এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > হাওড়া-হুগলি (Page 2)

পঞ্চায়েত স্তরে বন্ধ কাজ! কাটমানি না পাওয়া নাকি নিম্নমানের সামগ্রী? শুরু তীব্র বিতর্ক

শাসকদল তৃণমূল রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর "উন্নয়ন হয়েছে" একথা সকলে মেনে নিলেও অনেককেই সেই উন্নয়নের ব্যাপারে ঢোক গিলতে হয়েছে। কেননা অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে যে, সেই উন্নয়ন প্রকল্পে হয় উপরতলার নেতাদের কাছে কাটমানি গেছে, না হলে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করে সেই কাজে ফাঁকি দেওয়া হয়েছে। তবে লোকসভা নির্বাচনের পর

নেতার অভাবে দলীয় কর্মসূচীই করতে পারছে না তৃণমূল, ঘুরে দাঁড়ানো নিয়ে সংশয়ে কর্মীরাই

তৃণমূলের এখনও যে সাংগঠনিক দুর্বলতা কাটেনি, তা ফের একবার প্রমাণ হয়ে গেল। জানা গেছে, প্রায় দুমাস ধরে পুরশুড়ায় ব্লক তৃণমূলের সভাপতি পদ শূন্য রয়েছে। আর এই দলীয় সভাপতি না হওয়ায় কোনো কর্মসূচি পালন করা যাচ্ছে না। যার জন্য এখন সকলেই তাকিয়ে রয়েছেন - কে এই ব্লক সভাপতির দায়িত্ব পাচ্ছেন! বস্তুত,

এনআরসি নিয়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে তৃণমূল ফের দাবি বিজেপি সংসদের

আসামে এনআরসির শুরু থেকেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে এসেছেন বিজেপি নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। আসামে নাগরিক পঞ্জিকার তালিকা বেরোলে দেখা যায়, সেখানে 19 লক্ষ মানুষ হয়েছেন গৃহহারা। যার মধ্যে 11 লক্ষ হিন্দু আছেন। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে এনআরসি প্রয়োগ করার প্রতিবাদে তৃণমূল নেতৃত্ব রাজপথে নেমে প্রতিবাদ শুরু করে। এন আর

সাঁতরাগাছি থেকে মেচেদা – চরকিপাক খেয়েও রাজীব কুমারের টিকিও ছুঁতে পারলোনা সিবিআই

একি ভোজবাজি! নাকি আলাদিনের আশ্চর্য প্রদীপের জিন এর কারসাজি ? কোথায় গেলেন বর্তমান গোয়েন্দাপ্রধান রাজীব কুমার ? রাজ্যের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ছুটে বেরিয়েও কিছুতেই নাগালে পাচ্ছেনা সিবিআই তাঁকে। কোন মন্ত্র বলে তিনি পুরোপুরি ভ্যানিশ হয়ে গেছেন। সিবিআই কোমর বেঁধে নেমেও তাঁর কোন হদিস পাচ্ছে না। সারদা মামলার তথ্য

রাজীব কুমারের চাপ বহুগুণ বাড়িয়ে দিল আদালত! আত্মসমর্পণ ছাড়া পথ নেই?

রাজীব কুমারের হদিস এখনো পর্যন্ত মেলেনি। পুরো ভোজবাজির মতোনই তিনি উধাও হয়ে গেছেন শহরের বুক থেকে। সারদা মামলায় তথ্য বিকৃতির অভিযোগে সিবিআই এর তরফ থেকে রাজীব কুমারকে জেরা করার জন্য সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দিতে বলা হয়। এই হাজিরা এড়াতেই রাজীব কুমার সিবিআই এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যান। হাইকোর্ট থেকে রাজীব কুমারকে

ফের বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগদান, বড়সড় অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

2019 এর লোকসভা ভোটের পরে বিভিন্ন দল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার যে প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছিল, ইদানিং তাতে বেশ ভাটা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। লোকসভা ভোটে তুলনামূলকভাবে ভালো ফল করার পর শাসকদল থেকে বহু নেতাকর্মী বিজেপিতে যোগ দেয়। বিজেপি সফল হয় তৃণমূল গড়ে ভাঙন ধরাতে। এই ঘটনায় তৃণমূল দল যথেষ্ট অস্বস্তিতে

থমকে উন্নয়ন! সময়ে কাজ না করায় 12 কোটি টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হল তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভা

তিনি কর্মে বিশ্বাসী বলে মাঝেমধ্যেই দলীয় জনপ্রতিনিধিদের আরও বেশি বেশি করে কাজ করার নির্দেশ দেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তার কথা দলের জনপ্রতিনিধিরা যে এক কান দিয়ে ঢুকিয়ে আরেক কান দিয়ে বের করে দেন, তা প্রায়শই প্রমাণিত হতে দেখা যায়। আর আরও একবার তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভার ক্ষেত্রে

বিজেপিকে ধাক্কা দিয়ে হুগলিতে ফিরহাদ হাকিমের হাত ধরে ‘ঘর ওয়াপসি’! তীব্র কটাক্ষ গেরুয়া শিবিরকে

লোকসভা নির্বাচনে বাংলার 42 টি লোকসভা আসনের মধ্যে বিজেপি 18 টি এবং তৃণমূল 22 টি আসন দখল করে। আর সেদিক থেকে বিজেপি সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় ব্যাপক সাফল্য পেলেও তৃণমূল 34 থেকে 22 এ নেমে আসার পরই বিভিন্ন পৌরসভার রং সবুজ থেকে গেরুয়া হয়ে যায়। তৃণমূল পরিচালিত অনেক পৌরসভার সিংহভাগ

তৃণমূলের প্রতিবাদ মিছিলে পা মেলাচ্ছেন বিজেপি নেতারা! তীব্র চাঞ্চল্য রাজ্য-রাজনীতিতে

আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও তিনি দলে যোগদান করেননি। কিন্তু সোমবার সন্ধ্যায় খানাকুলে শাসক দলের প্রতিবাদ মিছিলে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিতে দেখা গেল তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া বেশ কয়েকজন নেতাকে। যা নিয়ে খানাকুলে এখন তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, যে সমস্ত নেতারা এদিন মিছিলে হেঁটেছেন, তারা তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন। আর তাঁদের দলে ফেরানোর

রাজীব-সন্ধানে রাজ্যের সাহায্য না পেয়ে, এবার অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে তেড়েফুঁড়ে নামছে সিবিআই,জেনে নিন বিস্তারিত

আর্থিক দুর্নীতি কাণ্ডে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে নিজেদের বাগে আনার জন্য অনেকদিন ধরে চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। কিন্তু কখনও সেই সিবিআই জেরা করতে গেলে রাজ্যের প্রশাসনের সর্বময় কত্রী বন্দোপাধ্যায়ের বাধার মুখে পড়া, আবার কখনও বা তদন্তে রাজ্য সরকার অসহযোগিতা করছে বলে অভিযোগ করতে দেখা গেছে কেন্দ্রীয়

Top
error: Content is protected !!