এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর

আরেক বঙ্গ-বিজেপি নেতা পেতে চলেছেন কেন্দ্রীয় প্রশাসনিক স্তরে বড়সড় পদ? তীব্র জল্পনা

দলের সর্বভারতীয় সভাপতি পদে বসে অমিত শাহ একের পর এক রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে এনে দিচ্ছিলেন জয়ের সাফল্য। খুশিতে ডগমগ ছিল গেরুয়া শিবিরের সমর্থকরা। কিন্তু, জয়ের মূল কারিগর অমিত শাহ ঘোষণা করেছিলেন, যতদিন না বাংলায় পদ্ম ফুটবে, ততদিন তিনি মানতে রাজি নন বিজেপির স্বর্নযুগ এসেছে বলে। দেশজোড়া সাফল্য এলেও -

মিলেছে অমিত শাহের সবুজ সঙ্কেত, ভারতীয় ক্রিকেটের সর্বোচ্চ পদে আসীন হতে চলেছেন বাংলার মহারাজ?

জমজমাট ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের রাজনীতি। আগামী ২৪ শে অক্টোবর নির্বাচন হতে চলেছে পৃথিবীর ধনীতম ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের। আর আগামীকাল সেই নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন। আর তার পরিপ্রেক্ষিতে আজ মুম্বইতে বসছে বোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ সভা। আর সেই সভার পরেই কার্যত ঠিক হয়ে যেতে পারে, কে কোন পদে বসতে চলেছেন। সবথেকে

জিয়াগঞ্জে নৃশংসভাবে শিক্ষক হত্যা! চোখের জল আর ক্ষোভের আগুনে কবিতায় প্রতিবাদ শঙ্কুদেবের!

গত মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের সদরঘাট লাগোয়া লেবুবাগানে বেলা বারোটা নাগাদ প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পাল, তাঁর আটমাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বিউটি এবং তাঁর পুত্র অঙ্গনের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। যে ঘটনায় অন্তর থেকে কেঁপে গিয়েছে গোটা রাজ্যের সুধীজন ও শিক্ষিত সমাজ! আর শুধু রাজ্যই নয় - এই নারকীয় হত্যাকান্ড নিয়ে মুখ

মির্জা অথবা ম্যাথু – কেউ একজন সত্যিটা বলছেন না? নারদ নিয়ে ক্রমশ বাড়ছে জল্পনা!

নারদ তদন্ত একেবারে শেষের পথে - আর তদন্তের জাল গোটাতে ইতিমধ্যেই পুলিশ অফিসার মির্জাকে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। আর সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হতেই, মির্জার বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি, তিনি নাকি মুকুল রায়ের নির্দেশে ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের কাছ থেকে ১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, সেই টাকা তিনি পরবর্তীকালে মুকুল

শারদ শুভেচ্ছা ও ছুটি

বাংলা ও বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজা শুরু হয়ে গেছে পূর্ণ্যদ্যমে। শিউলির আঘ্রাণে, কাশফুলের সৌন্দর্যে ও ঢাকের আওয়াজে - মা দূর্গা এসেছেন বৎসরান্তে। আর সেই শারোদৎসবের প্রাক্কালে আমাদের সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভানুধ্যায়ীদের জানাই আন্তরিক প্রীতি, শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা। বয়োজ্যেষ্ঠদের আমাদের প্রণাম। টীম প্রিয় বন্ধু নিরন্তর আপনাদের সামনে সত্য ও নিরপেক্ষ খবর

পুজো মিটলেই রাজ্য বিজেপিতে বড়সড় রদবদল! কে কোন পদে আসছেন, কে যাচ্ছেন? জানুন বিস্তারিত

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ - সামনেই বাঙালির সব থেকে বড় উৎসব দুর্গাপূজা আর তারপরেই লক্ষীপূজা, কালীপূজা, দীপাবলি ও জগদ্ধাত্রী পূজা। ফলে, কার্যত পুজোর আবেশ গায়ে মেখে ছুটির মেজাজে আম বাঙালি তো বটেই, রাজনীতিবিদরাও। তবে সেই পুজোর মরশুম শেষ হলেই, এই মুহূর্তে রাজ্য-রাজনীতিতে প্রধান বিরোধী দল ভারতীয় জনতা পার্টি, ঝাঁপিয়ে পড়তে

প্রকাশ্যে এল মদন মিত্রর নতুন স্টিং! একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগের ঝড়! নিশানায় খোদ দলনেত্রী!

রাজ্য রাজনীতির অন্যতম বর্ণময় চরিত্রের নাম মদন মিত্র। তৃণমূল কংগ্রেসের এই দাপুটে নেতা একদিকে একসময় যেমন ক্রীড়া ও পরিবহনের মত গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর সামলেছেন। অন্যদিকে, সেই তাঁকেই আবার সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হয়ে জেলে যেতে হয়েছে! তিনিই রাজ্য-রাজনীতিতে প্রথম ব্যক্তি - যিনি জেলে থাকাকালীন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। আবার তিনিই ভাটপাড়া উপনির্বাচনে তৃণমূলের

আজকের পরে বাংলায় বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা কত দাঁড়াল? কে কে আছেন সেই তালিকায়? দেখে নিন একনজরে

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় রেকর্ডকালীন ভালো ফল করে তিন-তিনজন বিধায়ক পায় ভারতীয় জনতা পার্টি। কিন্তু, তারপর থেকেই দ্রুত বদলাতে থাকে বাংলার রাজনৈতিক পটচিত্র - বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসকে পিছনে ফেলে দ্রুত প্রধান বিরোধী হিসাবে উঠে আসে বিজেপি। মুকুল রায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবার পরেই বিভিন্ন উপনির্বাচনে গেরুয়া শিবির বিশাল

বিজেপির সমীক্ষাই বলছে এখনও মুখ্যমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা ৭০%, বিধানসভার আগে বাড়ছে প্রবল চাপ!

সামনেই দেশের বিভিন্ন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে। লোকসভা ভোটে দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রীর পদ দখল করার সাথে সাথেই বিজেপি সারাদেশে এবার বিধানসভাগুলি দখল করার উদ্দেশ্যে তাঁদের সংগঠন বাড়িয়ে চলেছে। ইতিমধ্যে মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা, ঝাড়খন্ডে নির্বাচনের নির্ঘণ্ট স্থির হয়ে গেছে। এরপর দিল্লিতেও বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের আগেই দিল্লির বিজেপি শিবিরে রীতিমত চিন্তার

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের প্রথম বঙ্গ-সফরেই হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের দলবদল করিয়ে ‘তোফা’

এর আগে বাংলায় সংগঠন বৃদ্ধির লক্ষ্যে বারবার এসেছেন অমিত শাহ - কিন্তু তখন এসেছিলেন শুধুমাত্র বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি হিসাবে। ফলে, তাঁকে পদে পদে বাধা দিয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু, সব বাধাকে অতিক্রম করে বাংলা থেকে ১৮ টি আসন ছিনিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি, নরেন্দ্র মোদিকেও দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে বসিয়েছেন অমিত

Top
error: Content is protected !!