এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > উপনির্বাচনের আগে বাম- কংগ্রেস জোট হচ্ছেই, তবে মাঝে মাথা তুলছে অনেক বাধা!

উপনির্বাচনের আগে বাম- কংগ্রেস জোট হচ্ছেই, তবে মাঝে মাথা তুলছে অনেক বাধা!

 

শেষবার গত 2016 সালের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বাম-কংগ্রেস জোট প্রত্যক্ষ করেছেন সাধারণ মানুষ। আর এরপর বহু চেষ্টা করা সত্ত্বেও কোনো নির্বাচনেই রাজ্যে জোট করতে পারেনি হাত এবং কাস্তে-হাতুড়ি শিবির। 2019 এর সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে জোটের কথা ভাবলেও বিভিন্ন আসন নিয়ে জটিলতার কারণে তা সম্ভব হয়নি।

তবে সেই লোকসভা নির্বাচনে পরাজয়ের পর বাম এবং কংগ্রেস দুই দলই উপলব্ধি করে যে, রাজ্যে বিরোধী আসন থেকে বিজেপিকে সরাতে এবং শাসক দল তৃণমূলকে চাপে রাখতে তাদের হাতে হাত ধরতেই হবে। সেই মত বিন্দুমাত্র সময় নষ্ট না করে রাজ্যের আসন্ন যে তিনটি কেন্দ্রের বিধানসভা উপনির্বাচন রয়েছে, সেই নির্বাচন থেকেই সংঘবদ্ধভাবে লড়তে চায় বাম এবং কংগ্রেস।

ইতিমধ্যেই দুটি কেন্দ্র কংগ্রেসকে ছেড়ে দিয়ে একটি কেন্দ্রে লড়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে বামেরা। ফলে আসন ভাগাভাগি নিয়ে এবার জটিলতা না থাকলেও প্রার্থীর নাম ঘোষণা নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারল না বাম শিবির। বামেদের সঙ্গে জোটের ব্যাপারে ইতিমধ্যেই প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বকে সবুজ সংকেত দিয়ে দিয়েছেন সর্বভারতীয় কংগ্রেসের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার সকালে কালিয়াগঞ্জ এবং খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করার জন্য কংগ্রেসের পক্ষ থেকে একটি নির্বাচনী কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। যে বৈঠকে থাকার কথা বাংলায় কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক বি পি সিংহের। তবে কংগ্রেস তাদের দলীয় সৃতরে বৈঠক করলেও জোটের ব্যাপারে মুখোমুখি হয়ে কবে তারা বামেদের সঙ্গে বৈঠক করবেন, তা নিয়ে এখন তৈরি হয়েছে জল্পনা।

কংগ্রেসের একাংশের মতে, নিজেদের নির্বাচনী কমিটিতে আলোচনা সেরে নেওয়ার পরই বামেদের সঙ্গে বৈঠকে বসা উচিত। সেক্ষেত্রে যৌথ বৈঠক করে সাংবাদিক বৈঠকে মিলিত হয়ে জোটের ব্যাপারে একটা বার্তা দেওয়া যাবে বলে মত হাত শিবিরের। সূত্রের খবর, বাম এবং কংগ্রেস দুই পক্ষের মুখোমুখি হওয়ার যে কথা রয়েছে, তা বুধবার কিংবা বৃহস্পতিবার হতে পারে। তবে কোথায় এবং কখন তা হবে, সেই ব্যাপারটি এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

আর এখানেই রাজনৈতিক মহলের একাংশ বলছেন, শেষ পর্যন্ত দুই দলের নেতৃত্বরা বৈঠকে বসে সংবাদমাধ্যমের সামনে জোটের ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট না করা পর্যন্ত কোনো নিশ্চয়তা নেই। তাই তলায় তলায় কংগ্রেস এবং বামেরা আলোচনা করলেও সকলের সামনে প্রকাশ্যে তারা এই জোটের ব্যাপারে ঠিক কি অবস্থান নেয়, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!