এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কেন্দ্রীয় রিপোর্টে সর্বশিক্ষার টাকা খরচ নিয়ে বড়সড় ধাক্কা রাজ্য সরকারের, বাড়ছে জল্পনা

কেন্দ্রীয় রিপোর্টে সর্বশিক্ষার টাকা খরচ নিয়ে বড়সড় ধাক্কা রাজ্য সরকারের, বাড়ছে জল্পনা

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিভিন্ন জনসভা হোক বা প্রশাসনিক বৈঠক প্রায় সব জায়গাতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে আসছেন যে, উন্নয়নের ক্ষেত্রে এই রাজ্যকে আর্থিকভাবে বঞ্চনা করছে কেন্দ্র। কিন্তু বাস্তবে কি মুখ্যমন্ত্রীর এই দাবি ঠিক? সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এক রিপোর্টে মিলল চাঞ্চল্যকর তথ্য।

সূত্রের খবর, সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পে টাকা খরচ করার দিক থেকে দেশের সমস্ত রাজ্যের নিচে রয়েছে বাংলা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, একটি আর্থিক বছরে রাজ্য সরকার ঠিক কি কি কাজ করতে চায় এবং সেই নির্দিষ্ট খাতে ঠিক কত টাকা খরচ হতে পারে তা হিসেব করে কেন্দ্রের কাছে রাজ্যের তরফে একটি বাজেট পেশ করা হয়। আর তার ওপর ভিত্তি করেই কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যগুলিকে টাকা বরাদ্দ করে থাকে। সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পও তার কোনো ব্যতিক্রম নয়।

জানা গেছে, রাজ্য এবং কেন্দ্র মিলিয়ে 2016-17 সালে এই রাজ্যের সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পে বরাদ্দ হয়েছিল 4688 কোটি 49 লক্ষ টাকা। যার মধ্যে কেন্দ্রের বরাদ্দ ছিল 821 কোটি 85 লক্ষ টাকা। কিন্তু বাকি রাজ্যগুলি যেখানে এই সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পের প্রায় সিংহভাগ টাকাই খরচ করে ফেলেছে সেখানে এই রাজ্যে খরচ মোটে 37.10 শতাংশ, অর্থাৎ 4688 কোটি 49 লক্ষ টাকার মধ্যে মোট 1 হাজার 1739 কোটি 46 লক্ষ টাকা খরচ করেছে এরাজ্য। আর যা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিস্তর প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে পেশ করা রিপোর্টে দেখা গেছে, এই সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পে মহারাষ্ট্র 83.70 শতাংশ, চন্ডিগড় 86.51 শতাংশ, রাজস্থান 77.30 শতাংশ, বিহার 66.05 শতাংশ এবং উত্তরপ্রদেশ 76.72 শতাংশ টাকা খরচ করেছে। একাংশের প্রশ্ন যেখানে সব প্রকল্পে সেরার সেরা হয়ে উল্টে কেন্দ্রের কাছে বাড়তি অর্থ দাবিদার হয় এরাজ্য সেখানে এই সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্প কেন টাকা পড়ে রইল?

সূত্রের খবর, নিয়মানুযায়ী বরাদ্দ টাকার সবটা যদি খরচ না হয় তাহলে তার পরের বছর সেই রাজ্যের বাজেট কমিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি সেই খরচ না হওয়া টাকা নতুন বাজেটে যুক্ত হয়। ফলে এই রাজ্যের ক্ষেত্রেও তেমনটাই হয়েছে বলে খবর। এদিকে ঠিকমতো এই সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পে টাকা খরচ করতে না পারায় এদিন সরকারের বিরুদ্ধে তোপ ডেকেছে বিরোধী শিক্ষক সংগঠনগুলি।

এদিন এ প্রসঙ্গে বঙ্গীয় শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক স্বপন মন্ডল বলেন, “বাম আমলে কেন্দ্র সহায়তা না করলেও এখন সেই কেন্দ্র রাজ্যকে অনেক টাকা দিচ্ছে। কিন্তু আদতে রাজ্যের সরকার সেটা সঠিক কাজে লাগাতেই পারছে না।” তবে এই সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পের টাকা যে রাজ্য ঠিক মতো খরচ করতে পারেনি তা জানেনই না পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অজিত নায়েক। গোটা বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে দেখবেন বলে এদিন আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক মহলের মতে, যেখানে প্রায়শই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন যে, কেন্দ্র রাজ্যকে টাকা দিচ্ছে না, সেখানে সেই কেন্দ্র টাকা দেওয়া সত্ত্বেও যেভাবে সর্বশিক্ষা মিশন প্রকল্পে টাকা খরচ করতে না পারায় একেবারে শেষ স্থানে রয়েছে এরাজ্য তাতে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে সেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই ইস্যুটি কেই তুলে ধরে ভোটের ময়দানে নিজেদের রাজনৈতিক অস্ত্রে শান দিতে পারে বিরোধীরা।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!