এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান

বিজেপি-গড়ে ঘাসফুলের দাপট ফেরাতে বিধানসভা ধরে ধরে বড়সড় পদক্ষেপ শুরু শাসকদলের

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মিনি মহাকরন নিয়ে ছুটে গিয়েছেন রাজ্যের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত। প্রশাসনিক বৈঠকের মাধ্যমে এলাকাভিত্তিক সমস্যাগুলো খতিয়ে দেখেছেন। রিভিউ মিটিং করে রাজ্যে চলতে থাকা উন্নয়নমূলক কাজের স্থিতি সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। আর এবার সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠকের কায়দাতেই বিধানসভা ভিত্তিক রিভিউ মিটিংয়ের মাধ্যমে জেলায়

তৃণমূল জিতলেও ভোট বাড়ছে বিজেপির, ফের নয়া ফরমান জারি পিকের

2019 এর লোকসভা নির্বাচনের পর রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কোনমতে নিজেদের ঘর বাঁচায়। পরিস্থিতি বিচার করে এবং আগামী দিনের ভবিষ্যতের কথা ভেবে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোট গুরু প্রশান্ত কিশোরের শরণাপন্ন হন। গত ছয় মাসের পর সম্প্রতি উপনির্বাচন হয় রাজ্যের তিনটি জেলায়-যথাক্রমে খড়গপুর, করিমপুর ও কালিয়াগঞ্জে। ফুল মার্কস নিয়ে প্রথম

এবার কি তৃণমূলের বড় ভরসা হয়ে উঠছেন মমতার নিজের ভাই? প্রকাশ্য মঞ্চের বার্তায় বাড়ছে জল্পনা

একসময় কংগ্রেসে পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুলে তৃণমূল কংগ্রেস গঠন করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে কালের নিয়মে তাঁর দল তৃণমূল কংগ্রেসেও এখন পরিবারতন্ত্র বাসা বাঁধছে বলে দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধী গোষ্ঠীরা। বর্তমানে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি তথা দলের অলিখিত সেকেন্ড-ইন-কমান্ড মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর সেইভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

উপনির্বাচনে মুখ থুবরে পড়েছে বাম-কং জোট! অস্তিত্ব প্রমাণের শেষ সুযোগ মিলছে আজই?

2016 সালে বাম কংগ্রেস জোট করে ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখেছিল। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন পূরণ হয়নি। পরবর্তীতে 2019 সালের লোকসভা নির্বাচনে তারা জোটের চিন্তাভাবনা করলেও দুই দলের মধ্যে ঐক্যের অভাব দেখা গেছে। তবে রাজ্যের সদ্যসমাপ্ত 3 কেন্দ্রের বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে নিজেদের মধ্যে জোট করে নিয়েছিল বাম এবং কংগ্রেস। যার পরিপ্রেক্ষিতে

বিজেপির বিরোধিতা পোক্ত করতে বাম-কং জোট তৃণমূলের হাত ধরতে মরিয়া? সহযোগিতার আশ্বাস শাসকদলের?

বিগত লোকসভা ভোটে রাজ্যে বিজেপি 18 টি আসন দখল করেছিল। তবে এই 18 টি আসন দখল করার পেছনে বামেদের ভোট বিজেপির দিকে যাওয়ার জন্যই তারা এই সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি করেছিল রাজনৈতিক মহল। আর বামের ভোট রামে চলে যাওয়ার কারণেই তৃণমূলের এই বিপর্যয় বলে মনে করেছিল একাংশ। কিন্তু লোকসভা ভোটের

আসানসোলের শক্ত ঘাঁটিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে জেরবার বিজেপি! বন্ধই হয়ে গেল সাংগঠনিক নির্বাচন

  2019 সালে রাজ্যের 18 টি লোকসভা আসনে জয়যুক্ত হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু 2014 সালের নির্বাচনে এই রাজ্যে মাত্র 2 টি লোকসভা কেন্দ্রে জয়যুক্ত হয়েছিল বিজেপি। তার মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য ছিল, আসানসোল। যেখান থেকে প্রায় সকলকে চমকে দিয়ে জিতেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। এবারেও লোকসভা নির্বাচনে সেই আসন থেকে ব্যাপক মার্জিনে জয়যুক্ত হন।

শাসকদলের জবরদস্তি ঘর দখলের অভিযোগ,সমালোচনায় মুখর রাজনৈতিক মহল

রাজ্যের শাসকদলের দুর্ব্যবহারের নজির উঠে এলো দুর্গাপুরের কোকাআভেন থানা এলাকায়। শাসক দলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, জোরজবরদস্তি করে তাঁরা ঘর দখল করে রেখেছে। কোনমতেই ঘর ছাড়বে না বলে তাঁরা জানিয়ে দিয়েছে। এই ঘটনায় বিরোধী শিবির থেকে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। অন্যদিকে শাসকমহল থেকে ঘটনা সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে তবেই সত্যতা প্রকাশ করা হবে

ট্যাগড

ফের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান – শাসকদলের দাবি ঘিরে বিস্ফোরক অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের

2019 এর লোকসভা নির্বাচনের পরে বিজেপি দলে যোগ দেওয়ার প্রবণতা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছিল। অন্যান্য দল ও তৃণমূল থেকে বহুল পরিমাণে সদস্যরা এসে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন। ফলে রাজ্যের বহু পুরসভা, পঞ্চায়েতের রং বদল হয়ে যায়। কিন্তু বর্তমানে বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপি থেকে শাসক দলে ফিরতে শুরু করেছে দলবদলকারীরা। এর ফলে পদ্ম

আসানসোলে রমরমিয়ে অবৈধ কয়লা খনন! দুর্নীতি ধরতে আসরে কেন্দ্রীয় সংস্থা?

  বাংলার বিভিন্ন জায়গায় অবৈধ কয়লাখনির অভিযোগ নতুন কিছু নয়। তবে মাঝে সেই অভিযোগের বহর কিছুটা হলেও কমেছিল। কিন্তু এবার ফের এই অবৈধ ব্যবসার অভিযোগ উঠতে শুরু করল। সূত্রের খবর, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সংস্থা "ভারত কুকিং কোল লিমিটেড" কুলটি এলাকায় কয়লা চুরি নিয়ে পুলিশ কমিশনারকে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে। যে ঘটনায় এখন প্রবল

বিভিন্ন ইস্যুতে এবার সরকারবিরোধী সমালোচনা করলেন সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যপাল

রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীর দ্বন্দ্ব বেশ কিছুদিন ধরেই রাজনীতির ময়দানে মুখ্য চর্চিত বিষয় হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের মধ্যে মতভেদ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বেশ কিছুদিন আগে যাদবপুরের ঘটনা নিয়ে প্রথম মতভেদ প্রকাশ্যে আসে। এরপর একের পর এক ঘটনায় রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীর দ্বন্দ্ব ক্রমশ প্রকাশ্য হয়েছে। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে কালী

Top
error: Content is protected !!