এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > গ্রামাঞ্চলে বাড়ি তৈরির আইন আমূল পাল্টে ফেলল রাজ্য সরকার, জেনে নিন বিস্তারিত

গ্রামাঞ্চলে বাড়ি তৈরির আইন আমূল পাল্টে ফেলল রাজ্য সরকার, জেনে নিন বিস্তারিত

রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনকে ঘিরে সাজো সাজো রব জেলার পঞ্চায়েতগুলিতে। এবার এরই মাঝে গ্রামগুলিতে বাড়ি তৈরির আইনকে বদলে ফেলে পঞ্চায়েতের হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়ে সেই বাড়ি দেওয়ার দায়িত্ব পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলাপরিষদকে দিতে চলেছে রাজ্য সরকার।

জানা গেছে,আগে পাকা বাড়ি করতে পঞ্চায়েতের অনুমতি এবং  তিন বা চার তলা বাড়ি তৈরিতে জেলাপরিষদের অনুমতি লাগত। কোনো ভূমিকাই ছিল না পঞ্চায়েত সমিতির। কিন্তু নতুন আইন মোতাবেক সেখানে পঞ্চায়েতের হাত থেকে কেড়ে সেই দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে পঞ্চায়েত সমিতিকে। শুধু এখানেই শেষ নয়, দীর্ঘদিন ধরেই এই অনুমতি নিতে গেলে ফি নেওয়ার অভিযোগ উঠত বিভিন্ন পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে। ফলে এক্ষেত্রে সরকাযের স্বচ্ছভাবমূর্তি ধাক্কা খেত অনেকটাই। আর তাই সম্প্রতি রাজ্য মন্ত্রীসভা এই আইনটি অনুমোদন করেন এবং পরে তা পাশও হয়ে যায় বিধানসভায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

তবে নতুন আইনে যে ফি একেবারেই থাকছে না এমনটা কিন্তু নয়। সূত্রের খবর, বসবাসের জন্য উপযুক্ত পাকাবাড়ির জন্য প্রতি বর্গফুটে 50 পয়সা, বানিজ্যিক কাজে বাড়ি তৈরিতে 1 টাকা, এবং 18 বর্গমিটার আয়তনের বেশি খড়, টিন, টালির ছাউনি দেওয়া বাড়ি তৈরিতে 60 টাকা, মাটির বাড়ি তৈরিতে 150 টাকা ও বানিজ্যিক উদ্দেশ্যে হলে সেখানে 300 টাকা লাগবে। তবে এই ফি কমাতে চাইলে তা তখনই কার্যকর হবে যখন বাড়ির মালিক যদি বাড়ির ছাদে বর্ষার জমা জল মাটির নীচে নিয়ে যাওয়ার ব্যাবস্থা করবেন।

এদিকে শৌচাগারের পরিকল্পনা না থাকলে এই বাড়ি তৈরিতে যেন অনুমতি  না দেওয়া হয় সেইব্যাপারে পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলাপরিষদগুলিকে কঠোর নির্দেশও দিয়েছে রাজ্য সরকার। তবে গ্রামাঞ্চলে বাড়ি তৈরির অনুমতি দেওয়া নিয়ে যে আপব্যাবহার তৈরি হত তা আটকাতে নতুন এই আইন আনেকটাই সদর্থক ভূমিকা পালন করবে বলে মত পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের কর্তাদেরও।

Top
error: Content is protected !!