এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ‘পাখির চোখ’ কি উত্তরবঙ্গ? নরেন্দ্র মোদীর নতুন পদক্ষেপ ঘিরে তীব্র জল্পনা ছড়াচ্ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে

‘পাখির চোখ’ কি উত্তরবঙ্গ? নরেন্দ্র মোদীর নতুন পদক্ষেপ ঘিরে তীব্র জল্পনা ছড়াচ্ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে

বাংলায় সেভাবে কোনোদিন পদ্মফুল না ফুটলেও – আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দু-একটি নয় একবারে ২২-২৬ টি লোকসভা আসনের স্বপ্ন দেখছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ যখন সর্বপ্রথম এই কথাটি ঘোষণা করেছিলেন – রাজ্য-রাজনীতির অনেক বিশেষজ্ঞই ভেবেছিলেন কথার কথা!

কিন্তু, পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যে বামফ্রন্ট বা কংগ্রেসকে বহু পিছনে ফেলে পদ্মশিবির প্রধান বিরোধী জায়গাটা ছিনিয়ে নিতেই – সবাই নড়েচড়ে বসেছে। রীতিমত, নড়াচড়া শুরু হয়ে গেছে ৬, মুরলীধর সেন লেনে। জয়ের গন্ধ পেয়ে যাওয়া অমিত শাহও ঘনঘন সময় দিচ্ছেন বঙ্গ ব্রিগেডকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর এই ২২ টি আসনের মধ্যে বিজেপির অন্দরমহলে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে সবথেকে সম্ভাবনাময় আসনগুলির মধ্যে রয়েছে উত্তরবঙ্গের আসনগুলি। আর সেই জল্পনাকে আরও দৃঢ় করতে এবার বড় ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিজেপির আসন্ন ‘গণতন্ত্র বাঁচাও’ যাত্রা উপলক্ষে ইতিমধ্যেই রাজ্যে আসতে চলেছেন একাধিক হেভিওয়েট সর্বভারতীয় গেরুয়া নেতা। সেই মত আসার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীরও।

আগের ঘোষণা অনুযায়ী, নরেন্দ্র মোদীর রাজ্যে প্রথম সভা করার ছিল – আগামী ২৪ শে ডিসেম্বর, দুর্গাপুরে। কিন্তু, প্রধানমন্ত্রী নাকি নিজেই চেয়েছেন উত্তরবঙ্গে সভা করতে। ফলে আগামী ১৬ ই ডিসেম্বর শিলিগুড়িতে সভা করতে চলেছেন তিনি। তবে, প্রথম সভার স্থান ও দিন পরিবর্তন হলেও বাকি দিন ও স্থান আপাতত অপরিবর্তিত বলেই জানা গেছে গেরুয়া শিবিরের তরফে।

প্রধানমন্ত্রীর পরবর্তী সভার দিন ও স্থান যথাক্রমে – ২৮ ডিসেম্বর মালদহ, ৫ জানুয়ারি শ্রীরামপুর ও ১১ জানুয়ারি কৃষ্ণনগর। তবে, প্রধানমন্ত্রী নিজে থেকে উদ্যোগ নিয়ে উত্তরবঙ্গে সভা করতে চাইছেন – এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমত উৎসাহের আবহ গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ জুটি যে বাংলাকে পাখির চোখ করে ফেলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এমন সিদ্ধান্ত তাতেই সিলমোহর দিচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!