এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সিএএ নিয়ে এবার টলিউডের বিশিষ্টজনেদের প্রতি তীব্র কটাক্ষ রাজ্য বিজেপি সভাপতির

সিএএ নিয়ে এবার টলিউডের বিশিষ্টজনেদের প্রতি তীব্র কটাক্ষ রাজ্য বিজেপি সভাপতির

সারাদেশে এনআরসি এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি আইন অর্থাৎ সিএএ নিয়ে চরম বিরোধিতা শুরু হয়েছে। শুধু বাংলার নয়, সারা দেশজুড়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে বিরোধী রাজনৈতিক শিবিরগুলি। এবার রাজনৈতিক শিবিরের সাথে সাথে সাধারণ জনগণও এই বিরোধিতায় সামিল হয়েছে। বিরোধিতাকে সামাল দিতে বিজেপি নেতৃত্বও বিভিন্ন রকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। কিন্তু সরকারি আইনের প্রতিবাদে ইতিমধ্যেই তেতে উঠেছে গোটা দেশ এবং এই আইনকে প্রত্যাহারের দাবিতে সরব হয়েছে দেশের সমস্ত নাগরিক। আর এবার বাংলায় এনআরসি ও সিএএ এর বিরোধিতায় সরব হলেন টলিউডের বিশিষ্টজনেরা। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় টলিউডের বেশ কয়েকজন এর পক্ষ থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়, যার মূল বক্তব্য ‘কাগজ আমরা দেখাবো না’। আর এই ভিডিওটি নিয়েই এবার দিলীপ ঘোষ তীব্র কটাক্ষ প্রকাশ করলেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এর প্রতিবাদ করতে টলিউডের বিশিষ্টজনেরা সিদ্ধান্ত নিয়ে একটি ভিডিও প্রস্তুত করেন এবং যার নাম দেন ‘কাগজ আমরা দেখাবো না’। সূত্রের খবর, বরুণ গ্রোভারের লেখা একটি হিন্দি কবিতা ‘হাম কাগজ দিখায়েঙ্গে’র বাংলা ভার্সন করে ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে। এই ভিডিওটিতে দেখা গেছে সব্যসাচী চক্রবর্তী, রুপম ইসলাম, কঙ্কনা সেন শর্মা, তিলোত্তমা সোম, ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায়, চিত্রাঙ্গদা, শতরূপা, স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়, নন্দনা সেন সহ আরো অনেককে।

সম্প্রতি সিএএর বিরোধিতায় টলিউডের বিশিষ্টজনেরা যে ভিডিওটি পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় অর্থাৎ ‘কাগজ আমরা দেখাবো না’ বিশিষ্ট ভিডিওটি- এদিন তার বিরুদ্ধেই রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ তীব্র কটাক্ষ করেন। প্রথমেই তিনি নাম না করে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন। এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন,”অনেকের সত্যিই কাগজ নেই। সোনা চুরি করে ধরা পড়েছেন, কাগজ দেখাতে পারেনি, সে ধরনের লোকও আছে, বিদেশে গিয়ে আমাদের নাক-কান কাটিয়ে এসেছে…ননসেন্স সব”। উল্লেখ্য, ‘কাগজ আমরা দেখাবো না’ সংক্রান্ত ভিডিওটির অন্যতম মুখ হল স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। বেশ কিছুকাল আগে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে তিনি সিঙ্গাপুরের একটি শপিং মল থেকে কানের দুল চুরি করেছেন। রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, নাম না করে রাজ্য বিজেপি সভাপতি এদিন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগটিকেই সামনে নিয়ে এলেন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

টলিউডের বিশিষ্টজনেরা যে ভিডিওটি বানিয়েছেন এদিন তা নিয়ে দিলীপ ঘোষ আরো বলেন, ”তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা, সব কমিউনিস্ট ওঁরা। ওঁদেরকে জিজ্ঞেস করতে চাই, বিমানবন্দরে পরিচয়পত্র ছাড়া ঢুকতে দেবে? এই ননসেন্সগুলো জানেই না। বিনা রেশন কার্ডে রেশন পাওয়া যায়? ওঁরা কি সব বিনা টিকিটের যাত্রী? সব নেমকহারাম ওঁরা। লোককে বোকা বানানো হচ্ছে! অনেকেরই কাগজ নেই। এ ধরনের মিথ্যা প্রচারে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে”। উল্লেখ্য, এই ভিডিওটির আরেকটি অন্যতম মুখ হলেন সব্যসাচী চক্রবর্তী। যাঁকে সারা পশ্চিমবঙ্গবাসী বহুদিন ধরেই একজন বামপন্থী হিসেবেই চেনে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি নিয়ে ইতিমধ্যে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে তীব্র বিক্ষোভ। বিক্ষোভের রেশ ছড়িয়েছে বাংলাতেও। কলকাতাতে মুখ্যমন্ত্রীসহ শহরের বিশিষ্টজনেরা ক্রমাগত এনআরসির বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন দিকে দিকে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এনআরসি নিয়ে যেভাবে সারা দেশজুড়ে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে তাতে খুব স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব কিছুটা অস্বস্তিতে পড়েছে। রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, সেই অস্বস্তি কাটাতেই আসরে নেমেছেন বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি যেভাবে টলিউড কলাকুশলীদের তৈরি করা ভিডিওটি প্রসঙ্গে প্রতিবাদ জানিয়েছেন, কটাক্ষ করেছেন, তাতে সেদিকেই ইঙ্গিত করা হচ্ছে। আপাতত পুরো পরিস্থিতির ওপর নজর রেখেছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top