এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া (Page 2)

কেশপুরে বড়সড় ধাক্কা খেল গেরুয়া শিবির,বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ

  পশ্চিম মেদিনীপুর  কার্তিক গুহা :- একদিকে এনআরসি সিএএ নিয়ে নাজেহাল অবস্থা বিজেপির। এর মধ্যে কেশপুরে বড়সড় ধাক্কা খেল গেরুয়া শিবির। বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন বিজেপির মন্ডল সভাপতি সহ ৫০ জন সক্রিয় বিজেপি কর্মী। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য কেশপুর মন্ডল সভাপতি শেখ সেলিম মল্লিক , গরগোজপোতা গ্রামের বিজেপি নেতা শেখ ইসমাইল ,

ঝাড়গ্রামকে বিশেষ গুরুত্ব প্রশান্ত কিশোরের, জেনে নিন

2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের অনেক জায়গাতেই অভূতপূর্ব উত্থান ঘটেছে ভারতীয় জনতা পার্টির। আর তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য, আদিবাসী অধ্যুষিত লোকসভা কেন্দ্র ঝাড়গ্রাম। এই লোকসভা কেন্দ্রে এবার ব্যাপক পরিমাণে জনসমর্থন লাভ করতে সক্ষম হয়েছে রাজ্যের গেরুয়া শিবির। শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে যা রীতিমতো রক্তচাপ বাড়ানোর সংকেত দিয়েছে। শুধু তাই নয়, লোকসভা

ঝাড়খণ্ড বিজেপির হাতছাড়া হতেই পুরুলিয়া গেরুয়া মুক্ত করতে উজ্জীবিত তৃণমূল শিবির

  বিগত দিনে ঝাড়খণ্ডের সীমান্ত লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গের জেলা ঝাড়গ্রাম থেকে শুরু করে পুরুলিয়া, সবখানেই পাশের রাজ্য ঝাড়খন্ডে ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার ক্ষমতায় থাকার কারণে অ্যাডভান্টেজ পেয়েছে বিজেপি বলে মত প্রকাশ করতে দেখা গেছে স্বয়ং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। অনেকবারই দলীয় নেতা নেত্রীরা হুংকার দিয়েছেন, ঝাড়খণ্ডের বর্ডার থেকে প্রতিবেশী রাজ্যের লোক ঢুকিয়ে

নাবালিকা পরিচারিকাকে খুনের হুমকি দিয়ে এবার গ্রেপ্তার বাংলার বিজেপি নেতা

  সম্প্রতি উন্নাওয়ের অপহরণ এবং ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত বিজেপি বিধায়ককে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালত। আর আদালতের সেই আদেশ কাটতে না কাটতেই নাবালিকা পরিচারিকাকে খুনের হুমকি দিয়ে গ্রেপ্তার হলেন বঙ্গ বিজেপি নেতা। সূত্রের খবর, ভারতীয় জনতা পার্টির এক মন্ডল সভাপতি সুব্রত দাসের বিরুদ্ধে নাবালিকা পরিচারিকাকে খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করে

জঙ্গলমহলে হারানো জমি খুজে পেতে একদা কালি দেওয়া নেতাদের মালা দিয়ে বরন তৃনমূলের!

  একদা যেই নেতার মূর্তিতে কালিমালিপ্ত করার অভিযোগ উঠেছিল তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে, 6 বছর পরে সেই নেতার মূর্তিতে মাল্যদান করতে হল সেই তৃণমূল নেতাকে। রাজ্যে ক্ষমতায় আসার আগে ঝাড়খন্ড পার্টির প্রয়াত প্রাক্তন বিধায়ক নরেন হাসদার সঙ্গে বেশ ভালো সম্পর্ক ছিল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের। কিন্তু 2011 সালে পশ্চিমবঙ্গের শাসন ক্ষমতায় তৃণমূল

দলীয় পর্যবেক্ষকের ঘোষণা উড়িয়ে সভাপতি হিসেবে নতুন নামেই সিলমোহর বিজেপির! বাড়ছে জল্পনা

  লোকসভায় সাফল্য পাওয়ার পর রাজ্যের সদ্যসমাপ্ত তিন বিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপি পর্যুদস্ত হয়েছে। যার পরেই গেরুয়া শিবির আঁচ করতে পেরেছে যে, বাংলায় সংগঠন বিনা সাফল্য পাওয়া সম্ভব নয়। আর তা আঁচ করে ইতিমধ্যেই একাধিক জেলা সভাপতি পদে পরিবর্তন এনেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। তবে জেলা সভাপতি নিয়ে দ্বন্দ্ব কিছুতেই কমছে না বিজেপির

তৃণমূলের ঘুম উড়িয়ে একের পর এক নেতার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগের লিফলেট “দুঃখী জনসাধারণের”!

ইতিমধ্যেই ভারতীয় জনতা পার্টির মন্ডল সভাপতি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলের সাংগঠনিক জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে লিফলেট পড়ার মতো ঘটনা নজর কেড়েছিল রাজ্যের রাজনৈতিক মহলের। বারাসাতের ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কটাক্ষ করতেও দেখা যায় রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে। কিন্তু এই ঘটনার কয়েকদিন কাটতে না কাটতেই সেই পোস্টারে আতঙ্ক এখন রাতের ঘুম

বাঁকুড়ার গেরুয়া মাটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে তৃণমূল! বিজেপি শিবিরে লাগল বড়সড় ভাঙন

  লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়া জেলায় অত্যন্ত ভালো ফল করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এই জেলার দুটি লোকসভা আসন বাঁকুড়া এবং বিষ্ণুপুরে পদ্ম ফুল ফুটেছে। শুধু তাই নয়, জেলার অধিকাংশ পৌরসভা আসন থেকে শুরু করে পঞ্চায়েত স্তরে প্রায় সবকটি জায়গাতেই শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের তুলনায় লোকসভা ভোটে এগিয়ে রয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু

পুরনো সভাপতিই থাকছেন নাকি ৩ সাধারণ সম্পাদকের কেউ সভাপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন? জল্পনা বিজেপিতে

লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি সাফল্য পাওয়ার পর তারা এখন নজর দিয়েছে জেলায় জেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার দিকে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের 23 টি সাংগঠনিক জেলার সভাপতির নাম ঘোষণা করেছে বঙ্গ বিজেপি। তবে আশ্চর্যজনকভাবে সেই তেইশটি জেলার মধ্যে নাম নেই বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার। ফলে সেখানে সভাপতি পদে বদল হবে, নাকি পুরনো সভাপতিই থাকবেন! তা

তৃণমূলকে বিপাকে ফেলতে বিজেপির হাতে বড় অস্ত্র! চলছে শান দেওয়ার প্রাথমিক প্রস্তুতি!

ভোট আসে ভোট যায়, কিন্তু সাধারণ মানুষের দুর্দশা সেই একই জায়গায় রয়েছে। রাজনৈতিক মানচিত্রে হয়তো দল পরিবর্তন হয়, কিন্তু সাধারণের অবস্থার উল্লেখযোগ্য কোনো পরিবর্তন হয়না। এই ঘটনার উদাহরণ হিসেবে বাঁকুড়ার ভূতেশ্বর ওন্দার কথা বলা যায়। দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার মানুষ একটি সেতুর দাবি করে এসেছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত ভোটের পর

Top
error: Content is protected !!