এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ফের তৃণমূল নেত্রীও পুলিশকে নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ, জেনে নিন বিস্তারিত

ফের তৃণমূল নেত্রীও পুলিশকে নিয়ে বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ, জেনে নিন বিস্তারিত

Priyo Bandhu Media

“বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প ঠিক কার!” তা নিয়ে রাজ্য বনাম কেন্দ্রের সংঘর্ষে বর্তমানে তোলপাড় হয়ে উঠেছে রাজ্য রাজনীতি। আর এরই মাঝে এবার রাজ্যে সিবিআই তদন্ত করার ব্যাপারে রাজ্যের অনুমতি নেওয়ার কথা বলায় সেই রাজ্যের শাসকদল তথা মুখ্যমন্ত্রীর উপরে পাল্টা চাপ সৃষ্টি করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাজ্যে সিবিআই তদন্ত করার ব্যাপারে প্রথম প্রবল বিজেপি বিরোধী হিসেবে পরিচিত চন্দ্রবাবু নাইডু তাঁর রাজ্য সিবিআই ঢোকার ব্যাপারে আপত্তি তোলেন। আর এরপরই একইভাবে বাংলাতেও সিবিআই তদন্ত করার ব্যাপারে আগে রাজ্যের অনুমতি নিতে হবে বলে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। সম্প্রতি এই বিভিন্ন রাজ্যে বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীরা সিবিআই তদন্ত করার ব্যাপারে আপত্তি তোলায় সেই দলগুলির সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করে তাঁদের কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর এবার প্রধানমন্ত্রীর দেখানো পথে হেঁটেই বাংলায় সিবিআই তদন্ত ব্যাপারে “না” করায় পাল্টা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়ে পুলিশি অসহযোগিতা করার রাস্তায় হাঁটার কথা শোনা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের গলায়। এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “সংবিধান কে লংঘন করা, রাজ্যে নৈরাজ্য সৃষ্টি করার – সবটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শেখাচ্ছেন। তাই এখন থেকে আমাদের কাছে পুলিশের চিঠি এলে কিংবা থানা থেকে ডাকলেও আমরা কেউ যাব না। পারলে আমাদের তুলে নিয়ে গিয়ে গ্রেফতার করুক।”

এদিকে কেন্দ্রের সিবিআই তদন্তের ব্যাপারে রাজ্য অসহযোগিতা করা শুরু করলে এবার থেকে রাজ্যের পুলিশ যদি তাঁদের ডাকে তাহলে তারাও অসহযোগিতা করবেন বলে নিজের সুর চওড়া করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। পাশাপাশি এদিন ফের রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনকে “তৃণমূলের দলদাস” হিসেবে উল্লেখ করেছেন দিলীপ ঘোষ।

রাজনৈতিক মহলের মতে, এমনিতেই লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সাথে বিরোধী দল বিজেপির সংঘাত লেগেই রয়েছে। সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলায় সিবিআই তদন্ত ঢোকার ব্যাপারে আপত্তি তোলায় বিরোধীদল বিজেপির পক্ষ থেকেও রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের তদন্তের ব্যাপারে তাঁদের ডাকলে অসহযোগিতা করা হবে বলে জানানোয় রাজ্য রাজনীতিতে যে ফের তৃণমূল এবং বিজেপির দ্বৈরথ আরও জোরালো হতে চলেছে তা নিঃসন্দেহে বলাই যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!