এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দুষ্কৃতী অত্যাচারে পরিবার-সহ 6 মাস ঘরছাড়া- কোনো খোঁজ নেয়নি দল, ক্ষোভে ফুঁসছেন বিজেপি- কর্মীরা

দুষ্কৃতী অত্যাচারে পরিবার-সহ 6 মাস ঘরছাড়া- কোনো খোঁজ নেয়নি দল, ক্ষোভে ফুঁসছেন বিজেপি- কর্মীরা

বিজেপি কর্মী হওয়ায় শাসকদল তৃণমূলের দাপটে ঘর ছাড়তে হয়েছিল তাদের। কিন্তু তারপর আর সেই ঘরছাড়া মানুষদের দিকে ফিরেই তাকায়নি বিজেপি নেতৃত্ব। কিন্তু কেন এই বিজেপি কর্মীদের হঠাৎ ঘরছাড়া হতে হল তা জানতে ফিরে যেতে হবে একটু অতীতের দিকে! প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের ফুলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের 13 নম্বর বুথে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন ভবেন দাস। আর এখানেই গত 14 ই এপ্রিল তৃণমূল যুব কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি বাবলু সরকারের ওপর হামলার অভিযোগ ওঠে বিজেপির কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

এমনকি এই হামলার জেরে বেশ কিছুদিন হাসপাতালে ভর্তি থাকার পরে গত 22 এপ্রিল মারাও যান সেই বাবলু সরকার। আর এরপরই নিজেদের ক্ষোভ চেপে রাখতে না পেরে সেই বিজেপি কর্মীদের পরিবারদের ওপর হামলা চালায় তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা। অভিযোগ, বেশ কিছু বিজেপি কর্মীর চাষের জমি দখল করার পাশাপাশি কয়েকটি বাড়িতেও আগুন জ্বালিয়ে দেয় তারা। আর শাসকদলের এই কোপে পড়ে কার্যত নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে গ্রাম ছেড়ে কখনো নিজের আত্মীয়র বাড়িতে তো কখনো বিজেপি পার্টি অফিসে আশ্রয় নেয় এলাকার 7 টি বিজেপি পরিবার। কিন্তু পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হওয়ায় গত রবিবার সেই বিজেপি সমর্থিত পরিবারগুলো নিজেদের বাড়িতে ফিরে আসলেও বাড়িঘর কিছুই না থাকায় কোনোও রকমে নিজেদের জমিতে তাঁবু খাটিয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের। আর যে দলের জন্য নিজেদের ঘর-বাড়ী সর্বস্ব খোয়াতে হলো এই পরিবারগুলোকে, গ্রামে ফিরে আসার পরও সেই বিজেপি নেতৃত্বের কেউই দেখা করেননি এই অসহায় পরিবারগুলো সাথে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন  এই প্রসঙ্গে সেই বিজেপি বিজেপি প্রার্থী ভবেন দাসের বাবা জিতেন দাস বলেন, “আমার এবং ছেলের নামে পুলিশের খাতায় কোনো অভিযোগ না থাকলেও তৃণমূলের সন্ত্রাসের কারণে দীর্ঘদিন নিজের বাড়িতে আসতে পারিনি। আর এখন বাড়িতে এলেও স্থানীয় বিজেপি নেতার কেউ আমাদের সাথে কোনরূপ দেখা করেনি।” তবে কর্মীদের এই ক্ষোভের ব্যাপারটিকে চাপা দিতে এদিন কোচবিহার জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক মনোজ ঘোষ বলেন, “আমরা এ ব্যাপারে রাজ্য নেতৃত্বকে জানিয়েছি। শীঘ্রই সেখানে গিয়ে তাদের সঙ্গে দেখা করব।” অন্যদিকে তৃণমূলের সন্ত্রাসের কারণে বিজেপি কর্মীদের ঘর ছাড়ার অভিযোগকে সম্পূর্ণ নস্যাৎ করেছেন স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন। তবে যে যাই বলুক না কেন অসহায় কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে এখন কোচবিহার জেলা বিজেপি ঠিক কী পদক্ষেপ নেয় সে দিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

Top
error: Content is protected !!