এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > উপনির্বাচন ঘিরে তৃণমূল বিজেপির নয়া প্রচার পর্ব, বাড়ছে উত্তাপ

উপনির্বাচন ঘিরে তৃণমূল বিজেপির নয়া প্রচার পর্ব, বাড়ছে উত্তাপ

 

উত্তর দিনাজপুর জেলা বরাবরই কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। কিন্তু যত দিন যাচ্ছে, ততই সেখানে কংগ্রেসের শক্তি গৌণ হয়ে যেতে শুরু করেছে। এককালে প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির গড় বলে পরিচিত হলেও কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনের লড়াই এবার কিন্তু অন্য কথা বলছে।

বস্তুত, 2016 র বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে জয়লাভ করেছিলেন কংগ্রেসের প্রমথনাথ রায়। তবে তিনি পরলোকগমন করায় এবার তাঁর ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রে আগামী 25 শে নভেম্বর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যে উপনির্বাচনে ইতিমধ্যেই প্রচারে নেমে পড়েছে সমস্ত রাজনৈতিক দল। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্র দখল করায় এই কালিয়াগঞ্জ বিধানসভায় পদ্ম ফোটাতে তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে। অন্যদিকে পিছিয়ে নেই তৃণমূলও। দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ইতিমধ্যেই ময়দানে নেমে পড়েছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

জানা গেছে, এই কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে এবার তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন তপন দেব সিংহ, বিজেপির কমল সরকার এবং বাম কংগ্রেসের জোট প্রার্থী হয়েছেন প্রয়াত বিধায়কের মেয়ে ধীতশ্রী রায়।বিজেপি প্রার্থী কমল সরকার ইতিমধ্যেই সংগঠনকে চাঙ্গা করে ভোট বৈতরণী পার হতে চাইছেন। জানা গেছে, গেরুয়া শিবির বুথভিত্তিক কর্মী বৈঠক করে সংগঠন মজবুত করার কাজ করছে। তবে তৃণমূল এক্ষেত্রে অন্য রাস্তাকে বেছে নিয়েছে। ধর্মীয় সংগঠনকে হাতিয়ার করে মানুষের কাছে কাছে গিয়ে নিজেদের দখলে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র আনতে তৎপর ঘাসফুল শিবির। প্রসঙ্গত, কালিয়াগঞ্জে স্থানীয় একটি ধর্মীয় সংগঠন মাঝেমধ্যেই শহর নগরকীর্তনের আয়োজন করে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন তাদের সঙ্গে ভোরে শহরের অলিতে-গলিতে কীর্তন করতে হাঁটতে দেখা যায় তৃণমূল প্রার্থী তপন দেব সিংহ সহ তৃণমূলের নেতা কর্মীদের। যা দেখে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা দখল করতে কোনো দল সংগঠন, আবার কোনো দল ধর্মীয় সংগঠনকে হাতিয়ার করতে চলেছে। কিন্তু জয়ের ব্যাপারে তারা ঠিক কতটা আশাবাদী! এদিন এই প্রসঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক বাসুদেব সরকার বলেন, “আমাদের প্রার্থী কমল সরকার বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন। এছাড়াও ছোট ছোট বুথভিত্তিক মিটিং করে বিজেপির পক্ষে ভোট দেওয়ার জন্য প্রচার চালাচ্ছেন। লোকসভা ভোটে আমরা যত ভোট পেয়েছিলাম, এবার তার থেকেও বেশি ব্যবধানে জিতে এই বিধানসভা কেন্দ্র নিজেদের দখলে রাখব।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি কানাইলাল আগরওয়াল বলেন, “ভোটের প্রচার চালানোর জন্য আমরা জনসভা থেকে শুরু করে মিটিং-মিছিল সবটাই করছি। আমাদের এই প্রচারে প্রচুর মানুষ আমাদের সমর্থন জানাচ্ছেন।” কিন্তু বিশ্লেষকদের একাংশ বিজেপি বনাম তৃণমূলের মধ্যে এই কেন্দ্রের লড়াই হবে বলে মনে করলেও এতদিন এই কেন্দ্র নিজেদের দখলে রাখা কংগ্রেস কি করতে চলেছে এখানে!

এদিন এই প্রসঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলা কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক পবিত্র চন্দ বলেন, “ছোট ছোট জনসভা, পথসভার মাধ্যমে আমরা কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার বিভিন্ন এলাকায় প্রচার চালাচ্ছি‌। যথেষ্ট ভালো সাড়া মিলছে।” তবে যে যাই বলুক না কেন, শেষ পর্যন্ত নগরকীর্তন নাকি বুথভিত্তিক সংগঠন, কালিয়াগঞ্জ বিধানসভায় কোন প্রার্থীর প্রচারে বেশি সমর্থন দেয় সাধারণ মানুষ! তা ভোটবাক্স খোলার পরেই বোঝা যাবে বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!