এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোটের মুখে শিক্ষিত বেকারদের ১ লক্ষ টাকা করে সাহায্য করে তৃণমূল নেত্রীর দাবি, মোদির মতো ভোটের মুখে প্রকল্প উদ্বোধন করি না!

ভোটের মুখে শিক্ষিত বেকারদের ১ লক্ষ টাকা করে সাহায্য করে তৃণমূল নেত্রীর দাবি, মোদির মতো ভোটের মুখে প্রকল্প উদ্বোধন করি না!

রাজ্যের বেকার যুবক- যুবতীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে রাজ্য সরকার নানা উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সূচনা করেছে বলে বিভিন্ন সময় দাবি করে আসছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। আর এবার গতকাল দুপুরে হাওড়ার আরুপাড়ায় রাজ্যের প্রথম হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে “যুবশ্রী অর্পণ” নামে বেকার যুবক যুবতীদের জন্য একটি নতুন প্রকল্পের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু কি এই যুবশ্রী অর্পন প্রকল্প? মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, বেকার যুবক যুবতীদের জন্য রাজ্যে অনেকদিন আগেই চালু হয়েছিল যুবশ্রী প্রকল্প। আর তারই দ্বিতীয় পর্ব হল এই যুবশ্রী অর্পণ।

মূলত ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প দফতরের উদ্যোগে এই প্রকল্পে বেকার যুবক-যুবতীদের স্বাবলম্বী করতে মোট ৫০ হাজার বেকারকে মাথাপিছু ১ লক্ষ টাকা করে দিয়ে সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, লোকসভা নির্বাচনের আগে যখন রাজ্যের বিরোধী দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে যে, এই রাজ্যে কোন কর্মসংস্থান নেই, ঠিক তখনই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে চালু হওয়া এই যুবশ্রী অর্পন প্রকল্প রাজ্যের শাসক দল তৃনমূলকে অনেকটাই অ্যাডভান্টেজ দিতে পারে। এদিকে রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীদের জন্য এই নতুন কর্মসংস্থানের প্রকল্পই শুধু ঘোষণা নয়, এদিন এই প্রকল্প ঘোষণার পাশাপাশি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধেও তোপ দাগতে দেখা যায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

বাংলা সবকিছুতেই সেরার সেরা হয়ে উঠছে বলে কেন্দ্রকে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “নির্বাচনের মুখে এখন বাথরুমও উদ্বোধন করতে শুরু করেছেন নরেন্দ্র মোদী। আমরা এরকম কাজ করি না। আমরা যেটা বলি সেটা করে দেখাই। ভোটের সময় শুধু নয়, সারা বছরই এখানে উন্নয়ন যোগ্য চলে।” বিজেপির বিরুদ্ধে ভেদাভেদের রাজনীতির অভিযোগ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ভোট এসেছে, তাই বোমা বন্দুক আর মিসাইল দেখাতে হচ্ছে। যে জওয়ানরা আমাদের গর্ব তাদের নিয়ে কেউ কেউ ফায়দা তোলার রাজনীতি করছে।”

তিনি আরও বলেন, “আমরা দেশের পক্ষে, সংস্কৃতির পক্ষে, ঐতিহ্যের পক্ষে, প্রগতির পক্ষে, কিন্তু আমরা কোনভাবেই মোদির পক্ষে নই। প্রতিবাদ করলেই এখন বিজেপির লোকেরা গুগোলে সার্চ করে আমার ধর্ম কি সেটা দেখতে চাইছে। মাথায় রাখবেন আমার ধর্ম হল মানবতা।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্র বনাম রাজ্যের এই তরজা দিনকে দিন আরও বাড়তে শুরু করেছে। আর তাইতো এদিন রাজ্যের প্রথম হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে সারা বছরই রাজ্য সরকার উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চালায় বলে নিজেদের উন্নয়নপ্রেমী সরকার হিসেবে তুলে ধরতে মরিয়া চেষ্টা চালালেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!