এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য

যে কোনও মুহুর্তে কালীঘাটেও সিবিআই হানা! জল্পনা ক্রমশ বাড়াচ্ছেন গেরুয়া নেতারা!

দেশের বিভিন্ন এলাকায় যখন বিরোধী নেতাদের উপরে থাকা আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলো, তখন স্বাভাবিক কারণেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীদের কেন্দ্রে শাসকদল ভারতীয় জনতা পার্টির উপরে ক্ষোভ উগরে দেওয়া অত্যন্ত স্বাভাবিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র সরকারের শাশ্বত বিরোধিতায় যেভাবে পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী

পায়ের তলায় হারিয়ে যাওয়া মাটি ফেরাতে দলীয় কর্মীদের বড়সড় নির্দেশ সুব্রত বক্সীর

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে বাংলায় অনেকটাই বেগ পেতে হয়েছে। 2014 তারা 34 টা আসন পেলেও 2019-এ এসে তৃণমূলের আসন সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে 22 টিতে। অপরদিকে বিজেপি বাংলা থেকে 18 টা আসন নিজেদের দখলে রেখেছে। যার পরে আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে এবং আরও একবার রাজ্যের ক্ষমতা দখল

বিজেপিতে যোগ দিতেই প্রশাসনিকভাবে যে অবস্থা হল হেভিওয়েট তৃণমূল নেত্রীর, জানলে চমকে যাবেন

লোকসভা নির্বাচনে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল পরাজিত হওয়ার পরই জেলা সভাপতি পদ থেকে বিপ্লব মিত্রকে সরিয়ে দেওয়া হলে তিনি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের সভাধিপতি সহ 10 জন সদস্যকে নিয়ে বিজেপিতে নাম লেখান। আর এরপরই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ তৃণমূল থেকে বিজেপির দখলে চলে আসে। তারপর আত্রেয়ী দিয়ে অনেক জল গড়িয়ে

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে পূর্ব-বর্ধমান জেলার চিত্র?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

তৃণমূলের সংগঠনের দাদাগিরিতে অবৈধ জবরদখল হঠাতে পারল না পুলিশ – সরগরম উত্তরের রাজনীতি

দীর্ঘদিন ধরেই মাথাভাঙ্গা পৌরসভা পরিচালিত শিশুউদ্যান ও মহকুমাশাসকের বাংলোর প্রবেশের রাস্তায় অস্থায়ীভাবে একটি অটোস্ট্যান্ড গড়ে উঠেছিল। আর পুলিশের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার সেই অটোস্ট্যান্ডটি সরাতে গেলেই তীব্র বিপত্তি বাধে। জানা যায়, পুলিশ এই অটোস্ট্যান্ডটি সরানোর জন্য উদগ্রীব হলেও সেখানে তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাতে বাধা দেয় এবং প্রবল আপত্তি জানান। পুলিশের পক্ষ

উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের জন্য বিজেপি সাংসদ আসরে নামতেই, রাজনীতির অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ থেকে একটি আসনও তৃনমূল নিজেদের দখলে রাখতে পারেনি। সেখানকার আটটির মধ্যে সাতটি আসনই দখল করেছে বিজেপি। যার পরেই সেই উত্তরবঙ্গের যে সমস্ত জায়গায় বিজেপি সাংসদরা জয়লাভ করেছে, সেই সমস্ত জায়গার উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষের কাছে আরও বেশি করে পৌঁছতে উদ্যোগী হয়েছে বিজেপি সাংসদরা। সূত্রের খবর, আলিপুরদুয়ার লোকসভা

কর্মসূচি ঘোষণা করেও আভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বে রাস্তায় নামা যাচ্ছে না! চূড়ান্ত অস্বস্তিতে বিজেপি

লোকসভা নির্বাচনে সাফল্য পাওয়ার পর বিভিন্ন জায়গায় আরও বেশি করে ময়দানে নামতে শুরু করেছে বিজেপি। কিন্তু রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি কর্মসূচি করলেও ইসলামপুর মহকুমায় জনজাগরণ কর্মসূচি নিয়ে এখনও পর্যন্ত মাঠে নামতে পারেনি তারা। ইতিমধ্যেই একবার তারা কর্মসূচি ঘোষণা করলেও দিনক্ষণ পিছোতে হয়েছে। আর জনজাগরণ নামের ওই কর্মসূচি প্রকৃত পক্ষে বিরোধীদের কাউন্টার

বিধানসভার ওপিনিয়ন – এই মুহূর্তে ভোট হলে কি হতে পারে ঝাড়গ্রাম ও পুরুলিয়া জেলার চিত্র?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর - আরও জমজমাট বঙ্গভূমির রাজনৈতিক লড়াই। একদিকে, লোকসভায় ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নিয়ে গেরুয়া শিবির তাল ঠুকছে, এবার তাদের লক্ষ্য নবান্নের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া। অন্যদিকে, স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরেছেন দলের সাংগঠনিক হাল, সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মস্তিস্ক। এই পরিস্থিতিতে নিঃসন্দেহে

সংগঠনে বদল আনতেই ভেঙে তছনছ সব কমিটি! বিদ্রোহীদের মান ভাঙাতে আসরে হেভিওয়েট মন্ত্রী

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় তৃণমূল পর্যুদস্ত হওয়ার পর বিভিন্ন জেলার সংগঠনের পরিবর্তন আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে জেলা সভাপতি পদে তৃণমূল নেত্রী বদল আনলে বিভিন্ন জেলার সংগঠনে নতুন মুখদের দেখতে পাওয়া যায়। যার ফলে দলের অন্দরে তৈরি হয় বিভ্রান্তি। সম্প্রতি জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন কিষাণ কুমার কল্যাণী। আর

বড়সড় দুঃসংবাদ, মাথায় হাত সিভিক ভলেন্টিয়ারদের ! শুরু চরম উৎকণ্ঠা!

বেকার যুবক-যুবতীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ক্ষমতায় আসার পরপরই সিভিক ভলেন্টিয়ার চালু করেছিল রাজ্যের মা-মাটি-মানুষের সরকার। তবে চলতি মাসেই প্রথম প্যানেলের সিভিক ভলান্টিয়ারদের কাজের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে মালদহে। যার ফলে সেই সমস্ত সিভিক ভলান্টিয়ারদের মধ্যে এখন তীব্র চিন্তার ভাঁজ পড়তে শুরু করেছে। জানা যায়, গত 2013 সালের 18 নভেম্বর দুটি প্যানেল মিলে

Top
error: Content is protected !!