এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপিকে ঠেকাতে তৃণমূলের সঙ্গে জোট নিয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র

বিজেপিকে ঠেকাতে তৃণমূলের সঙ্গে জোট নিয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র

লোকসভা নির্বাচনে এবার রাজ্যে বিজেপির উত্থান চোখে পড়ার মত। গত 2014 সালে বিজেপি বাংলা থেকে দুটি আসন পেলেও এবার তাদের দখলে এসেছে প্রায় 18 টি আসন। যা শাসক দল তৃণমূলের ঘাড়ে যেমন নিঃশ্বাস ফেলেছে, ঠিক তেমনই বাম এবং কংগ্রেসের ভোটব্যাংকেও ধ্বস নামিয়েছে।

শুধু তাই নয়, কংগ্রেস বাংলা থেকে দুটি আসন পেলেও বামেদের ঝুলিতে একটি আসনও আসেনি। আর এর পরই বাংলায় শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধীদল বিজেপিকে রুখতে কংগ্রেসের সঙ্গে নিজেদের জোটের ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করতে দেখা যায় বাম নেতাদের। তবে মাঝে রাজ্য বিধানসভায় সেই বাম এবং কংগ্রেসের নেতাদের উদ্দেশ্য করে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জোট বার্তা প্রবল জল্পনা তৈরি করেছিল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অনেকেই ভেবেছিলেন, তাহলে হয়ত এবার বাংলায় বিজেপিকে রুখতে বাম, কংগ্রেস এবং তৃণমূল এক ছাতার তলায় আসতে পারে। এমনকি কিছুদিন আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের পর সিপিএমের গৌতম দেব এবং তন্ময় ভট্টাচার্যের মন্তব্য সেই বামেদের সঙ্গে তৃণমূলের জোটের জল্পনাকে আরও উস্কে দিয়েছিল। আর এমত একটা অবস্থায় এবার সেই সমস্ত জল্পনাতে জল ঢেলে দিলেন সিপিএমের সূর্যকান্ত মিশ্র।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার থেকেই লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফলাফল এবং দলের সংগঠনের করুণ দশার কারণ খতিয়ে দেখতে দুই দিনের রাজ্য কমিটির বৈঠক শুরু হয়েছে। আর সেই বৈঠকের প্রারম্ভিক ভাষণেই রাজ্য সিপিএমের সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, “বিজেপি ও তৃণমূলের মতো দল কেউ কারও পরিপূরক নয়। কারণ এই দুই দলই গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে বিপদজনক। অনেক বিষয়ে মতপার্থক্য থাকলেও বিজেপির মোকাবিলায় কংগ্রেসের মতো ধর্মনিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক শক্তির সঙ্গে আমরা যৌথ কর্মসূচি নিতেই পারি। দলের কেন্দ্রীয় কমিটি সিলমোহর দিয়েছে। অনেকে বলছেন বিজেপির মোকাবিলায় তৃণমূলের সঙ্গে থাকা ভালো। কিন্তু এই দুই দলই একই মুদ্রার দুই পিঠ। তাই এদের কারও সঙ্গে থাকার কোনো প্রশ্নই ওঠে না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এক সময়ে এই তৃণমূল রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বামেদের ওপর প্রবল অত্যাচার করা হচ্ছিল বলে বামেদের তরফ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছিল। ফলে রাজ্যের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে সেই তৃণমূলের সঙ্গে জোটের জল্পনা তৈরি হলে বামেদের অনেকেই ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন।

কিন্তু একেই দলের করুণ দশার মধ্যে নেতাকর্মীরা যাতে দল থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়, তার জন্য এবার তৃণমূল এবং বিজেপির সঙ্গে কোনো সমঝোতা নয়, বরঞ্চ এদের রুখতে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করা হতে পারে বলে জানিয়ে দিয়ে ভবিষ্যতের লড়াইয়ের বার্তা দিয়ে রাখলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!