এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম

বড়সড় দুঃসংবাদ, মাথায় হাত সিভিক ভলেন্টিয়ারদের ! শুরু চরম উৎকণ্ঠা!

বেকার যুবক-যুবতীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ক্ষমতায় আসার পরপরই সিভিক ভলেন্টিয়ার চালু করেছিল রাজ্যের মা-মাটি-মানুষের সরকার। তবে চলতি মাসেই প্রথম প্যানেলের সিভিক ভলান্টিয়ারদের কাজের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে মালদহে। যার ফলে সেই সমস্ত সিভিক ভলান্টিয়ারদের মধ্যে এখন তীব্র চিন্তার ভাঁজ পড়তে শুরু করেছে। জানা যায়, গত 2013 সালের 18 নভেম্বর দুটি প্যানেল মিলে

দিদিকে বলো কর্মসূচিকে ঘিরে ক্রমশ বাড়ছে গোষ্ঠীকোন্দল, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শাসকদলের অস্বস্তি

সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে দলীয় স্তরে কিছু নেতৃত্বের জন্য নানা জায়গায় ভালো ফল করতে পারেনি তৃনমূল। যার মধ্যে মুর্শিদাবাদ জেলাতেও রেকর্ড তৈরি করতে পারেনি তারা। এই জেলার দু’টি লোকসভা কেন্দ্রে রাজ্যের শাসকদল জয়ী হলেও সামান্য কিছুর জন্য বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্র তৃনমূলের হাতছাড়া হয়ে যায়। জানা যায়, এই লোকসভা কেন্দ্রের বহরমপুর এবং

জেলা সভানেত্রী হলেও ডানা কি ছাটা গেল মৌসমের! দলের পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনে অনেক আগেই কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন মৌসম বেনজির নূর। তারপর তাকে প্রার্থী করা হলেও তিনি জয়লাভ করতে পারেননি। তবে মালদার কোনো আসনেই তৃনমূল ভালো ফলাফল না করায় ফলাফল পরবর্তী পর্যালোচনা বৈঠকে সেই মালদহ জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী পদে মৌসম বেনজির নূরকে বসিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর সমস্ত কিছু ঠিকঠাক

কাটমানি ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভের মুখে অনুব্রত মণ্ডল, পুরোটা জানলে চমকে যাবেন

লোকসভা নির্বাচনের পরবর্তী সময়ে দলে দুর্নীতি বাসা বেধেছে তা আঁচ করতে পেরে কেউ যদি কাটমানি নেয়, তার টাকা তাকেই ফেরত দিতে হবে বলে দলের নেতাকর্মীদের হুশিয়ারি দিতে দেখা গিয়েছিল তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যার পরেই দিকে দিকে দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা কর্মীদের বাড়ি ঘেরাও করে টাকা ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে মালদহ জেলার চিত্র?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

টাকা ফেরানো নিয়ে অভিনব ‘যুক্তি’ সামনে আনলেন তৃণমূল সাংসদ, তবুও কি থামছে প্রশ্ন?

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে রাজ্যে বিজেপি ভালো ফল করেছে। আর গেরুয়া শিবিরের উত্থানের পরই, কেন্দ্রের বিজেপি সরকার প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে সিবিআই, ইডিকে ব্যবহার করে ফের তৃণমূল সাংসদদের ডেকে পাঠাচ্ছে বলে অভিযোগ করতে দেখা গেছে রাজ্যের শাসকদলকে। কিছুদিন আগেই সারদাকাণ্ডে তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়কে ডেকে পাঠিয়েছিল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। আর তারপরই সারদার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর

দলের ব্যাটন কার হাতে থাকবে? ফের প্রকাশ্যে কোন্দল হেভিওয়েট নেতা বিধায়কের – অস্বস্তিতে শাসকদল

লোকসভা ভোটে খারাপ ফল হবে অন্যতম কারণ হলো তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব একথা একবাক্যে স্বীকার করেছেন অনেক হেভিওয়েট নেতা নেত্রীও ,আর তাই ফের সরকারে আসতে দলের নেতাদের কড়া বার্তা দিয়ে নেত্রী হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বন্ধ করার। এদিকে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া তৃণমূল ভোট মানেজার প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করে আপাতত তাঁর পরামর্শ মতোই চলছেন দলের

জল্পনা কাটিয়ে অবশেষে ফের প্রকাশ্যে এলেন বীরভূমের বেতাজ বাদশা,বিজেপিকে দিলেন হুঁশিয়ারি

বরাবরই খবরের শিরোনামে থাকতে পছন্দ করেন তিনি‌। কখনও চরম চরম ঢাক, কখনো গুড় বাতাসা, আবার কখনও বা নকুলদানা খাওয়ানোর দাওয়াই দিয়ে নির্বাচনের আগে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে যেতে দেখা গিয়েছিল তাকে। তবে লোকসভা নির্বাচনের পর সেইভাবে আর তাকে দেখতে পাওয়া যায়নি। বীরভূমের দুটি লোকসভা কেন্দ্র তিনি নিজের দখলে রাখতে পারলেও বিধানসভা ভিত্তিক

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে মুর্শিদাবাদ জেলার চিত্র – ২য় পর্ব?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে মুর্শিদাবাদ জেলার চিত্র – ১ম পর্ব?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

Top
error: Content is protected !!