এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > উপনির্বাচনে জিততে প্রার্থী ঘোষণা হতেই মাঠে নামল তৃণমূল প্রার্থী সমেত মহুয়া ও তৃনমূল, সিঁদুরে মেঘ দেখছে বিজেপি

উপনির্বাচনে জিততে প্রার্থী ঘোষণা হতেই মাঠে নামল তৃণমূল প্রার্থী সমেত মহুয়া ও তৃনমূল, সিঁদুরে মেঘ দেখছে বিজেপি


 

দীর্ঘ 39 বছর বাদে তার হাত ধরেই তৃণমূল প্রথম জয় পেয়েছিল করিমপুরে। গত 2016 সালে বিধানসভা নির্বাচনে বিধায়ক হয়ে তৃণমূলের টিকিটে বিধানসভায় গিয়েছিলেন মহুয়া মৈত্র। তবে সদ্যসমাপ্ত 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে তাঁকে তৃণমূল কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করেছিল। যেখানেও জয়লাভ করেছিলেন মহুয়াদেবী।

যার ফলে তাঁর ছেড়ে যাওয়া আসনে উপর্নির্বাচন হচ্ছে। যেখানে তৃণমূলের তরফে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার প্রাপ্ত শিক্ষক তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথমদিনকার সঙ্গী হিসেবে পরিচিত বিমলেন্দু সিংহ রায়কে। আর প্রার্থী ঘোষণা হতে না হতেই এবার নিজের ছেড়ে যাওয়া বিধানসভা কেন্দ্রে দলকে জেতাতে বিমলেন্দুবাবুর হয়ে প্রচারে নেমে পড়লেন করিমপুরের ভূতপূর্ব বিধায়িকা তথা বর্তমান তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

সূত্রের খবর, শুক্রবার করিমপুর সংলগ্ন মহিষবাথান থেকে করিমপুর জামতলা মোড় পর্যন্ত দলীয় প্রার্থীকে নিয়ে একটি রালি করেন তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। যেখানে উপস্থিত ছিলেন এখানকার প্রাক্তন বিধায়ক তথা কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ মহুয়াদেবী। আর প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার সাথে সাথেই করিমপুর আসন নিজেদের দখলে রাখতে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে গোটা তৃণমূল দলের এইভাবে ময়দানে নেমে পড়া দেখে কিছুটা হলেও স্তম্ভিত গেরুয়া শিবির।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কেননা রাজ্যের আসন্ন তিন বিধানসভা উপনির্বাচনে প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দলই তাদের প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়েছে। তবে বিজেপি এখনও কোনো কেন্দ্রের জন্য তাদের প্রার্থী ঘোষণা করতে পারেনি। এমতাবস্থায় এই নির্বাচনকে এসিড টেস্ট হিসেবে গণ্য করা বিজেপি তৃণমূলের এই রালি অত্যন্ত চিন্তা বাড়াতে পারে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অনেকে বলছেন, নির্বাচনে প্রার্থী ঘোষনা না হলে যেমন কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উৎসাহ লক্ষ্য করা যায় না, ঠিক তেমনই প্রচার পর্বও থমকে থাকে। বিজেপি বাংলা দখলের জন্য মুখে বড়াই করলেও তাদের প্রার্থী ঘোষণার ব্যাপারে এই ঢিলেটালা মনোভাব উপনির্বাচনের প্রথম ধাপেই তাদেরকে অনেকটা পিছিয়ে দিল বলে দাবি বিশ্লেষকদের।

যদিও বা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের এমন দাবিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ গেরুয়া শিবির। তাদের পাল্টা দাবি, সময়েই প্রার্থী ঘোষণা হবে। বিজেপির সর্বভারতীয় দল। এখানে নিয়ম-শৃঙ্খলা রয়েছে। আর এবারে তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রেই বিজেপি প্রার্থীরি জয়লাভ করবে।

কিন্তু দিনের শেষে গেরুয়া শিবিরের মুখে এই আশার কথা শোনা গেলেও যেভাবে করিমপুর বিধানসভা কেন্দ্র দখল করতে তৃণমূল প্রার্থী সমেত মহুয়া মৈত্র এবং গোটা তৃণমূল পরিবার ময়দানে নেমে বিশাল মিছিল অনুষ্ঠিত করল, তাতে বিজেপি যে কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়ছে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল। এখন শেষ পর্যন্ত কি হয়, তা দেখবার জন্য অপেক্ষা করতেই হবে আগামী 29 শে নভেম্বর ভোটবাক্স খোলা পর্যন্ত।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!