এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ (Page 2)

নেত্রীর নির্দেশেই সৌরভের পর পদ হারালেন এই হেভিওয়েট নেতা ,জোর জল্পনা রাজ্যে

অনেকদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। অবশেষে সেই জল্পনায় সীলমোহর পড়ল। পদ খোয়া গেল জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তীর। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃণমূল মোটে 22 টি আসন বাংলা থেকে দখল করেছে। আর দলের এই খারাপ ফলাফলের পেছনে সব থেকে বেশি দায়ী উত্তরবঙ্গ। কেননা এখানে আটটি আসনের মধ্যে একটি আসনও দখল করতে

পদ পেয়েই তৃণমূলের হাল ধরে ঘরের ছেলেকে ঘরে ফেরালেন হেভিওয়েট নেতা

আজ জলপাইগুড়ির ক্লাব রোডের পূর্ত দপ্তরের পরিদর্শন বাংলোয় দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন জেলা পর্যবেক্ষক তথা পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস । জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলার লোকসভা ভোটে পরাজয়ের পর আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক তথা জলপাইগুড়ি জেলার তৃণমূল সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তীকে শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় । আর এবার সভাপতি

“ভোটের সময় তৃণমূল ভয় দেখাতো” ”দিদিকে বলো”তে বিস্ফোরক অভিযোগের মুখে পড়তে হলো বিধায়ককে

ভোটের প্রচার ছাড়া আর সেই ভাবে বিধায়ককে কাছে পাননা তারা। রাজনৈতিক সভা সমিতি ও মিটিং মিছিলে অবশ্য বিধায়কের দেখা মেলে। কিন্তু সেই ভাবে কথা বলার মতো সুযোগ হয় না তাদের। কিন্তু সম্প্রতি জনসংযোগ কর্মসূচি উপলক্ষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের পদাধিকারী থেকে জনপ্রতিনিধিদের মানুষের দুয়ারে দুয়ারে পৌঁছে যাওয়ার নির্দেশ দিলে ইতিমধ্যেই সারা

কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপের পরই বাংলায় পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি, জোর চাঞ্চল্য

সম্প্রতি কাশ্মীরে 370 ধারা বিলোপ করে সেই জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল বলে সংসদে বিল পাস করা হয়েছে। যে ঘটনায় মোদি সরকারের সাহসিকতাকে ধন্যবাদ জানিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের মানুষ প্রবল আনন্দে ভাসতে শুরু করেছেন। তবে কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় সরকার এই 370 ধারা বিলোপের পরই পশ্চিমবাংলায় দার্জিলিং, কোচবিহার আলাদা হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ

পদ হারালেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা, জোর জল্পনা, জেনে নিন বিস্তারিত

অনেকদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। অবশেষে সেই জল্পনায় সীলমোহর পড়ল। পদ খোয়া গেল জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তীর। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃণমূল মোটে 22 টি আসন বাংলা থেকে দখল করেছে। আর দলের এই খারাপ ফলাফলের পেছনে সব থেকে বেশি দায়ী উত্তরবঙ্গ। কেননা এখানে আটটি আসনের মধ্যে একটি আসনও দখল করতে

বিপ্লবকে বিজেপিতে নিয়ে কতটা লাভ হচ্ছে! তা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে দলের অন্দরে

তৃণমূলে থাকার সময় বিপ্লব মিত্রর অনুগামীরা দাবি করতেন যে, দক্ষিণ দিনাজপুরে বিএম অর্থাৎ বিপ্লব মিত্রই শেষ কথা। তবে যে যাই বলুন না কেন, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় আর যে বিএম নয়, এখন সিএম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই যে শেষ কথা, তা জেলার রাজনীতিতে একের পর এক সমীকরণে স্পষ্ট

‘দিদির’ দেখানো পথেই জনসংযোগে ‘নতুন পন্থা’ নিলেন দিদির একান্ত অনুগত সৈনিক

পাহাড় মানে এক সময় ছিল সুভাষ ঘিসিং, কিন্তু তাঁকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে সেই স্থান দখল করে নেন বিমল গুরুং। অন্যদিকে, রাজ্যে ক্ষমতার পরিবর্তনের পরে বিমল গুরুং, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে পড়েন। একসময় তো তিনি তৃণমূল নেত্রীকে 'পাহাড়ের মা' বলেও আখ্যায়িত করেন। কিন্তু সময় বদলেছে - এখন বিমল গুরুঙ্গের

big breaking-গঙ্গারামপুর পুরসভায় কি হলো জেনে নিন

গঙ্গারামপুর পৌরসভা অনাস্থা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়লাভ করলো।   গঙ্গারামপুর পুরসভায় আস্থাভোট নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে পারদ চড়েছিল।জানা যাচ্ছে আজ ১১ জন কাউন্সিলারই বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ায় আস্থাভোটে পরাজিত গঙ্গারামপুর পুরসভার চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্র।

‘অপারেশন কর্ণাটক’ এবার বাংলাতেও? তৃণমূল-বিজেপি দ্বৈরথে ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা!

সম্প্রতি কর্নাটকের অনেক বিধায়ককে মুম্বইয়ে নিয়ে গিয়ে একটি হোটেলে বন্দি করে রাখা হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছিল। এমনকি - এর জেরে কর্নাটকে বদলে যায় রাজ্য সরকারই! পতন হয় কংগ্রেস সমর্থিত কুমারস্বামী সরকারের, ক্ষমতায় আসেন বিজেপির ইয়েদুরাপ্পা। আর এবার সেই কর্নাটকের ছায়াই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে পশ্চিমবাংলায় - বলে তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে! জানা

মিথ্যে মামলা দায়েরের অভিযোগে এবার থানা ঘেরাও কর্মসূচি করল বিজেপি, অস্বস্তিতে প্রশাসন

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যে গণতন্ত্র নেই এবং পুলিশ প্রশাসনকে তৃণমূল নিজেদের মতো ব্যবহার করে বিরোধী দলের ওপর অত্যাচার চালাচ্ছে বলে সরব হতে দেখা গেছে রাজ্য বিজেপি নেতাদের। এমনকি এই ব্যাপারে বিভিন্ন সময়ে আন্দোলনেও নেমেছে গেরুয়া শিবির। সম্প্রতি সংসদে বাংলার অগণতান্ত্রিক ব্যবস্থা নিয়ে সরব হয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংসদের বাইরে প্ল্যাকার্ড

Top
error: Content is protected !!