এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম

৩ বছরের পুরনো খুনের মামলায় অভিযুক্ত মুকুল-মনিরুল! রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ

  দীর্ঘদিন তৃণমূল কংগ্রেসের দ্বিতীয় প্রধান ব্যক্তি হিসেবে কাজ করার পরে 2017 সালে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেছেন একদা তৃণমূলের তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড মুকুল রায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, গত 2018 সালের পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে শুরু করে 2019 সালের লোকসভা নির্বাচন পর্যন্ত ভারতীয় জনতা পার্টির যে বৃদ্ধি, তার পেছনে অনেকটাই ভূমিকা পালন

আবার প্রশ্নের মুখে উন্নয়ন! কোটি কোটি টাকা খরচে বানানো কিষাণ মান্ডি এখন ঝোপে ঢাকা সাপের বাসা

রাজ্যের উন্নয়ন খাতে ভবন তৈরি বা অর্থ বরাদ্দ করতে কখনও কার্পণ্য করতে দেখা যায়নি রাজ্য সরকারকে। বস্তুত, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই বলে এসেছেন, শত প্রতিকূলতার মধ্য দিয়েও রাজ্যের উন্নতিকে স্তব্ধ হতে দেয়নি তার সরকার। কিন্তু প্রশাসনিক দেখভালের অভাবে যদি কোনো স্থানে রাজ্য সরকারের কোনো উদ্যোগ পড়ে পড়ে নষ্ট হয়,

স্বয়ং দলনেত্রী মমতার উল্টো সুরে কথা বলছেন প্রিয় ভাই অনুব্রত! তীব্র অস্বস্তিতে তৃণমূল

তৃণমূলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমন একজন ব্যক্তিত্ব, যার কথায় সম্মতি দেওয়া ছাড়া উপায় নেই কারোরই। রাজ্য বা জাতীয় স্তরে যে কোনো ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে মন্তব্য করেন, সেই মন্তব্যই করতে দেখা যায় তৃণমূলের ছোট, বড়, মেজো সমস্ত স্তরের নেতাদের। তবে হায়দ্রাবাদ গণধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্তদের এনকাউন্টারে মৃত্যুর ঘটনায় এবার যেন দ্বিধা বিভক্ত হয়ে

হায়দ্রাবাদের ছায়া মালদার আমবাগানে – তরুনীর অর্ধদগ্ধ দেহ নিয়ে ঝড় তুলে দিল বিজেপি

সম্প্রতি হায়দ্রাবাদের নৃশংস ঘটনা আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল গোটা দেশজুড়ে। দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সরব হয়েছিল প্রত্যেকেই। তবে দেশে যখন এই নৃশংস ঘটনা ঘটেছে, তখন বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে শাসনব্যবস্থার প্রতি অনাস্থা জানিয়ে তীব্র শোরগোল তোলা হয়েছিল। আর সেই তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে থাকা বাংলাতেই এক নৃশংস ঘটনা সামনে আসায়

এনআরসি ইস্যুই গেম চেঞ্জার! এবার বড়সড় পরিকল্পনা নিয়ে আসরে নামতে চলেছে শাসকদল

অসমে এনআরসি তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই বাংলাতেও এনআরসি হবে বলে বিজেপি নেতাদের গলায় উঠে আসে। আর রাজ্য বিজেপির নেতারা এমন মন্তব্য করায় আসামের ছবি মনে করে বাংলার অনেকেই তীব্র আতঙ্কে ভুগতে শুরু করে। কেননা আসামে এনআরসির তালিকা প্রকাশের পর দেখা যায়, সেখানে অনেক নাগরিকের নাম বাদ পড়েছে। তবে এই ঘটনার

মর্মান্তিক! পদ পেতেই ভয়াবহ গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন বিজেপি জেলা সভাপতি!

মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন নবনির্বাচিত বিজেপির শিলিগুড়ি জেলা সভাপতি অভিজিত্‍ চৌধুরী। গতকালই তাঁর নাম আনুষ্ঠানিকভাবে রাজ্য বিজেপির তরফে শিলিগুড়ির নতুন জেলা সভাপতি হিসাবে ঘোষণা করা হয়। এরপর কলকাতায় কাজ মিটিয়ে তিনি অন্যান্য সঙ্গীদের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। কিন্তু, বহরমপুরের ভাকুড়ি এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে উল্টোদিক থেকে আসা এক ট্রাকের সঙ্গে

হেভিওয়েট দলীয় বিধায়কের বিরুদ্ধে কাটমানি নিয়ে সরব তৃণমূলেরই একাংশ! তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

লোকসভা নির্বাচনের আগে দলীয় দুর্নীতি ক্রমশ বাসা বাঁধার কারণে লোকসভায় যে তৃণমূলকে খারাপ ফলের সম্মুখীন হতে হয়েছে, তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। কিন্তু নিচুতলার কর্মী-সমর্থকদের দুর্নীতির কারণে তৃণমূলের এই খারাপ ফলাফল হয়েছে বলে একাংশ মনে করেন। তবে এবার হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তৃণমূলের অনেক সদস্য একদিকে যেমন

দিলীপ ঘোষকে উড়িয়ে দেওয়া গেলে ছাড় নেই অধীর চৌধুরীরও! কোমর বাঁধছেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা

খড়গপুর জয় করে যেন নতুন উদ্যম পেয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। উদ্যমের পরিমাণ এমন যে এবার অধীর চৌধুরীর গড় বলে পরিচিত মুর্শিদাবাদ জেলাতেও পৌরসভা ভোটে রীতিমতো ভালো পারফর্ম্যান্স করার আশা দেখছে তৃণমূল কংগ্রেস। স্বাভাবিকভাবেই মুর্শিদাবাদ জেলা অধীর চৌধুরীর খাসতালুক হিসেবে পরিচিত। যদিও এবারের লোকসভা নির্বাচনে সেই জেলার এক বহরমপুর

পুরভোটে ঘাসফুলের বিজয় কেতন ওড়াতে এখন থেকেই বড়সড় পরিকল্পনা নিয়ে বসলেন হেভিওয়েট নেত্রী

পশ্চিমবঙ্গে সদ্য সমাপ্ত উপনির্বাচনে ভালো ফল করেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। আর এই উপনির্বাচন শেষ হতে না হতেই দরজায় এসে কড়া নাড়ছে পৌরসভা নির্বাচন।এদিন সেই পৌরসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি ঘিরে ব্যস্ততা লক্ষ্য করা গেল মালদহ জেলায়। যেখানে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি মৌসম বেনজির নূর রীতিমতো পৌরসভার নির্বাচন নিয়ে বৈঠক করতে

মন্ডল সভাপতি নির্বাচনের নামে চলছে স্বজনপোষণ! ক্ষোভে ফেটে পড়ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহল

বীরভূম তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিত। অনুব্রত মণ্ডলের দাপটে এখানে বিরোধীরা কার্যত নিশ্বাস ফেলতে পারেন না। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিভিন্ন জেলায় বিজেপি দাগ কাটলেও বীরভূমে তারা একটি আসনও দখল করতে পারেনি। তবে কিছু বুথে বিজেপির জয় লক্ষ্য করা গেছে। যা নিঃসন্দেহে অনুব্রত মণ্ডলের মত দক্ষ সংগঠকের কাছে অত্যন্ত চিন্তার কারণ।

Top
error: Content is protected !!