এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা

শাসকদলে সত্যজিৎ বিশ্বাসের স্থানে কে – শুরু তীব্র জল্পনা

নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের পর জেলায় তাঁর বিকল্প মুখ কে হবেন তা নিয়েই চিন্তায় রাতের ঘুম উড়ে যাচ্ছে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের। কারণ সত্যজিৎ বাবুই নদীয়ায় তৃণমূল সংগঠনকে যেমন ধরে রেখেছিলেন সেরকমই মতুয়া ভোটব্যাঙ্কও তাঁর দখলে ছিল। এই প্রেক্ষিতে লোকসভা ভোটের মুখে তৃণমূলের এরকম একজন দক্ষ সংগঠকের মৃত্যুতে জেলা তৃণমূল

আরেক হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের উপর প্রাণঘাতী হামলার প্রচেষ্টা, গ্রেপ্তার ৬ মহিলা

লোকসভা ভোটের মুখে চাঞ্চল্য বাড়িয়ে আরেক প্রভাবশালী তৃণমূল বিধায়কের উপর প্রাণঘাতী হামলার অভিযোগে সরগরম হল রাজ্যরাজনীতি। সাহায্য চাওয়ার সুযোগে ছ'জন মহিলা পাঁচবারের বিধায়ক তথা পুরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের উপর চড়াও হন,এমন অভিযোগের ভিত্তিতেই ওই মহিলাদের আটক করে জেরা শুরু করেছে পুলিশ। প্রত্যেকের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির গৌরীপুর এলাকায় বলেই জানা

বিধায়ক খুনে বড়সড় সাফল্য, মূল পান্ডা পুলিশের জালে, রহস্যের জট খুলবে কি জল্পনা তুঙ্গে

বাগদেবীর পুজোর আরাধনায় যখন গোটা রাজ্য মত্ত হয়ে উঠেছিল, ঠিক তখনই গত 9 ফেব্রুয়ারি বাড়ি থেকে কিছু দূরে নদীয়ার মাজদিয়ার ফুলবাড়ি এলাকায় সেই সরস্বতী পুজোর উদ্বোধনে গিয়েছিলেন নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস। আর তখনই সেই সত্যজিৎ বাবুকে লক্ষ্য করে মঞ্চের সামনে থেকে গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ। আর এই ঘটনায়

জাতীয় পতাকা ও হাজার হাজার মানুষের মোমবাতি মিছিলকে সাক্ষী রেখে পঞ্চভূতে বিলীন হলেন অমর শহীদ সুদীপ বিশ্বাস

গত 14 ই ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠনের হামলায় প্রাণ গিয়েছে ভারতের প্রায় 42 জন জওয়ানের। আর যে 42 জনের মধ্যে বাংলার বাবলু সাতরা ও সুদীপ বিশ্বাসেরও প্রাণ কেড়ে নিয়েছে সেই পাকিস্তানের জঙ্গিরা। কিন্তু ঘরের ছেলের শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে শনিবার গভীর রাতে সেই শহীদ সুদীপ বিশ্বাসের কফিনবন্দি দেহ

মতুয়া ভোটব্যাঙ্ক আগলে রাখতে নিহত সত্যজিৎ বিশ্বাসের গড়ে আগামী দিনের দায়িত্ব কার হাতে দিতে চায় তৃণমূল, জানালেন মহাসচিব

সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের পর নদীয়ায় মতুয়া সংগঠনের মুখ কে হবেন তা নিয়ে চিন্তায় কালঘাম ছুটে যাচ্ছিল শাসকদলের। কারণ লোকসভা ভোটের আর বেশি দিন বাকি নেই। নদীয়ায় তৃণমূলের মতুয়া সংগঠনকে ধরে রেখেছিলেন কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস। সম্প্রতি সরস্বতী পুজোর রাতে তাঁর হত্যাকাণ্ড রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে শাসকদলের। আর এই সুযোগেই নদীয়ায় মতুয়া

মতুয়া ভোটব্যাংকে প্রবলভাবে গেরুয়া প্রভাব বাড়ছে বলেই কি বনগাঁ লোকসভা নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনায় ঘাসফুল শিবির?

