এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > ববির বিরুদ্ধে দলীয় ফান্ডের টাকা তছরুপ সমেত একগুচ্ছ বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন দলের হেভিওয়েট নেতা

ববির বিরুদ্ধে দলীয় ফান্ডের টাকা তছরুপ সমেত একগুচ্ছ বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন দলের হেভিওয়েট নেতা

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের খারাপ ফলাফল হওয়ার পেছনে দুর্নীতিই প্রধান কারণ হিসেবে উঠে এসেছে। আর যার পরিপ্রেক্ষিতেই রাজ্যে বিজেপি এবার ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি বিশ্লেষকদের। কিন্তু নির্বাচনে বিজেপি সাফল্য পেতে না পেতেই ফের গেরুয়া শিবিরের নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলতে শুরু করল সেই বিজেপিরই একাংশ।

জানা গেছে, দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা বিজেপির সাংগঠনিক সভাপতি অভিজিৎ দাস ওরফে ববির বিরুদ্ধে এবার দলীয় ফান্ডে টাকা তছরুপের অভিযোগ তুললেন সেই জেলারই বিজেপির সহ-সভাপতি সুফল ঘাটু। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই অভিজিৎ দাস ওরফে ববির বিরুদ্ধে ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে মারাত্মক সব অভিযোগ তুলে ধরা হয়েছে। যেখানে দলীয় ফান্ডের অর্থ নয়ছয় করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

শুধু তাই নয়, ডায়মন্ডহারবার লোকসভা আসনটি তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগে এই অভিজিৎ দাসের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গেছে বিজেপির একাংশকে। কর্মীদের প্রশ্ন, বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটি প্রতিটি জেলায় দলীয় পার্টি অফিস তৈরির জন্য অর্থ সাহায্য করে। কিন্তু এই জেলায় সেই টাকা কোথায় গেল! কেন এখানে এখনও কোনো দলীয় পার্টির অফিস তৈরি করা হয়নি!

বিগত 2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে ডায়মন্ডহারবার কেন্দ্রে অভিজিৎ দাস প্রার্থী হলেও সেই নির্বাচনে খরচ না হওয়া 10 লক্ষ টাকার হিসেব তিনি আজ পর্যন্ত দলকে দেননি বলেও কর্মীরা অভিযোগ করতে শুরু করেছে। আর এতেই প্রবল অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির। 18 টা আসন পেয়ে যখন বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে শক্ত সংগঠন গড়ে তোলার চিন্তাভাবনা করছে বিজেপি, ঠিক তখনই বিজেপির সভাপতির বিরুদ্ধে কর্মীদের অভিযোগ যে কিছুটা হলেও গেরুয়া শিবিরকে অস্বস্তিতে ফেলবে, সেই ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত প্রায় সকলেই।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে তৃণমূলের মন্ত্রীর সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে দলের নেতাকর্মীরা লাগাতার তৃণমূলের হাতে মার খেলেও সেইভাবে কোনও পদক্ষেপ করতে দেখা যাচ্ছে না অভিজিৎ বাবুকে বলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন বিজেপি কর্মীরা। কিন্তু কেন জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তোলা হল!

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির এই জেলার সহ-সভাপতি সুফল ঘাটু বলেন, “সভাপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ আমার একার নয়। জেলা কমিটি ও প্রতিটি মণ্ডল কমিটির সদস্যরা এনিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।” তবে তার বিরুদ্ধে ওঠা এই সমস্ত অভিযোগ কি ঠিক!

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই অভিজিৎ দাস বলেন, “দলে থেকেও যারা এসব মিথ্যা প্রচার করে বেড়াচ্ছেন, তারা আসলে ইচ্ছাকৃতভাবেই সংগঠনের ক্ষতি করছেন। লোকসভা ভোটে মথুরাপুরে আমার জন্য প্রচুর ভোট বৃদ্ধি পেয়েছে। সুতরাং কে আমার বিরুদ্ধে কি বলল তাতে কান দেই না। আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে, আমি তা পালন করে যাব।”

তবে অভিজিত বাবু যাই বলুন না কেন, যেভাবে দলের কর্মীরা তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্চার হচ্ছেন, তাতে তিনি যে কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত সকলেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!