এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় এবার নব কলেবরে বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন – জানুন বিস্তারিত

মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় এবার নব কলেবরে বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন – জানুন বিস্তারিত

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যে শিল্প টানতে অনেকদিন আগে থেকেই শুরু হয়েছিল বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন। যে সম্মেলন থেকে রাজ্যে শিল্প টানতে বিভিন্ন শিল্পপতিদের কাছে রাজ্যের বক্তব্য পেশ করা হয়েছে। কিন্তু এবার এই সম্মেলনকে যাতে আরও ছড়িয়ে দেওয়া যায় তার জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য।

সূত্রের খবর, আগামী 7 এবং 8 ফেব্রুয়ারি এই দুই দিনব্যাপী রাজারহাটের কনভেনশন সেন্টারে বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আর এই সম্মেলনেই এবার রাজ্যের প্রতিটি জেলার উদ্যোগপতিদের আমন্ত্রণ জানানোর চিন্তাভাবনা করছে রাজ্য। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই রাজ্যের জেলাগুলির কোন কোন শিল্পপতিরা সেই সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন এই ব্যাপারে প্রস্তুতি নেওয়ার কাজও শুরু হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রতিবারই এই বিশ্ববঙ্গ সম্মেলনের মঞ্চ থেকে বাংলাকে বাণিজ্যের শ্রেষ্ঠ স্থান বলে উল্লেখ করে শিল্পপতিদের বাংলামুখী করার চেষ্টা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এবারে সেই সম্মেলনে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পপতিদের রেখে তাঁদের দ্বারাই রাজ্যে বিনিয়োগের চেষ্টা করতে মরিয়া সরকার। সরকারের উদ্যোগে এই দু দিনব্যাপী বিশ্ব বঙ্গ সম্মেলনে শিল্পপতিদের মূলত তিনটি শ্রেণীতে ভাগ করা হয়েছে।

 

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

যথা, প্রথমটি গোল্ডেন, দ্বিতীয়টি সিলভার এবং তৃতীয়টি ব্লু বিভাগ। সম্মেলনের একদম প্রথম সারিতে এই গোল্ডেন বিভাগের সদস্যরাই বসবেন বলে খবর। এদিন এই প্রসঙ্গে বাঁকুড়ার জেলাশাসক উমাশঙ্কর এস এবং বাঁকুড়ার শিল্প কেন্দ্রের আধিকারিক সমীর কুমার পন্ডা বলেন, “বাকুড়ার তিনটি বিভাগে মোট 50 জন শিল্পপতি এবারে রাজ্যের এই বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন। আমাদের আশা, এতে বাংলায় অনেকটাই শিল্প বাড়বে।”

একাংশের মতে, এই ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্পদ্যোগিদের বিশ্ববঙ্গ সম্মেলনী নিয়ে এসে রাজ্যের শিল্পক্ষেত্রে আরও শ্রীবৃদ্ধি ঘটাতে চায় সরকার। সব মিলিয়ে এবার মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় ফের নতুন রূপে বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন।

আপনার মতামত জানান -
Top