উত্তর 24 পরগনার ঠাকুরনগরের মতুয়া ভোটকে নিয়ে বর্তমানে রাজ্যের শাসক দল বনাম বিরোধী দলের মধ্যে তীব্র দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছে। কিছুদিন আগেই সেই মতুয়াতে এসে বড়মা বীণাপাণি দেবীর জন্ম শতবর্ষ উদযাপনে সেখানকার এলাকাবাসীর জন্য একাধিক উন্নয়ন প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এরপরই পাল্টা সেই

সামনে আসছে অনেক অস্বস্তিকর প্রশ্ন, সঙ্গে একাধিক ‘খটকা’! বিধায়ক- হত্যা মামলায় তদন্ত কি ঢিলে পড়তে চলেছে?

বাগদেবীর আরাধনার যখন গোটা রাজ্যবাসী মেতে উঠেছে, ঠিক তখনই গত শনিবার রাতে সরস্বতী পূজার অনুষ্ঠান চলাকালীন সেখানে খুন হতে হয় কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক তথা নদীয়া জেলা তৃণমূলের যুব সভাপতি সত্যজিৎ বিশ্বাসকে। আর যে ঘটনায় সরগরম হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি। জানা যায়, বাড়ি থেকে দু মিনিট দূরত্বে স্থানীয় ক্লাবের সরস্বতী পুজোর

বড়মার সই জাল নিয়ে তীব্র চাপানউতোর শুরু ঠাকুরবাড়িতে, রহস্য সমাধানে সিআইডির “হ্যান্ড রাইটিং এক্সপার্ট”

মতুয়া মহাসঙ্ঘে এখন বড়মা বীণাপাণি দেবীর সই আসল নাকি নকল তা নিয়ে শুরু হয়েছে শাসক বনাম বিরোধীর মধ্যে তীব্র টানাপোড়েন। বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, বড়মা বীণাপাণি দেবী কেন্দ্রের পক্ষ থেকে আনা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে সমর্থন জানানোর জন্য তাঁর সই করা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একটি চিঠি দিয়েছেন। অন্যদিকে বড়মার

ঠাকুরবাড়িতে বিজেপিকে পুলিশি মামলায় ফাঁসাতে গিয়ে বড়সড় নতুন অস্বস্তিতে শাসক দল – জানুন বিস্তারিত

বড়মা বীণাপাণি দেবীর সই আসল নাকি নকল! এবার তা নিয়ে দিনকে দিন উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে উত্তর 24 পরগনার ঠাকুরবাড়ি। অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে এখন রাজ্যের শাসক দল বনাম বিরোধী দলের মধ্যে এই বড়মা বীণাপাণি দেবীকে নিয়ে চলছে তীব্র দড়ি টানাটানি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত সোমবারই ঠাকুরনগরে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করে ঠাকুর পরিবারেরই

মতুয়া রাজনীতিতে নতুন মোড় – সাংসদের অভিযোগের ভিত্তিতে জামিন অযোগ্য ধারায় দুই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে মামলা

রাজ্য রাজনীতির উত্থান- পতনে বরাবরই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এসেছেন মতুয়া মহাসঙ্ঘের সকলের প্রিয় বড়মা বীণাপাণি দেবী। আর এবার সেই বীণাপাণি দেবীর সইকে ঘিরেই সেই মতুয়া পরিবারে শাসক বনাম বিরোধীর তুমুল দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে গেল। উল্লেখ্য, গত সোমবারই ঠাকুরনগর একটি সাংবাদিক বৈঠক করে ঠাকুর পরিবারের অন্যতম সদস্য বিজেপির শান্তনু ঠাকুর বলেন,

Top
Close
error: Content is protected !!