এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > জিতলেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী – বার্তা তুলে ধরে আলিপুরদুয়ারে প্রচার জমাতে মরিয়া গেরুয়া শিবির

জিতলেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী – বার্তা তুলে ধরে আলিপুরদুয়ারে প্রচার জমাতে মরিয়া গেরুয়া শিবির

Priyo Bandhu Media


এবারে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের আলিপুরদুয়ার লোকসভা আসনে জিততে একটি মোক্ষম কৌশল বিজেপি। প্রসঙ্গত, এবারে এই আসনে বিজেপির তরফে প্রার্থী হয়েছেন জন বারলা। ইতিমধ্যে ভোটের প্রচারে চা শ্রমিক মহল্লায় গিয়ে এই জন বারলাকে জেতালে উত্তরবঙ্গের চা শিল্পের সঙ্কট দেখভাল করার জন্য তাকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী করার দাবি দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে জানানো হবে বলে ইতিমধ্যেই সাধারণ মানুষের কাছে এই বিষয়টি তুলে ধরতে শুরু করেছে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।

প্রসঙ্গত, উত্তরবঙ্গের চা বলয় থেকে এখনও পর্যন্ত কেন্দ্রে আদিবাসীদের তরফ থেকে কেউ তেমন ভাবে মন্ত্রী হয়নি। আর তাই সেই আদিবাসীদেরই অন্যতম মুখ আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জন বারলাকে জেতালে সেখানে তিনি সাধারণ মানুষের সমস্যায় কেন্দ্রের কাছে সমস্ত দাবিদাওয়া তুলে ধরার পাশাপাশি তাকে মন্ত্রী করার জন্যও কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানাবে বিজেপি জেলা নেতৃত্ব বলে জোর প্রচার চালাতে শুরু করেছে গেরুয়া শিবির।

আর বিজেপির এহেন প্রচারের পেছনে যে অনেকটাই ভোটব্যাঙ্ক নির্ভর করছে সেই ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা বিজেপির সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, “তৃণমূল সরকার বন্ধ বাগান খুলতে ও চা শ্রমিকদের সমস্যা মেটাতে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ। তাই আমরা মনে করছি উত্তরের চা শিল্পের সমস্যা দেখার জন্য কেন্দ্রে একজন মন্ত্রী দরকার। আমরা একশো শতাংশ নিশ্চিত যে এই কেন্দ্রে আমাদের প্রার্থী জিতছেন এবং জিতলেই আমাদের প্রার্থীকে মন্ত্রী করার জন্য আমরা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে দাবি জানাব।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে বিজেপি নেতৃত্বের এহেন প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা জবাব দিয়েছে তৃণমূলও এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূল সভাপতি মোহন শর্মা বলেন, “বাগান কারা খুলছে তা শ্রমিকরা দেখতেই পাচ্ছেন। ভোটের প্রচারে এই সমস্ত সস্তা চমকে শ্রমিকরা ভুলবেন না।” কিন্তু জয়ের ব্যাপার এখানে কতটা আশাবাদী বিজেপি প্রার্থী জন বারলা?

এদিন এই প্রসঙ্গে আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী বলেন, “তৃণমূলের সরকার বলছে তারা বন্ধ বাগান খুলেছে। কিন্তু আমরা মনে করি কোনো বাগান খোলা হয়নি। ভোটে ফায়দা তুলতে ভোটের আগে বাগান খোলার নাটক করছে তৃণমূল। আমরা প্রচারে সেটাই তুলে ধরছি। আশা করি মানুষ আমাদেরই সমর্থন করবেন।”

অন্যদিকে এই ব্যাপারে পাল্টা তৃণমূল প্রার্থী দশরথ তিরকি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী তো মাদারিহাটের সাতটি চা বাগান অধিগ্রহণ করে তা খোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কোথায় গেল সেই প্রতিশ্রুতি? ওরা একটাও বাগান খুলতে পারেনি। আসলে ভোটের আগে ওরা মিথ্যে চমক দিচ্ছে।”

সব মিলিয়ে আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রকে পাখির চোখ করে ভোটে জিতলে এখানকার প্রার্থী জন বারলাকে মন্ত্রী করে স্থানীয় সমস্যা সমাধানের আবেদন কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে জানাবে বলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে জনসংযোগে এই কথাটিকেই তুলে ধরছে গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!