এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের অস্বস্তিতে মুকুল রায়, পড়তে চলেছে সিবিআইয়ের ডাক 

ফের অস্বস্তিতে মুকুল রায়, পড়তে চলেছে সিবিআইয়ের ডাক 

তৃণমূলে থাকার সময় সারদা কাণ্ড নিয়ে তাকে সিবিআইয়ের জেরাপর্বে ডাকা হলে তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন, তদন্তের স্বার্থে তিনি সব সময় সিবিআইকে সহযোগিতা করবেন। তারপর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন মুকুল রায়। আর মুকুলবাবুর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পেছনে দুর্নীতি থেকে রক্ষা পাওয়া এবং সারদা-কাণ্ড থেকে রক্ষা পাওয়াই প্রধান কারণ হিসেবে দেখতে শুরু করেছিল ঘাসফুল শিবির।

তবে মুকুলবাবু অবশ্য বরাবরই তৃণমূলের সেই অভিযোগকে অস্বীকার করে এসেছে। অনেকে ভেবেছিলেন, বিজেপিতে গিয়ে হয়ত বা এই সারদা-কাণ্ড বা অন্যান্য তদন্ত থেকে রক্ষা পাবেন মুকুল রায়। কিন্তু না, সমালোচকদের সমস্ত জল্পনা-কল্পনায় জল ঢেলে দিয়ে এবার সারদা অর্থলগ্নি সংস্থার তদন্তের জন্য মুকুল রায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় সিবিআই।

সূত্রের খবর, আগামী 15 ই আগস্টের পর এই বিজেপি নেতাকে জেরার জন্য ডাকতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। বস্তুত, সারদা তদন্ত প্রায় শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। তদন্তের গতি ঠিক পর্যায়ে থাকলে আগামী দু’মাসের মধ্যেই চূড়ান্ত চার্জশিট পেশ হয়ে যাওয়ার কথা। আর সবশেষে পেশ হওয়া চার্জশিটেই সারদা থেকে প্রভাবশালীরা ঠিক কী কী লাভ পেয়েছে, তা উল্লেখ থাকতে পারে বলে আচ করা যাচ্ছে।

ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে তৃণমূলের একাধিক নেতা, যার মধ্যে সুব্রত বক্সি, দীনেশ ত্রিবেদী, তমোনাশ ঘোষ এবং ডেরেক ও ব্রায়েনদের সঙ্গে কথা বলেছেন সিবিআই আধিকারিকরা। আর এবার তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই সারদাকাণ্ডে জেরার জন্য বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে ডাকার খবর পাওয়া গেলে তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

তদন্তকারীদের একাংশের মতে, তৃনমূলে থাকার সময় সারদার ব্যাপারে মুকুলবাবু সমস্ত কিছুই জানতেন। তাই কিভাবে কি হয়েছে, তা তার কাছ থেকে জেনে আরও প্রভাবশালীদের জেরা করতে চাইছে সিবিআই। আর তাই তো এবার মুকুল রায়কে জেরা করে সারদাকাণ্ডের আরও গভীরে প্রবেশ করতে চাইছে তারা।

এদিন এই প্রসঙ্গে এক তদন্তকারী কর্তা বলেন, “যদি মুকুলবাবু সারদার মামলায় রাজসাক্ষী হয়ে আদালতে সব বলতে রাজি হন, তাতে আমাদের সমস্যা নেই। কারণ সারদার সর্বশেষ উপভোক্তা কে ছিলেন, তা খোজাই এখন আমাদের মূল কাজ।” তবে সিবিআই তাকে ডাকলে এবং জেরা করলেও তাতে বিন্দুমাত্র বিচলিত নন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

এদিন তিনি বলেন, “সিবিআই আমাকে যতবার ডাকবে, আমি ততবার যাব। সারদাকাণ্ডে আসল লাভ কার কার হয়েছে, তা জানিয়ে আসব।” সব মিলিয়ে এবার সিবিআইয়ের জেরাপর্বে মুখোমুখি হয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোনো বোমা পাঠাতে সক্ষম হন কিনা মুকুল রায়, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

Top
error: Content is protected !!