয় শ্রীরাম বলে স্লোগান দিয়ে স্বাগত জানানো হবে বলে পাল্টা জানিয়ে দিল গেরুয়া শিবির।

বিজেপির দাবি, “রাম ও জগন্নাথ আলাদা কিছু নয়। শ্রীকৃষ্ণ বিভিন্ন সময়ে নানা অবতারে অবতীর্ণ হয়েছেন। তাই জগন্নাথের রথযাত্রায় জয় শ্রীরাম বলা যেতেই পারে।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে বিজেপির দাবিকে সম্পূর্ণরূপে উড়িয়ে দিয়ে তৃণমূলের বক্তব্য, “রামের নাম করে রাজ্যে খারাপ পরিস্থিতি তৈরি চেষ্টা করছে বিজেপি। রথের দিন সবাই জয় জগন্নাথ বলে। কেউ জয় শ্রীরাম বলে না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আসলে অতীতে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে যতবারই বিজেপি জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়েছে, ততবারই তারা সফলতা পেয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উগ্রমূর্তি তাদেরকে অনেকটাই সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। ফলে সেদিক থেকে মাহেশের রথযাত্রা উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী আসলে তাকে জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়েই স্বাগত জানানোর পরিকল্পনা নিয়েছে গেরুয়া শিবির।

ফলে রাজনৈতিকমহলের দাবি যদি বিজেপির দাবি সত্যি হয় তাঁরা জয় শ্রী রাম সোগান দেন। তবে ফের অস্বস্তিতে পড়তে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে কি ভোটের জন্য জেনে শুনে বিষ পান করতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে এতসব সত্ত্বেও আগামীকাল মাহেশের রথযাত্রায় উপস্থিত হয়ে এই প্রথম জেলার কোনো রথের রশিতে টান দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক কী বার্তা দেন, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!