এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দলীয় সাংসদের গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের একাংশ, জেনে নিন

দলীয় সাংসদের গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের একাংশ, জেনে নিন

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি আঠারোটা আসন দখল করেছে। আর দলের এই সাফল্যে কার্যত উজ্জীবিত হতে দেখা গেছে গেরুয়া শিবিরকে। তবে তাদের মূল টার্গেট 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। আর তাই সেই নির্বাচনের আগে যখন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে চাপে ফেলার ঘুটি সাজাচ্ছে বিজেপি, ঠিক তখনই দলের সাংসদকে পেয়ে গাড়ি আটকে কার্যত বিক্ষোভ দেখাতে দেখা গেল সেই বিজেপি কর্মী সমর্থকদেরই।

সূত্রের খবর, শুক্রবার বৈচির হরাল হাটতলায় দলীয় একটি সমাবেশে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। সেখানে হাতনি এলাকার একটি রাস্তা এবং উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র সংস্কারের দাবিতে সাংসদকে আটকে দেন বিজেপির কিছু কর্মী সমর্থক। আর এই ঘটনাতেই তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। রাস্তা এবং উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র সংস্কারের দাবিতে যে সমস্ত ব্যক্তিরা দলীয় সাংসদকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তাদের হাতে বিজেপির দলীয় পতাকা ছিল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

তবে বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, সাংসদের সাথে যে সমস্ত নেতাকর্মীরা ছিলেন, তারা তাদের হেনস্থা করে। আর এতেই বাধে বিপত্তি। এদিন এই প্রসঙ্গে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিজেপি কর্মী হেমন্ত কুমার ঘোষ বলেন, “আমরা সাংসদকে স্মারকলিপি দেব বলে দাঁড়িয়ে ছিলাম। হঠাৎ সাংসদের সঙ্গে আসা দলের কিছু নেতাকর্মী তার সামনেই আমাদের উপরে চড়াও হন। তবে সাংসদ আমাদের কথা শুনে স্মারকলিপিতে নিয়েছেন এবং দাবিও খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।”

কিন্তু দলের কর্মীরা সাংসদের কাছে কোনো ব্যাপারে অনুযোগ জানাতে গেলে কেন তাদের সাথে এইভাবে দুর্ব্যবহার করলেন সাংসদের সাথে থাকা ব্যক্তিরা! এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির পান্ডুয়া মন্ডলের সভাপতি অশোক দত্ত বলেন, “তৃণমূলের লোকজনই দিদির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। তবে দিদি অবশ্য শেষ পর্যন্ত সব সামলে নেন।” তবে বিজেপির মন্ডল সভাপতি এই ব্যাপারে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও পাল্টা এই ব্যাপারে ব্লক তৃণমূলের সভাপতি আনিসুল ইসলাম বিজেপির দিকেই আঙ্গুল তোলেন।

তিনি বলেন, “বিজেপি সম্পূর্ণ মিথ্যে কথা বলছে। আমরা ওখানে কি করতে যাব! সাংসদ পান্ডুয়া চেনেন না। উনি উন্নয়নের কথা জানেন না।” এদিকে এই প্রসঙ্গে দলীয় কর্মীদের সমস্ত অভাব, অভিযোগ শুনে হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, “এলাকায় তৃণমূল কোনো কাজ করেনি। তাই কিছু মানুষের ক্ষোভ রয়েছে। তারা আমাকে স্মারকলিপি দিয়েছেন। আমি খতিয়ে দেখব।” সব মিলিয়ে এবার দলীয় সাংসদের গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখাতে দেখা গেল বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের।

Top
error: Content is protected !!