এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া

স্বয়ং তৃণমূল নেত্রীর চিন্তা বাড়িয়ে কর্মচারী সংগঠন আত্মপ্রকাশ করার সাথে সাথেই তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের যোগ

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির প্রবল উত্থানের পরই শাসক দলের একাধিক জনপ্রতিনিধিরা গেরুয়া শিবিরে নাম লাগাতে শুরু করেন। যা নিয়ে প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছেন তৃণমূল। এমনকি এই দলবদলের পালা কি করে রোধ করা যায় তা নিয়েও চলে জোর চর্চা। এই পরিস্থিতিতে এবার পুরুলিয়ায় নিজেদের কর্মচারী সংগঠন আত্মপ্রকাশ করল গেরুয়া শিবির। যা

ঝাড়গ্রামে ফের শক্তি বৃদ্ধি, তৃণমূল ও সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ

ঝাড়গ্রাম, কার্তিক গুহা :- ঝাড়গ্রামে ফের শক্তিবৃদ্ধি করলো বিজেপি। রবিবার ঝাড়গ্রামের বাছুরডোবায় বিজেপির সভায় সিপিএমের ঝাড়গ্রাম জেলা কমিটির সদস্য অসীম নন্দী সহ তাঁর অনুগামী ৮০০ সমর্থক বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও ঝাড়গ্রামের জেল সভাপতির হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করলো। এওছাড়াও সাঁকরাইলের রোহিনী গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল প্রধান সারথী সিংহ, ঝাড়গ্রামের রাধানগর

উলটপুরাণ, রাজ্যে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ , হারানো শক্তি ফিরছে দাবি শাসকদলের

উলট পুরান রাজ্যে, লোকসভা ভোট মিটতেই শাসকদল ছেড়ে একে একে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পরে গেছে। বিধায়করা তো বটেই রাজ্যের তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরাও দলে দলে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। কিন্তু এহেন পরিস্থিতিতে রাজ্যে পুরুলিয়ায় দেখা গেলো উল্টো চিত্র। প্রসঙ্গত, পুরুলিয়া লোকসভা আসনে জিতেছে বিজেপি। পঞ্চায়েত নির্বাচনেও পুরুলিয়ায় ভালো ফল করেছিল বিজেপি। আর তার

জঙ্গলমহলে ফের তৃণমূলের ঘর ভাঙলো বিজেপি, সবে শুরু দাবি বিজেপির

কার্তিক গুহা, ঝাড়গ্রাম :- লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে ১৮ টি আসনে জয়লাভ করেছে।জঙ্গলমহলেও জয়ী হয়েছে বিজপি।তারপর থেকে বিভিন্ন দল থেকে বিজপি তে যোগদানের লাইন ক্রমশ বাড়ছে।শাসক দলে দেখা দিয়েছে ভাঙন। ঝাড়গ্রাম জেলার বিনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্যা মনিমালা দাস এদিন বিজেপিতে যোগদান করে। তিনি কুই সংসদ থেকে জয়ী হয়েছিলেন। বিজেপির ঝাড়গ্রাম বিধানসভা

তৃনমূলের পুরোনো কর্মীদের জন্য সুখবর আনলেন শুভেন্দু, জেনে নিন বিস্তারিত

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় তৃণমূলের ভরাডুবি হওয়ার পাশাপাশি বাঁকুড়া জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্র বাঁকুড়া এবং বিষ্ণুপুরও হাতছাড়া হয়েছে শাসকদলের। যেখানে জয়লাভ করেছে বিজেপি প্রার্থীরা। আর দলের এই ভরাডুবির পরই সংগঠনকে সাজাতে বাঁকুড়া জেলায় দলের পর্যবেক্ষক থাকা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরিয়ে সেখানে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শুভেন্দু অধিকারীকে। বস্তুত, 2015 সাল পর্যন্ত এই বাঁকুড়ার

বিজয়মিছিলে বেরিয়ে বোমার আঘাতে হাত খোয়াতে হল বিজেপি কর্মীকে!

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - অনেক লড়াই করে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ঘুম উড়িয়ে রাজ্য থেকে দলীয় রেকর্ড সংখ্যক ১৮ টি সাংসদ দিল্লিতে পাঠানো গেছে। দলের নয়নের মনি নরেন্দ্র মোদী সারা ভারত জুড়ে বিরোধীদের কার্যত উড়িয়ে দিয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেছেন। সবথেকে বড় কথা বাংলাতে পদ্মশিবিরের

ফের তৃণমূলের ঘর ভাঙল বিজেপি,গেরুয়া ঝড়ে ক্রমশ চাপ বাড়ছে শাসকদলের

লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে বাংলায় এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি দাবি করেছিলেন যে, লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভরাডুবি হবে এবং এই ফলাফল ঘোষণার পরদিন থেকেই তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, বিধায়কেরা বিজেপিতে যোগদান করতে শুরু করবেন। আর বিজেপির শীর্ষ নেতাদের এই দাবিকে সত্যি করে এবারের লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে তৃণমূলের

ছাত্র সংগঠনেও ঘুম ছোটাচ্ছেন মুকুল-শঙ্কু! ঘুরে দাঁড়াতে ঝাড়গ্রামে নতুন নেতৃত্ব তুলে আনল শাসকদল

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই কার্যত হুমকিটা দিয়ে রেখেছিলেন তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা মুকুল রায়। আর তারপর নির্বাচনের ঠিক আগেই তাঁর হাত ধরে, রাজনীতিতে তাঁর প্রিয়তম শিষ্য বলে পরিচিত শঙ্কুদেব পণ্ডা যোগ দিতেই - তৃণমূলের মাদার সংগঠনের পাশাপাশি ছাত্র ও যুব সংগঠনেও বড়সড়

ফের বিজেপির পাল্লা ভারী, সাংসদের হাত ধরে কাউন্সিলর সহ শতাধিক কর্মী গেরুয়া শিবিরে

এবারের লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির প্রবল উত্থানের পরই শাসক দল থেকে একাধিক হেভিওয়েট নেতা, বিধায়কদের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে। কিছুদিন আগেই দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে একাধিক বিধায়ক এবং তৃণমূলের দখলে থাকা একাধিক পৌরসভার কাউন্সিলরদের হাতে পদ্ম শিবিরের পতাকা ধরিয়ে তৃণমূলের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছিলেন বঙ্গ রাজনীতির চাণক্য

ঝাড়গ্রামে ১৮টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১০টিতে হার, পুরসভা নির্বাচনের আগে চিন্তায় তৃণমূল 

কার্তিক গুহ, ঝাড়গ্রাম:- লোকসভা ভোটের ফলাফলের নিরিখে ঝাড়গ্রাম পুরসভায় ১৮টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১০টি ওয়ার্ডে বিজেপি এগিয়ে রয়েছে। আটটি ওয়ার্ডে তৃণমূল এগিয়ে থাকলেও কয়েকটিতে ব্যবধান খুবই কম। তাই পুরসভা নির্বাচনের আগে ভোটের ফলাফলের এই পরিসংখ্যান তৃণমূল নেতৃত্বের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। এমনকী, পুরসভার বিদায়ী চেয়ারম্যান দুর্গেশ মল্লদেব ও ভাইস চেয়ারম্যান শিউলি

Top
error: Content is protected !!