এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > খুনোখুনির রাজনীতি অব্যাহত রাজ্যে, গুলি করে নৃশংস ভাবে হত্যা বিজেপি কর্মীকে

খুনোখুনির রাজনীতি অব্যাহত রাজ্যে, গুলি করে নৃশংস ভাবে হত্যা বিজেপি কর্মীকে

বহু আইনী জটিলতার পরে রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন পর্বের অবসান হলেও সন্ত্রাসের ধারা বজায় রয়েছে। নদীয়ার শান্তিপুরের হরিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে এবার খুন হলেন বিজেপি কর্মী। এই ঘটনায় অভিযোগের তীর স্বভাবিকভাবেই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। নিহত বিজেপি কর্মীর নাম  বিপ্লব শিকদার। তাঁর বাড়ি ঐ গ্রাম পঞ্চায়েতেরই মেলার মাঠ গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে এদিন একদল আততায়ী তাঁর বাড়িতে দরজা ভেঙে হামলা করে। এরপরে খুব কাছ থেকে চার রাউন্ড গুলি করা হয় ওই বিজেপি কর্মীকে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এই ঘটনার সমস্ত তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ দলের স্থানীয় নেতৃত্বের পক্ষ থেকে অস্বীকার করা হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকা স্বভাবতই উত্তাল হয়ে ওঠে। এই ঘটনার প্রতিবাদে শান্তিপুর ও বাইগাছি এলাকায় পথ অবরোধ করে গেরুয়া শিবির। যার জেরে এলাকার স্বাভাবিক জনজীবন ব্যাহত হয়।  খুনের কারণ হিসেবে বিজেপি দলীয় সূত্রে দাবি করা হচ্ছে হরিপুর পঞ্চায়েতে চার নম্বর আসনে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সাধনা সরকারের পরাজয় মেনে নিতে পারেননি প্রার্থীর স্বামী সুবল সরকার। বুধবার রাতে সেই প্রতিশোধ স্পৃহা থেকেই সশস্ত্র অবস্থায় তিনি একদল আততায়ীর সাথে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে আক্রমন করে কয়েক রাউন্ড গুলি চালায়। সেই গুলির আঘাতেই মৃত্যু হয় বিজেপি কর্মী বিপ্লব শিকদারের। এই ঘটনায় অভিযুক্ত সন্দেহে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর স্বামী সুবল সরকার ও স্থানীয় দুষ্কৃতী রথীন দেবনাথকে শান্তিপুর থানার পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পরদিন বৃহস্পতি বার অভিযুক্তদের আদালতে পেশ করা হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!