এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > সীমান্তে চীন-পাকিস্তানকে সবক শেখাতে বড়সড় পদক্ষেপ ভারতের – পুরোটা জানলে চমকে যাবেন

সীমান্তে চীন-পাকিস্তানকে সবক শেখাতে বড়সড় পদক্ষেপ ভারতের – পুরোটা জানলে চমকে যাবেন

Priyo Bandhu Media

এবার দেশের সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে চীন ও পাকিস্তানের রমরমা আটকাতে ভারতীয় বায়ুসেনার পক্ষ থেকে তৈরি করা হল সশস্ত্র কোয়াডকপ্টার। সূত্রের খবর, গত 11 ই জানুয়ারী নয়াদিল্লিতে সেনা প্রযুক্তির সেমিনার 2019 এ এই কোয়াডকপ্টারের প্রথম প্রদর্শনী দেখানো হয়।

জানা গেছে, চীন এবং পাকিস্তানের সাথে সীমান্তে অপারেশনাল চাহিদা পূরণ করাই এই কোয়াডকপ্টারের প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য হবে। রাতভর নজরদারির জন্য ব্যবহার করা এই কোয়াডকপ্টার গত 2015 সালে তৈরি করেন বায়ুসেনার 21 শিখ রেজিমেন্টের গুরপিত সিং এবং অমরিত সিং। তবে এবার এটিকে 2 কেজি পোলোড বহনের উপযোগী করে মডিফাই করে তৈরি করায় ভারতীয় বাহিনী একটা নতুন সশস্ত্র ড্রোন পেল।

প্রসঙ্গত, গত মাসেই পাক সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণ রেখার দুটি পৃথক পৃথক অংশে ভারতীয় গোয়েন্দা কোয়াডকপ্টার গুলি করে নামিয়ে দেয়। আর তখনই কোনো কোয়াডকপ্টার নিয়ন্ত্রণ রেখা পার হতে দেওয়া যাবে না বলে স্পষ্ট ভাষায় ট্যুইট মারফত জানিয়ে দেয় পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। আর এরপরই ভারতের এই কোয়াডকপ্টার তৈরি অত্যন্ত সাফল্য বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞরা।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সামরিক পর্যবেক্ষকদের একাংশের ধারণা, ভারতীয় সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণরেখায় পাকিস্তানি চৌকি ছবি তুলতে এতদিন এই কোয়াডকপ্টার ব্যবহার করা হত। কিন্তু এবার সেই কোয়াডকপ্টারগুলি সশস্ত্র হিসেবে গড়ে ওঠায় তা পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ঘুম ওড়ানোর জন্য যথেষ্ট। এদিকে 4 হাজার কিলোমিটার সীমান্তে ভারত-চীনের সাথে 44 টি কৌশলগত সড়ক নির্মাণ করবে বলে জানা গেছে। আর যেখানে পাঞ্জাব ও রাজস্থানের পাশাপাশি পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী এলাকাতেও 2,100 কিলোমিটার পার্শ্ব সড়ক নির্মাণ করা হবে।

সিপিডব্লিউডির পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী খবর, ভারত পাকিস্তান সীমান্তের পাঞ্জাব ও রাজস্থান সীমান্তে এই 2,100 কিলোমিটার পার্শ্ব সড়ক ও শাখা সড়ক নির্মাণ করতে মোট খরচ হবে 5 হাজার 400 কোটি টাকা। এদিকে চিনের সঙ্গে ভারতের চার হাজার কিলোমিটার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা জম্মু কাশ্মীর থেকে অরুনাচল প্রদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। জানা যায়, গত বছর এই সড়ক নির্মাণকে কেন্দ্র করে ভুটানের সঙ্গে ডোকালা এলাকায় চীন আর ভারতের মধ্যে তীব্র মতবিরোধ দেখা দেয়। পরে চীনের পক্ষ থেকে সড়ক নির্মাণ বন্ধ করা হলে এবং ভারত তাঁদের সেনা সরিয়ে নিলে গোটা পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ভারত ডিনামিকস লিমিটেড সম্প্রতি ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে 110 মিলিয়ন ডলারের একটি চুক্তি সম্পন্ন করে। যেখানে স্বাক্ষর করেন বিডিএলের ভি গুরুদত্ত। জানা যায়, এই চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার ফলে রাশিয়ার কারিগরি সহায়তায় তেলেঙ্গানায় অবস্থিত বিডিএলের ভানুর ইউনিটে মিসাইল ও ল্যান্সোরগুলি তৈরি করা হবে। তবে 68000 অ্যান্টি ট্যাংক গাইডেড মিসাইলের ঘাটতি এখনও ভারতীয় সেনাবাহিনীতে রয়েছে। আর এই ঘাটতি পূরণ করার জন্য ইতিমধ্যেই কনকুরস মিসাইলের অর্ডার দেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!