এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কংগ্রেসের আনা অনাস্থা প্রস্তাবে খুশি নন তৃণমূল নেত্রী ?কারণ কি ? জোর জল্পনা

কংগ্রেসের আনা অনাস্থা প্রস্তাবে খুশি নন তৃণমূল নেত্রী ?কারণ কি ? জোর জল্পনা

তৃণমূল কংগ্রেস দলের পক্ষ থেকে দলীয় সাংসদদের প্রতি এদিন এক নির্দেশিকা জারী হলো। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন একটি নির্দেশিকা জারী করে বললেন  লোকসভায় এনডিএ সরকারের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবে ভোটাভুটির দিন প্রত্যেক তৃণমূল সাংসদের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক। রাজনৈতিক মহলের মতে এনডিএ বহিঃভূত দলগুলির মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস এই নির্দেশিকা জারী করে সকল দলের কালের কাছে বার্তা দিলেন যে গেরুয়া শিবিরের বিরোধীতায় তিনি অন্য সকল দলগুলির থেকে বেশ অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য , ১৮ ই জুলাই থেকে স্নগসদের বাদল অধিবেশন শুরু হয়েছে। এদিন কংগ্রেস দলের পক্ষ থেকে লোকসভায় মোদী সরকারের বিরুদ্ধে  অনাস্থা পেশ করা হয়। লোকসভার স্পীকার সাংসদ সুমিত্রা মহাজন সেই প্রস্তাব গ্রহণ করেন । এবং তিনি জানান যে, এই প্রস্তাবের ওপরে ভোটাভুটি হবে আগামী ২০ শে জুলাই অর্থাৎ শুক্রবার। এদিকে ২১ শে জুলাই তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ দিবস পালনের বার্ষিক অনুষ্ঠান ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সেই উপলক্ষ্যে সমাবেশের বিভিন্ন দায়িত্ব রয়েছেন সাংসদরা। তাই এই পরিস্থিতিতে সবদিক বিবেচনা করে দলনেত্রীর নির্দেশ পরদিন যত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব থাকুক না কেনও শুক্রবারের ভোটাভুটির দিনে প্রত্যেক সাংসদের লোকসভাতে উপস্থিতি বাধ্যতামূলক। এই প্রসঙ্গে দলনেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন নবান্ন থেকে বললেন, ” এটা আসল অনাস্থা নয়। ৭ মাস পর মানুষ আসল অনাস্থা আনবে। বৃহত্তর স্বার্থে আমরা থাকব।”

অন্যদিকে জল্পনা উঠেছে কংগ্রেসের আনা অনাস্থা প্রস্তাবে  মোটেই খুশি নয় তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকি এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে হাত শিবির , তৃণমূল কংগ্রেসের সাথেও এই বিষয়ে কোনো আলোচনা করেনি বলেও জানা গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে তার পরেও বিরোধী ঐক্যের স্বার্থে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনাস্থাকে সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Top
error: Content is protected !!