এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান

মুখ্যমন্ত্রীর কড়া নির্দেশ, তবুও ‘দিল্লিতে টাকা পাঠানো’ কয়লা মাফিয়াকে কব্জায় আনতে পারল না পুলিশ

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কড়া নির্দেশ সত্ত্বেও, 'দিল্লিতে টাকা পাঠানো' কয়লা মাফিয়াকে এখনো বাগে আনতে পারল না রাজ্যপুলিশ।অভিযোগ, রাজ্যের বাইরে থেকেই রমরমিয়ে ব্যবসা করে চলেছে সে। বছর দেড়েক আগে গা ঢাকা দেয় ঐ কয়লা মাফিয়া। দুর্গাপুরে প্রশাসনিক বৈঠক করার সময় মুখ্যমন্ত্রী, ঐ কয়লা মাফিয়াকে গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেন। সূত্রের খবর, তৎকালীন পুলিশ

সিঙ্গুর মডেল নয় – মুখ্যমন্ত্রীর ভরসা আন্তরিক আবেদন, উন্নয়নের প্রশ্নে জমি সমস্যায় বাধা হবেন না কৃষকরা

বিগত বাম সরকারের আমলে সিঙ্গুরে কারখানার নাম করে জোর করে কৃষকদের কাছ থেকে কৃষি জমি কেড়ে নেওয়ার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন তৎকালীন বিরোধী নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এরপরই কৃষকদের নিয়ে সেই দীর্ঘ আন্দোলনের জেরে ক্ষমতার পরিবর্তন হয়েছে রাজ্যে। বর্তমানে ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস, মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী হলেও মানুষের কাছ

হেভিওয়েট বিধায়ক তথা চেয়ারম্যানের সঙ্গে সংঘাতের জেরে সরেই যেতে হল এডিএমকে? চাঞ্চল্য বিডিএ-তে

রাজ্যের হেভিওয়েট বিধায়ক তথা বিডিএ-র চেয়ারম্যান রাবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সংঘাতের জেরে, বিডিএ-র চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার পদ থেকে অতিরিক্ত জেলাশাসক প্রবীর চট্টোপাধ্যায়কে সরে যেতে হলো বলে তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে পূর্ব-বর্ধমানের রাজনৈতিক মহলে। যদিও ব্যাপারটি পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন রাবিরঞ্জনবাবু নিজে - এমনকি এই নিয়ে কোনো মন্তব্যই করেননি প্রবীরবাবুও। তবে সূত্রের খবর, গত ৬

শাসকদলের দিকে আঙুল উঠলেও, বিজেপি নেতা খুনে মূল অভিযুক্তকে নিয়ে সব দায় ঝেড়ে ফেলল তৃণমূল কংগ্রেস

বিজেপি নেতা খুনে তিনি অভিযুক্ত। কিন্তু বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ছাতার তলায় আসা অভিযুক্ত সইফুলের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না কেউই - বলে অভিমত স্থানীয় অধিবাসীদের। আর তাইতো এলাকার বিজেপি কর্মী সন্দীপ ঘোষের মৃত্যুতেও মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন অনেকে। বিশেস সূত্রে জানা যায়, বিজেপি কর্মী মৃত সন্দীপ ঘোষের বাবা বিজয়

এবার খোদ হেভিওয়েট মন্ত্রীর পাড়াতেই বিদ্যুৎচুরির বিস্ফোরক অভিযোগ, হইচই রাজ্য রাজনীতিতে

রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরই বিদ্যুৎ হুকিং বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেইমতো রাজ্যের বিদ্যুৎ দফতরকে কড়া নির্দেশিকাও দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এক্ষেত্রে যেন এবার সর্ষের মধ্যেই ভূত লুকিয়ে থাকার মতো ঘটনা ঘটল এরাজ্যে। সূত্রের খবর, এবার পূর্বস্থলী 1 ব্লকের বিদ্যানগর গ্রামে খোদ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথের পাড়ায় হুকিং করে দোকানদারদের

