এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা

তদন্তে ‘অন্য কারণ’ উঠে এলেও জয়নগর থেকে আদ্রা সর্বত্রই তৃণমূল কর্মী খুনে ‘গেরুয়া আতঙ্ক’ দেখছেন তৃণমূল মহাসচিব

দু'দিনের মধ্যে দুই জায়গায় চার তৃণমূল কর্মী খুন নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে, একদিকে বিরোধীদের দাবি শাসকদলের গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে এই খুন। অন্যদিকে তৃণমূল দোষী করছে বিজেপিকে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার জয়নগর ও পুরুলিয়ার আদ্রায় তৃণমূল কর্মী খুনের প্রসঙ্গে শুক্রবার তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় নাম না করে সরাসরি

বিনা পয়সায় আর কী কী দিলে ছাত্রছাত্রীরা শুধু উপস্থিতির হারের জন্য আন্দোলন করবে না! তীব্র উষ্মা শিক্ষামন্ত্রীর

লোকসভা ভোটের আগে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কোনোরকম বিক্ষোভ আন্দোলন চায় না শাসকদল। ভোটব্যাঙ্ক বাঁচাতে নিজেদের ভাবমূর্তিকে রাজ্যবাসীর কাছে স্বচ্ছভাবে তুলে ধরতে মরিয়া মা মাটি মানুষের সরকার। তাই কিছুদিন আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিতির হার নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের করা আন্দোলন নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করতে দেখা গেল শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। দাড়িভিট কান্ড, স্কুল সার্ভিস

জয়নগরে তৃণমূল বিধায়কের গুলি কাণ্ডে বিস্ফোরক তথ্য হাতে এলো তদন্তকারী অফিসারদের

জয়নগরে তৃণমূল বিধায়ককে লক্ষ্য করে গুলি চলার ঘটনার পিছনেও উঠে এল শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কথা। পাশাপাশি একই সঙ্গে তাৎপর্যপূর্ণভাবে উঠে এলো আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য। তদন্তে নেমে বারুইপুর জেলা পুলিশ, এসওজি এবং সিআইডি অফিসাররা জানতে পারেন, খুন হওয়া জয় হিন্দ বাহিনীর সভাপতি সরফুদ্দিনের বিরুদ্ধে খুন, তোলাবাজি, শ্লীলতাহানি, জমি দখল সহ একাধিক মামলা রয়েছে।

সিঙ্গুর মডেল নয় – মুখ্যমন্ত্রীর ভরসা আন্তরিক আবেদন, উন্নয়নের প্রশ্নে জমি সমস্যায় বাধা হবেন না কৃষকরা

বিগত বাম সরকারের আমলে সিঙ্গুরে কারখানার নাম করে জোর করে কৃষকদের কাছ থেকে কৃষি জমি কেড়ে নেওয়ার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এরপরই কৃষকদের নিয়ে সেই দীর্ঘ আন্দোলনের জেরে ক্ষমতার পরিবর্তন হয়েছে রাজ্যে। বর্তমানে ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস, মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী হলেও মানুষের কাছ

রাতের অন্ধকারে কলকাতার অদূরে গুলি করে খুন তৃণমূলের সংখ্যালঘু নেতাকে, এলাকায় চাঞ্চল্য

ফের গুলিবিদ্ধ হয়ে খুন হতে হলো তৃণমূল সমর্থক নাজিরুদ্দিন সর্দার ওরফে কালোকে। সূত্রের খবর, ক্যানিংয়ের হাটপুকুরিয়ার তেঁতুলবেড়িয়া এলাকার বাসিন্দা তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী ছিলেন নাজিরুদ্দিন সর্দার । গত রবিবার তিনি কলকাতার মেটিয়াবুরুজ থেকে কাজ সেড়ে বেতবেড়িয়া স্টেশনে নেমে সেখান থেকে মোটরবাইকে করে বাড়ি ফিরছিলেন। জানা গেছে, এদিন তাঁর বাইকের পিছনে বসে ছিলেন

