এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য

দিলীপকে কড়া জবাব পার্থর, জোর শোরগোল !

এতদিন রাজ্যে তৃণমূল বনাম বিজেপির লড়াই ছিল। কিন্তু এবার নন্দীগ্রামে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সফরের পর সেই লড়াই যেন দিলীপ ঘোষ বনাম শুভেন্দু অধিকারীর লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে। বস্তুত, সদ্যসমাপ্ত রাজ্যের 3 বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বিজেপির দখলে থাকা খড়গপুর পুনরুদ্ধারে তৃণমূলের তরফে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। আর

 নন্দীগ্রামে শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ দিলীপের, পাল্টা তৃণমূল! জোর শোরগোল

  তৃণমূল শুভেন্দু অধিকারীকে দিলীপ ঘোষের কেন্দ্র বলে পরিচিত খড়গপুর পুনরুদ্ধারে দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকেই দিলীপ ঘোষ বনাম শুভেন্দু অধিকারীর লড়াই চরম আকার ধারণ করে। আর খড়্গপুরের দায়িত্ব নেওয়ার পরই দিলীপ ঘোষকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কিছুদিন আগেই অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া বিধানসভা উপনির্বাচনে সেই খড়গপুর তৃণমূলের দখলে আনতে সক্ষম হন শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু

তৃনমূলের প্রার্থী তালিকায় নয়া চমক, আসছে একাধিক নতুন মুখ!

লোকসভা নির্বাচনে অনেক আসনেই তৃণমূলের পরাজয় ঘটেছে। আর এর পরেই দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি নিয়ে আসতে রণনীতিকার করা হয় প্রশান্ত কিশোরকে। আর প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের দায়িত্ব নেওয়ার পরই অনুভব করতে পারেন যে, তৃণমূলের অনেক নীচুতলার জনপ্রতিনিধিদের স্বচ্ছ ভাবমূর্তির অভাবের জন্যই দলের এই ধরনের ফলাফল হয়েছে। যারপরেই বিভিন্ন জায়গায় জনসংযোগ কর্মসূচির মধ্য

ট্যাগড

দিলীপের নেতৃত্বে নতুন রাজ্য কমিটি, কে কে ঠাই পেতে পারেন নতুন কমিটিতে!

দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তবে প্রথম ইনিংস শেষ করার পর দ্বিতীয় ইনিংস যে তার কাছে যে অত্যন্ত কঠিন, তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। কেননা সামনেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। যে নির্বাচনে রাজ্যের ক্ষমতা দখল করাই প্রধান টার্গেট ভারতীয় জনতা পার্টির কাছে। তাই সেদিক থেকে এই

ট্যাগড

এবার কি দিলীপের হাত ধরে রাজ্য বিজেপিতে বড় পদ পাবেন মুকুল? জোর গুঞ্জন!

  তৃণমূল ছেড়ে যখন তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, তখন বিজেপির সদর দপ্তরে প্রথম সাংবাদিক বৈঠকে দাবি করেছিলেন, বাংলায় তার ক্যাপ্টেন দিলীপ ঘোষ। কিন্তু দিলীপ ঘোষের ক্যাপটেনশিপ লড়েও, তৃণমূলের এককালের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড তথা যাকে বঙ্গ রাজনীতিতে চাণক্য বলা হয়, তাঁকে তেমনভাবে কোনো পদ দেয়নি ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু তা সত্ত্বেও, দাঁতে দাঁত চেপে

হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার বিজেপিতে যোগদান, জোর অস্বস্তিতে শাসকদল!

গত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সাতটি আসনেই জয়লাভ করেছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। আর বিজেপি উত্তরবঙ্গে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারের পর তৃণমূলের অনেক হেভিওয়েট নেতা ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দিতে শুরু করেন। তবে যত দিন যায়, ততই অবস্থার অবনতি শুরু হয়। যে ক্ষেত্রে বিজেপিতে তৃণমূলের অনেকে যোগ দিলেও, তারা

এবার থেকে সিভিক ভলান্টিয়ারদের জন্য বাড়লো অস্বস্তি, নয়া পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার

সামনের পুর নির্বাচন ও বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে কলকাতা পুরসভা অভিনব উদ্যোগ নিল এবার। এতদিন যারা অন্যের উপর নজর রাখতেন, পাশাপাশি বিভিন্ন রকম কাজ করতেন, এবার তাঁদের ওপর নজর রাখার প্রয়োজন পড়েছে। আর এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে গেছে পুর দপ্তর থেকে। এবার থেকে সিভিক ভলান্টিয়ারদের ওপর নজর

রাজ্য বিজেপির সংগঠনে এবার বড়সড় রদবদলের সম্ভাবনা ঘিরে জোর জল্পনা

লোকসভা ভোটের পর থেকে এ রাজ্যে বিজেপি পাখির চোখ করেছে আগামী দিনের 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনকে। তাঁদের লক্ষ্য, একুশে রাজ্যের শাসক দলকে উৎখাত করে রাজ্যের মসনদ দখল করা। আর সেই লক্ষ্যে অবিচল থাকতে এরাজ্যে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বিজেপি। তার মধ্যে প্রথম অংশ ছিল রাজ্য বিজেপির সভাপতি নির্বাচন। আর সেই

ট্যাগড

জাতীয় জনগণনা পঞ্জি নিয়ে এবার কেন্দ্রের রিপোর্ট চাইল সুপ্রীম কোর্ট

সম্প্রতি দেশজুড়ে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি আইন, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় জনগণনা পঞ্জি নিয়ে তুমুল আন্দোলন চলছে। এই আন্দোলনে পশ্চিমবঙ্গ বেশ কিছুটা এগিয়ে। এদিন পশ্চিমবঙ্গের কুড়ি জন শিক্ষক অধ্যাপক নিজেদের প্যান কার্ড ও আধার কার্ড তথ্য দিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছেন এনপিআরের বিরুদ্ধে। ঘটনাচক্রে এই কজন শিক্ষক, প্রত্যেকেই হলেন মুসলমান। জাতীয়

তৃণমূলের বিধায়কের সঙ্গে দ্বন্দ্ব, পদ হারালেন হেভিওয়েট নেতা, জোর শোরগোল রাজ্যে !

  লোকসভায় তৃণমূলের খারাপ ফলাফলের পেছনে অন্যতম মূল কারণ যে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। তবে লোকসভার পরবর্তী সময়কালে বারে বারে সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব কমানোর জন্য দলের প্রথমসারি থেকে নিচুসারি পর্যন্ত কড়া নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল কমার কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। কিন্তু দল যে

Top
error: Content is protected !!