পুলিশ ‘মেরে’ একের পর এক বিজেপি কর্মী গ্রেপ্তার, কে আসল নেতা তাই নিয়ে শাসকের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব – জমজমাট বর্ধমান

কাটোয়ায় পুলিশকে মারধোরের অভিযোগে আরো চারজন বিজেপি নেতা-কর্মী গ্রেফতার হলেন এদিন। এর আগে এই ঘটনায় আরো দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল বলেই জানা গিয়েছে রাজ্যপুলিশ সূত্রে। এদিনের ধৃত চারজন হলেন কাটোয়ার মাধবীতলার অনুপ বোস, একাইহাটের পূর্ণেন্দু বসু, মণ্ডলহাটের প্রমথ বাগচি, মনোজ ভট্টাচার্য, চর একাইহাটের তাপস মণ্ডল এবং কেতুগ্রামের রাজেন্দ্র মণ্ডল। গতকাল ধৃতদের

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার সমীক্ষা অনুযায়ী, একনজরে এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে রাজ্যের ৪২ টি লোকসভা আসনের চিত্র

গত ১৪ দিন ধরে রাজ্যের ৪২ টি লোকসভা ও ২৯৪ টি বিধানসভা আসনে আমরা যে সমীক্ষা চালিয়েছিলাম তার বিস্তারিত ফলাফল আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি। লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসবে, আমরা তত এই ধরনের সমীক্ষা বেশি করে করব। এর আগে গত মার্চ মাসে ও গত জুলাই মাসে আমরা দুটি সমীক্ষা করি

শাসকদলে শুরু ‘শুদ্ধিকরণ’ – শিল্পশহরে বিদ্রোহী নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের পথে ঘাসফুল শিবির

লোকসভা ভোটকে টার্গেট করে দুর্গাপুরের দলীয় সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে মরিয়া শাসকদল। এবার দলের বিক্ষুব্ধ নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার দিকে পা বাড়িয়েছে ঘাসফুল শিবির। তৃণমূল সূত্রের খবর, দিনকয়েক আগে পুরভবনের নীচে একটি হল ঘরে দলের জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন দাসুর প্রশাসনিক বৈঠক চলাকালীন বাবুরাম দাসের নেতৃত্ব কয়েকজন ঢুকে

বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের সঙ্গে জেলা সভাপতির বৈঠক – তাও মিলল না সমাধানসূত্র, দুর্গাপুর নিয়ে চিন্তা বাড়ছে শাসকদলে

এখনো উত্তাল দুর্গাপুর পুরসভা! বৈঠক করেও ক্ষোভ কমানো গেল না বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের। সমাধানসূত্র বার করতে এদিন পুরসভার বিদ্রোহী কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন তৃণমূল জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন দাসু। সুরাহা মিলল না কিছুতেই। নিজেদের সিদ্ধান্তে এখনো অটল বিদ্রোহী কাউন্সিলররা। তাঁদের এই ভূমিকাকে কিছুতেই ভালোভাবে মেনে নিচ্ছে না দলীয় নেতৃত্ব, এমনটাই জানা

আবার বড় জয় শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চের, শিক্ষকদের ‘চাঁদার নির্দেশিকা’ নিয়ে পদক্ষেপ ঘোষণা হতেই তড়িঘড়ি প্রত্যাহার!

রাজ্যজুড়ে শিক্ষকদের আন্দোলনের ক্রমশ অন্যতম প্রধান মুখ হয়ে উঠছে শিক্ষক ঐক্য মুক্ত মঞ্চ। রাজ্যজুড়ে যেভাবে একের পর এক পরিশীলিত অথচ তীব্র আন্দোলন কর্মসূচি নিচ্ছেন এই সংগঠনের শীর্ষনেতারা - তাতে প্রাথমিক প্রশাসনিক চাপ বা স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের ধমক চমক থাকলেও - শেষ পর্যন্ত জয় হচ্ছে শিক্ষকদের ন্যায়সঙ্গত দাবিরই। রাজ্যের শিক্ষকদের 'বেআইনি' ডিও-বিএলও

Top
Close
error: Content is protected !!