এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শহীদ স্মরণে মোমবাতি মিছিলে হেঁটে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য – জঙ্গিদের কোন জাত, ধর্ম, সম্প্রদায় হয় না

শহীদ স্মরণে মোমবাতি মিছিলে হেঁটে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য – জঙ্গিদের কোন জাত, ধর্ম, সম্প্রদায় হয় না

গত 14 ফেব্রুয়ারি ভূস্বর্গ জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় পাক মদদপুষ্ট জঙ্গীদের নৃশংস হামলায় ইতিমধ্যেই প্রাণ হারিয়েছেন দেশের প্রায় 42 জন সেনা। আর যে ঘটনায় গোটা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সেই সেনাদের আত্মার প্রতি শান্তি কামনা করে ও দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবিতে রাস্তায় নেমেছে উদ্বেলিত জনতা।

ভারতীয় সেনাদের প্রতি পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিদের এই নৃশংস হামলার ঘটনায় প্রথম দিন থেকেই রাজনীতি ছেড়ে সকলকে একজোট হওয়ার কথা বলেছে দেশের শাসক দল। শনিবার 2 ঘণ্টার নোটিশে বিকেল চারটের সময় কলকাতার হাজরা মোড় থেকে ধর্মতলায় গান্ধী মূর্তির পাদদেশে পর্যন্ত একটি মৌন মিছিল করে তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে মোমবাতি জ্বালিয়ে রাস্তায় হাটতে দেখা যায় স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।

জানা যায়, এদিন চারটে বাজার প্রায় 5 মিনিট আগেই আশুতোষ কলেজের সামনে চলে আসেন মুখ্যমন্ত্রী। দলীয় কর্মী সমর্থকদের ভিড়ের চাপে তাঁকে গাড়ি থেকে বাধ্য হয়ে নেমে পড়তে হয়। এদিকে মিছিল শুরুর পাঁচ মিনিট আগে তখন মিছিল ঠিক করতে ব্যস্ত ছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সুব্রত বক্সি। আর চারটে বাজার সাথে সাথেই শুরু হয় তৃণমূলের সেই মোমবাতি নিয়ে মৌন মিছিল।

এখানে একদম প্রথমেই মিছিলে মোমবাতি নিয়ে হাঁটতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর তাঁর পাশে কালো কাপড়ে মুখ বেঁধে হাতে মোমবাতি নিয়ে হাঁটতে দেখা যায় দোলা সেন, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং শিউলি সাহাদের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিকে শহীদ সেনাদের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য তৃণমূলের এদিনের এই শোক মিছিলে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। ভিড় সামলাতে ও গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রাস্তায় নামতে দেখা যায় রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস এবং ফিরহাদ হাকিমকে। এদিকে মিছিল শেষে যখন তা গান্ধী মূর্তির পাদদেশে এসে পৌঁছয়, তখন সেখানে মোমবাতি জ্বালিয়ে সবাই সেই শহীদ সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

আর এই গান্ধীমূর্তির পাদদেশে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে তৃণমূলের দোলা সেনকে “আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে” এই গানটি গাইতে দেখা যায়। পরবর্তীতে সেই গান্ধী মূর্তি পাদদেশে শহীদ জাওয়ানদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন সকলে। আর এইখানেই বক্তব্য রাখতে উঠে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “জঙ্গী আক্রমণের নিন্দা করার মতো কোনো ভাষা নেই। আমরা এই ঘটনাকে ধিক্কার জানাই। জঙ্গিদের কোনো জাত, ধর্ম বা সম্প্রদায় হয় না। গোটা দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে। আমরা আমাদের জওয়ানদের স্যালুট জানাচ্ছি। শহীদ পরিবারের পাশে আমরা সব সময় রয়েছি।”

এদিকে গতকাল সেই গান্ধী মূর্তির পাদদেশে দাঁড়িয়ে রোববার রাজ্যের সমস্ত ব্লক এবং ওয়ার্ডে তৃণমূল কর্মীদের বেলা দুটো থেকে তিনটে পর্যন্ত এই বীর শহীদ সেনাদের জন্য শান্তি বা মৌন মিছিল করার নির্দেশ দেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মিলিয়ে এবার শহর কলকাতাতেও বীর শহীদ সেনাদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে সম্মান জানাতে মোমবাতি নিয়ে মৌন মিছিলে হাঁটলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!