এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কড়া দাওয়াই মুখ্যমন্ত্রীর – কলকাতার রাস্তায় ‘নিয়ম’ না মানলেই হাজতবাস – জেনে নিন বিস্তারিত

কড়া দাওয়াই মুখ্যমন্ত্রীর – কলকাতার রাস্তায় ‘নিয়ম’ না মানলেই হাজতবাস – জেনে নিন বিস্তারিত

কলকাতার রাস্তায় লাগাম ছাড়া বেগে গাড়ি চালিয়ে রেহাই পাওয়ার আর কোনো পথ নেই। অবধারিত কারাবাস। এখন থেকে নির্দিষ্ট গতিবেগের বেশি গাড়ির গতিসীমা অতিক্রম করলেই বাইক আরোহী বা অন্যান্য গাড়ি চালকের হাজতবাস হবে। কলকাতা পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে এবার বেপরোয়া বাইক ও গাড়ি রুখতে কঠোর হতে চলেছে। আর আইন ভাঙলেই কপালে দূর্ভোগ। উল্লেখ্য আগেই কলকাতার রাস্তায় বেপরোয়া গাড়ি চিহ্নিত করতে বিশেষ ক্যামেরা লাগানো হয়েছিল। সেই ক্যামেরায় উঠে যাওয়া ছবি দেখেই গাড়ি চালকের বাড়িতে অভিযোগপত্র পাঠানো হত। তারপরে জরিমানা আদায় করা হত।

কিন্তু কলকাতা পুলিশের সেই নিয়মকেও যথারীতি বুড়ো আঙুল দেখিয়ে গাড়ির চালকেরা ট্রাফিক আইন ভাঙছে এবং অভিযুক্ত ঠাহর হলে জরিমানা দিয়ে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। তাই গাড়ি চালকদের এই বেপরোয়া মনোভাবে লাগাম দিতে কলকাতা পুলিশ বিকল্প চিন্তা-ভাবনা শুরু করে। তারা এখন জরিমানা দিয়ে ছাড় পাওয়া রুখতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। কলকাতা পুলিশ এখন থেকে  নির্দিষ্ট গতিসীমার থেকে জোরে গাড়ি চালালে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর ধারা আরোপ করবে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৭৯ ধারা অনুসারে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর দায়ে দোষী প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ ছ-মাসের জেল হতে পারে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

শুধু কারাবাস তাই নয় একইসাথে তিন মাসের জন্য বাতিল হয়ে যাবে লাইসেন্স। ইতিমধ্যে বিভিন্ন ক্যামেরায় মোট ৪২ জনকে বেপরোয়া গাড়ি চালঅক হিসেবে সনাক্ত করা হয়েছে। ১০০ টি গাড়ির ওপরে বিশেষ নজরও রাখা হয়েছে। বারবার গতিসীমা লঙ্ঘন করলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাই গাড়ি চালকেরা এখন থেকে সাবধান , গাড়ির স্টেয়ারিং এ হাত দেওয়া মাত্রই মনে রাখবেন আপনি অদৃষ্ট ক্যামেরার দ্বারা নিয়ন্ত্রনাধীন। গাড়িতে চড়ে নিয়ম লঙ্ঘন করলেই অল্প দিনের মধ্যেই আপনার ঠিকানা হতে পারে শ্রীঘরে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!