এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দেশের বুকে বাংলার মাথা হেঁট করে দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে ধিক্কার অধীর চৌধুরীর

দেশের বুকে বাংলার মাথা হেঁট করে দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে ধিক্কার অধীর চৌধুরীর

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’কে আবার ও কটুক্তি করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন সন্ত্রাস কবলিত দলীয় কর্মী সমর্থকদের দেখতে মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। সেখান থেকেই তিনি বললেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ব্যর্থ হয়েছেন। তাঁর প্রশাসন ব্যর্থ রাজ্যে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে। এখন ব্যর্থতা ঢাকতে তিনি সাফাই গাইছেন, আগের নির্বাচনের সঙ্গে তুলনা করছেন এবারের ভোট সন্ত্রাসের।” একই সাথে তিনি এদিন খুন, জখম, ভোট লুঠ, সন্ত্রাস, মারামারি নিয়ে ব্যক্তিগত উষ্মা প্রকাশ করে আরোও বললেন, ” আমাদের মুখ্যমন্ত্রীর বলা উচিত ছিল, রাজ্যের ভোটে খুন হবে, তবে এবার খুন-জখম একটু কম হবে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

ভাই, তোমরা কিছু মনো কোরো না। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা বলেননি। বরং আমরা যেটা আশঙ্কা করেছিলাম, তা-ই হয়েছে। পঞ্চায়েত ভোট রক্তাক্ত হয়েছে। রক্তস্নাত পঞ্চায়েত ভোট কেড়ে নিয়েছে তাজা প্রাণ। আর রাজ্যে ভোটের নামে প্রহসন হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেস ও পুলিশ একযোগে আক্রমণ চালিয়েছে। পুলিশের ভূমিকা সঠিক ছিল না। তাই পঞ্চায়েত নির্বাচন রক্তাক্ত হওয়া থেকে আটকানো গেল না এবার। রাজ্যের এই ভোটচিত্রে বাংলার মানুষ হিসেবে আমাদের মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে।” এরপরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে কার্যত ভৎসনা করেই তিনি বললেন, “এই খুন, রক্তপাত, সন্ত্রাসের কি কোনও প্রয়োজন ছিল। কোন দলের কত জনের মৃত্যু হল সেটা বড় কথা নয়, ভোট করতে গিয়ে মানুষ মারা গেল এটাই লজ্জা। মানুষের প্রাণ চলে গেল এটাই আক্ষেপের।মানুষের ভোটের অধিকার সুনিশ্চিত করতে আমরা হাইকোর্টে গিয়েছিলাম। কিন্তু আমাদের আবেদন মাঠে মারা গিয়েছে। আদালতও দেখেছে, বোমা-বারুদের গন্ধে ভোট হয়েছে। মানুষের প্রাণ গিয়েছে। আর পুলিশ-প্রশাসন সম্পূর্ণ ব্যর্থ তা রুখতে। এই সন্ত্রাসের ভোটের পর নবান্নে রাজ্য পুলিশের ডিজির মন্তব্য সত্যিই দুঃখজনক। নবান্ন যা শিখিয়ে দিচ্ছে, তাই বলছেন ডিজি। ডিজি শাসক দলের ক্রীতদাসে পরিণত হয়েছে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!