এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > বিজেপি কর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু ও রক্তাক্ত দেহ ঘিরে চঞ্চল্য পশ্চিম মেদিনীপুরে

বিজেপি কর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু ও রক্তাক্ত দেহ ঘিরে চঞ্চল্য পশ্চিম মেদিনীপুরে

বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকেই বাংলার বাতাসে রাজনৈতিক খুনোখুনির মাত্রা যেন বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর লোকসভা ভোট পর্ব থেকে তা যেন সব সীমা অতিক্রম করে গেছে বলে অভিমত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। এবার পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড়ে এক বিজেপি কর্মীর রক্তাক্ত দেহ ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো। তবে এখনই এটা বলা সম্ভব নয় এটি রাজনৈতিক হানাহানির ফল নাকি পারিবারিক হিংসার কারণ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।

স্থানীয় সূত্রের খবর অনুসারে, পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড়ের কালীপুর আদিবাসী পাড়ার খোকন মান্ডি নামক এক বিজেপি কর্মীর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় তারই ঘরের বিছানা থেকে। স্থানীয় অধিবাসীদের বক্তব্য, নিহত খোকন মান্ডি গৃহশিক্ষকের পেশায় নিযুক্ত ছিলেন‌। গতকাল তিনি অন্যান্য দিনের মতো শিক্ষকতা করতে গেছিলেন এবং বাড়িও ফিরেছিলেন। সুস্থ সফলভাবে রাতে তিনি ঘুমিয়েও ছিলেন স্ত্রীর পাশে‌।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

অথচ সকালে উঠে স্ত্রী দেখেন তার স্বামী রক্তাক্ত অবস্থায় নিহত হয়ে বিছানায় পড়ে আছেন। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে স্বামী পাশে খুন হয়ে যাওয়া সত্বেও স্ত্রী কেন কিছু টের পেলেন না? কারা খুন করে গেল ঘরে ঢুকে খোকন মান্ডি কে ? উত্তর এখনো অধরা। খোকন মন্ডির পরিবার থেকেও দাবি উঠেছে, এটি খুনের ঘটনা, ফলে এর পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক। এদিকে পুলিশ সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, মৃত খোকন মান্ডির মাথায় আঘাতের চিহ্ন স্পষ্ট।

পুলিশ খোকন মান্ডির দেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজে। শুরু হয়েছে পুলিশি তদন্তের কাজও। এদিন বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্ব দাবি করে, খোকন মান্ডীকে হত্যার পেছনে তৃণমূলের হাত আছে। তৃণমূলের দুষ্কৃতীরাই এই খুন করে গেছে। তবে, তৃণমূলের তরফে এই নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া এখনও পাওয়া যায় নি।

Top
error: Content is protected !!