এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশ, তবুও ‘দিল্লিতে টাকা পাঠানো’ কয়লা মাফিয়াকে কব্জায় আনতে পারল না পুলিশ

মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশ, তবুও ‘দিল্লিতে টাকা পাঠানো’ কয়লা মাফিয়াকে কব্জায় আনতে পারল না পুলিশ

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কড়া নির্দেশ সত্ত্বেও, ‘দিল্লিতে টাকা পাঠানো’ কয়লা মাফিয়াকে এখনো বাগে আনতে পারল না রাজ্যপুলিশ।অভিযোগ, রাজ্যের বাইরে থেকেই রমরমিয়ে ব্যবসা করে চলেছে সে। বছর দেড়েক আগে গা ঢাকা দেয় ঐ কয়লা মাফিয়া।

দুর্গাপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করার সময় মুখ্যমন্ত্রী, ঐ কয়লা মাফিয়াকে গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেন। সূত্রের খবর, তৎকালীন পুলিশ কমিশনার মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছিলেন, ঐ কয়লা মাফিয়ার খোঁজে তল্লাশি চলছে। জানা গিয়েছে, ঐ কয়লা মাফিয়া শহরের বাইরে গা ঢাকা দিলেও তার অনুগামীরা এখনো সক্রিয়। তারাই বিভিন্ন জায়গায় অবৈধ খাদান চালাচ্ছে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, অণ্ডালের দক্ষিণখণ্ড গ্রামে ১৪ বিঘা চাষযোগ্য জমি কয়লা মাফিয়ারা দখল করে রেখেছে। মেশিন দিয়ে জমির মাটিও কেটে নেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে, এলাকার ১১ জন কৃষক প্রশাসনের কাছে কয়লা মাফিয়াদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন। অভিযোগে চাষীরা জানিয়েছেন, কয়লা মাফিয়ারা তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। দক্ষিণখণ্ড পঞ্চায়েতের উপপ্রধান অনন্ত ঘোষের বিরুদ্ধে কয়লা মাফিয়াদের মদত দেবার অভিযোগও তারা জানিয়েছেন। অনন্তবাবু অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়াতে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপেক্লিক করুন এই লিঙ্কে

দিন কয়েক আগে সালানপুরে কয়লাচুরি রুখতে গেলে, ইসিএলের এক নিরাপত্তারক্ষীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এর আগেও বিভিন্ন জায়গায় কয়লা চুরি রুখতে গিয়ে ইসিএলের নিরাপত্তারক্ষীরা আক্রান্ত হয়েছেন বলে তাঁদের দাবি। ইসিএল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, এসব বাধা সত্ত্বেও তাঁরা অবৈধ খাদানের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন। রানীগঞ্জ,জামুড়িয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর অবৈধ খাদান রয়েছে বলেও কর্তৃপক্ষের দাবি।

স্থানীয় বাসিন্দারা আরো জানিয়েছেন, পূর্বতন সরকারের আমলেই ঐ কয়লা মাফিয়া ব্যবসা শুরু করেছিল। তারপর ধীরে ধীরে তার দাপট বাড়তে থাকে। দুর্গাপুরের বিভিন্ন জায়গায় তার অনেক জমি রয়েছে বলেও বাসিন্দারা জানিয়েছেন।

কয়লা মাফিয়াদের অবৈধ কারবারের খবর কানে পৌঁছতেই, মুখ্যমন্ত্রী তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কড়া পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেন। কয়লা মাফিয়ার পাশাপাশি লোহার অবৈধ করবারও নজরে এসেছে পুলিশের। তাদের বিরুদ্ধেও প্রশাসন ব্যবস্থা নেওয়া শুরু করেছে বলে জানা গেছে।

Top
error: Content is protected !!