এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > উপনির্বাচনের আগে এলাকায় বড় সংখ্যায় বোমা উদ্ধার! বাড়ছে চাঞ্চল্য!

উপনির্বাচনের আগে এলাকায় বড় সংখ্যায় বোমা উদ্ধার! বাড়ছে চাঞ্চল্য!

Priyo Bandhu Media

 

বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। আর নানা উৎসবের মধ্যে ভোট উৎসব অন্যতম। নির্বাচন গণতান্ত্রিক উৎসব হিসেবেই পরিচিত। কিন্তু বাংলায় এই উৎসবে অশান্তিই বিরাজমান বলে দাবি করতে দেখা যায় বিভিন্ন মহলকে। তবে অনেকেই ভেবেছিল, রাজ্যের শাসক বনাম বিরোধীর প্রবল উত্থানে আসন্ন 3 বিধানসভার উপনির্বাচনে শান্তি বিরাজ করবে। কিন্তু নির্বাচনের আগেই যেভাবে কালিয়াগঞ্জে প্রচুর বোমা উদ্ধার হল, তা নিয়ে প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল এলাকায়।

সূত্রের খবর, শনিবার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার বড়ুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের রাড়িয়া গ্রামে দুলাল সরকার নামে এক ব্যক্তির বাড়ির গোয়াল ঘর থেকে 11 টি সকেট বোমা উদ্ধার হয়। জানা যায়, গত শুক্রবার রাতেই এই বাড়িটিকে পুলিশের পক্ষ থেকে ঘিরে ফেলা হয়। তারপর শনিবার তা উদ্ধার করা হয়। কিন্তু নির্বাচনের আগে হঠাৎ কালিয়াগঞ্জের এই পঞ্চায়েতের এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে বিপুল বোমা উদ্ধার হওয়ায় বিভিন্ন মহলে শুরু হয়েছে গুঞ্জন।

ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। কিন্তু যে ব্যক্তির বাড়ি থেকে এই বোমা উদ্ধার হয়েছে, সেই দুলাল সরকার কি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন! স্থানীয় সূত্রের খবর, দুলালবাবু খুবই ভালো মানুষ। তবে তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। মানুষের বিপদে-আপদে সবসময় তিনি ঝাঁপিয়ে পড়তেন। আর তাই নির্বাচনের আগে তার বাড়ি থেকে এই বোমা উদ্ধারের কারণ খুঁজে বের করতে পারছেন না কেউই।

 

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

 

একাংশের দাবি, দুলাল সরকার কারও প্ররোচনার শিকার হয়েছেন। কেউ বা কারা অসৎ উদ্দেশ্যে তার বাড়িতে এই বোমা রেখে দিয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে সেই দুলাল সরকারের স্ত্রী তাপসী সরকার এবং তাঁর মা বিনাপানি সরকার বলেন, “কোনো খারাপ লোকের সঙ্গে ওর ওঠাবসা ছিল না। এই ধরনের কাজকর্ম অতীতে কোনো দিন আমাদের চোখে পড়েনি। নিজেদের এক ও লোকের প্রায় তিন বিঘা জমি লিজ নিয়ে চাষাবাদ করে আমাদের সংসার চলে। কি করে কি হল, বুঝতে পারছি না।”

একইভাবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বদের পক্ষ থেকেও এই ব্যপারে সেই দুলাল সরকারের পাশে দাঁড়াতে দেখা গেছে। এদিন এই প্রসঙ্গে স্থানীয় বিজেপির গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সুচিত্রা বর্মন সরকারের স্বামী হরিপদ সরকার বলেন, “দুলাল সরকারের বাড়িতে বোমা বাজেয়াপ্ত হয়েছে বলে শুনেছি। কিন্তু তার কোনো খারাপ কাজকর্ম আমাদের নজরে আসেনি। কি হয়েছে তা পুলিশ তদন্ত করে দেখুক।”

বিশ্লেষকদের একাংশ বলেছেন, হয়ত বা অন্য সময় এই ঘটনা ঘটলে তা নিয়ে জলঘোলা কম হত। কিন্তু সামনেই যেখানে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার নির্বাচন, সেখানে এই বিপুল বোমা উদ্ধার হওয়ায় সরগরম হচ্ছে। পাশাপাশি এখানকার নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্নচিহ্ন দেখা দিতে শুরু করেছে।

এদিকে এই বোমা উদ্ধার হওয়ার পর বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে কোথাও কোনো বেআইনি অস্ত্র মজুত রয়েছে কিনা, তার ব্যাপারেও তল্লাশি করা হচ্ছে বলে জানান উত্তর দিনাজপুর জেলার পুলিশ সুপার সুমিত কুমার। সব মিলিয়ে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনের আগে সেখানকার এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে বিপুল বোমা উদ্ধার হওয়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উঠতে শুরু করল প্রশ্ন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!