সোমেন জমানায় ঘুরতে শুরু করলো চাকা? বাম জমানার হেভিওয়েট সংখ্যালঘু মন্ত্রী এবার কংগ্রেসে

প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে যখন অধীর চৌধুরী তাঁর দায়িত্ব সামলেছিলেন, তখন একের পর এক দলীয় বিধায়ক থেকে নেতারা কংগ্রেস ছেড়ে যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে। যার জেরে প্রবল ধ্বস নেমেছিল রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের সদর দপ্তর বিধান ভবনে। কিন্তু এবারে প্রদেশ সভাপতি হিসেবে সোমেন মিত্র দায়িত্ব নেওয়ার পরই অবশেষে কি সেই কংগ্রেস ছেড়ে

অবশেষে নজর পড়েছে স্বয়ং শিল্পমন্ত্রীর, শিল্প তালুকের হাল ফেরার আশায় বুক বাঁধছেন অধিবাসীরা

অবশেষে স্থানীয় বিধায়ক তথা শিল্পমন্ত্রী অমিত মিত্রের দৃষ্টি আকর্ষণ করার পর হাল ফিরতে চলেছে ব্যারাকপুর 2 ব্লকের বিলকান্ডা 1 গ্রাম পঞ্চায়েতের বোদাই শিল্পাঞ্চলের। সূত্রের খবর, বেহাল নিকাশি ব্যবস্থা ও খানাখন্দে ভরা রাস্তা নিয়ে এলাকার বাসিন্দা থেকে ব্যবসায়ীরা প্রবল বীতশ্রদ্ধ ছিলেন। আর এরপরই এই সমস্যার সমাধান নিয়ে তারা স্থানীয় বিধায়ক তথা অর্থমন্ত্রী

স্কুলক্রীড়ার নামে আদতে চলছে শাসকদলের ভোটপ্রচার, সঙ্গে চরম অব্যবস্থা – ক্ষোভে ফুঁসছেন শিক্ষকসমাজ ও সুধীজন সমাজ

রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন জেলা জুড়ে চলছে বিভিন্ন স্কুলের বিভিন্ন স্তরের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। আর সেই স্কুলক্রীড়া কার্যত শিক্ষকদের হাত থেকে কেড়ে নিয়ে সেখানে চলছে রাজনৈতিক প্রচার - এই অভিযোগে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন রাজ্যের শিক্ষকমহল ও সুধীজন সমাজ। রীতিমত নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি দিয়ে ও ঘটনার বিবরণ দিয়ে চলছে তুমুল প্রতিবাদ। রাজ্যজুড়ে শিক্ষাঙ্গনে

অতিরিক্ত বেতন পেয়ে থাকলে তা ফেরত দিতে হবে 20 শে ডিসেম্বরের মধ্যে, শিক্ষক মহলে চাঞ্চল্য

যত দিন যাচ্ছে ততই যেন শিক্ষকদের একের পর এক আন্দোলনে টালমাটাল হয়ে উঠছে রাজ্য-রাজনীতি। একে দেখা নেই পিআরটি স্কেলের, তার উপরে বকেয়া ডিএ ও কেন্দ্রীয় হারে বেতন না পেয়ে শিক্ষকদের আন্দোলনের ঝড়ের তীব্রতা ক্রমশ বাড়ছে। এমনকী ক্রীড়াক্ষেত্রে চাঁদা বয়কটের ক্ষেত্রেও তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। আর এবারে নতুন এক সিদ্ধান্তে

বিধাননগরের মন্ত্রী-মেয়রের অনুষ্ঠানে ‘অসম্মানিত’ বোধ করে এলেন না হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা, বাড়ছে জল্পনা

এবার সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্ক মেলা প্রাঙ্গণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত থেকেও এলেন না শাসকদলের হেভিওয়েট নেতা। আর যে ঘটনায় চরম চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল বিধাননগর পৌরসভায়। সূত্রের খবর, এদিন এই বিধাননগরের মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী এবং কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, বিধান নগরের মেয়র সব্যসাচী দত্ত, রাজ্যের

Top
Close
error: Content is protected !!