এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ক্ষোভ-বিক্ষোভ উড়িয়ে ঢেলে সাজছে বিজেপির উত্তরবঙ্গের দলীয় সংগঠন, আসছে একাধিক নতুন মুখ

ক্ষোভ-বিক্ষোভ উড়িয়ে ঢেলে সাজছে বিজেপির উত্তরবঙ্গের দলীয় সংগঠন, আসছে একাধিক নতুন মুখ

 

2019 এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলা থেকে 18 টি আসন দখল করেছিল। উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা আসনের মধ্যে সাতটি লোকসভা আসনেই ফুটেছে পদ্মফুল। তবে লোকসভায় বিজেপি উত্তরবঙ্গে ভালো ফল করলেও যত দিন যাচ্ছে, ততই উত্তরবঙ্গে তারা শক্তি হারাতে শুরু করেছে। যার মূল কারণ দলের শৃঙ্খলার অভাব এবং গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। তবে সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে দূরে সরিয়ে রেখে এবার নতুন মুখ এনে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে উদ্যোগী হল ভারতীয় জনতা পার্টি।

বস্তুত, এতদিন উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল চরম আকার ধারণ করেছিল। তবে এবার সেই জেলার সভাপতি পরিবর্তন করে দিল গেরুয়া শিবির। সূত্রের খবর, উত্তর দিনাজপুর জেলার বিজেপির নতুন সভাপতি হলেন বিশ্বজিৎ লাহিড়ি। 37 টির মধ্যে 36 টি মন্ডল সভাপতির নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি হিসেবে কিছুদিন ধরেই বাসুদেব সরকার, নিমাই সিংহ এবং বিশ্বজিৎ লাহিড়ীর নাম নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। তবে শেষ পর্যন্ত সেই বিশ্বজিৎবাবুর নামেই রাজ্য নেতৃত্ব সীলমোহর দেওয়ায় উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির অন্দরে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন। এদিন নতুন দায়িত্ব পেয়ে বিশ্বজিৎ লাহিড়ি বলেন, “দল আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে, তা সঠিকভাবে পালন করব।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিছুদিন আগেই উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি শংকর চক্রবর্তীর সঙ্গে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীর দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে এসেছিল। তবে দুই হেভিওয়েট নেতা- নেত্রীর দ্বন্দ্ব থামাতে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এলেও তাকে সামাল দেওয়া যায়নি। তাই এবার সেদিক থেকে এই দ্বন্দ্বকে রোধ করতে বিশ্বজিৎ লাহিড়ীর মত সংঘ ঘনিষ্ঠ মুখকেই এই জেলার দায়িত্ব দিল গেরুয়া শিবির বলে মনে করছে একাংশ।

জানা যায়, অতীতে বিজেপির তরফে বিশ্বজিৎবাবুকে যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তিনি তা সফলতার সঙ্গে পালন করেছেন। মেখলিগঞ্জে তিনবিঘা আন্দোলনের সময় তিনি সেই আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। পরবর্তীতে 2004 সাল থেকে 2014 সাল পর্যন্ত আন্দামানে সংগঠন বিস্তারের কাজ করেছেন এই বিশ্বজিৎ লাহিড়ী।

শুধু তাই নয়, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ তিনি। তাই সেদিক থেকে দীলিপবাবুর ঘনিষ্ঠ হওয়াতেই উত্তর দিনাজপুরের দায়িত্ব তাকে দেওয়া হল বলে মত বিশেষজ্ঞদের। তবে জেলা সভাপতি পরিবর্তন হলেও, মন্ডল সভাপতি নিয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থেকে ইটাহার, রায়গঞ্জ থেকে ইসলামপুর পর্যন্ত বিজেপির দ্বন্দ্ব কিছুতেই কমছে না।

তবে নতুন সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর বিশ্বজিৎ লাহিড়ী অবশ্য দলের মন্ডল সভাপতি নিয়ে দ্বন্দ্বকে মানতে নারাজ। কিন্তু তিনি তা না মানতে চাইলেও, যেভাবে নিচুতলায় বিজেপি নেতা কর্মীদের মধ্যে সেই মন্ডল সভাপতি নিয়ে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছে, তা মেটাতে বিশ্বজিৎবাবু কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেন! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!