এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রথযাত্রা নিয়ে বাড়ছে বিজেপি -তৃণমূলের চাপানউতোর,দেখে নিন কে কি বললেন

রথযাত্রা নিয়ে বাড়ছে বিজেপি -তৃণমূলের চাপানউতোর,দেখে নিন কে কি বললেন

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বঙ্গ থেকে ৪২ টার মধ্যে অন্তত ৩০ এরও বেশি আসন জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে বঙ্গ বিজেপি।বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বঙ্গ নেতৃত্বকে ৩০ এরও বেশি আসনে জয় আনার লক্ষ্যে আগাতে নির্দেশ দিয়ে গেছেন। আর সেই অনুযায়ী মাঠে নেমে পড়েছে বঙ্গ বিজেপিও। আর এবার সেই জয়ের লক্ষ্যে বিজেপির রথ যাত্রা শুরু করছে এমনটাই জানা গেছে বিজেপি সূত্রে। আগামী ৭ ই ডিসেম্বর যে তিনটি পথ পথ চলা শুরু করবে সেগুলি ৪২ টি লোকসভা কেন্দ্রের উপর দিয়েই যাবে এমনটাই দাবি তোলা হয়েছে বিজেপির তরফ থেকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এই রথগুলির যাত্রাসূচির জন্য ৪৫ দিন রাখা হয়েছে। কড়া নির্দেশ তার মধ্যে এই রথযাত্রা শেষ করতেই হবে। অন্যদিকে বিজেপি আশঙ্কা করছেন যে এই রথযাত্রায় তাদের ব্যাপক বাধার সম্মুখীন হতে হবে। সেজন্য কর্মীদের এখন থেকে সতর্ক থাকার বার্তা দিচ্ছেন তারা। তারা বলছেন মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে এর জন্য। তারা যে বাধার সম্মুখিন হতে পারে তার বিকল্প পরিকল্পনা ও তার জন্য তৈরি রাখতে হবে এবং প্রশাসনের তরফ থেকেও সহযোগিতা আসবে এটা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না বলে দাবি বিজেপি মহলের। সবকিছু মেনে নিয়েই এই রথযাত্রার সম্পন্ন করতে হবে বলেই কর্মীদের জানিয়ে দিয়েছেন নেতৃত্ব বর্গ।এই নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন যখনই আমরা রথযাত্রার জনসভার জন্য পারমিশন নিতে যাবো-পুলিশ বলবে এটা হবে না। কেননা আপনার উত্তেজনা ছড়াবেন, দাঙ্গা ছড়াবেন। যেগুলো এতদিন বলে এসেছে ঠিক সেগুলি বলবে। সুতরাং আমরা জানি এগুলো ফের আসবে। তবে এই কর্মসূচি হবেই আমাদের কর্মীরা সফল করবেন, মানুষ আসবেন, কেননা মানুষ যা চাইবেন তাই হবে। মানুষ যেটা চাইবেন, সেটাই হবে, বিজেপি আটকাতে পারবেনা। বিজেপিকে। রথযাত্রার হবেই।

অন্যদিকে তৃণমূলের দাবি রাজ্যে অশান্তি ছড়াতেই এই ধরনের কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপির।এই নিয়ে ফিরহাদ হেকিম জানান যে কিছু এসি বাস নিয়ে ঘোরাঘুরি করতে এরা এই সব করছে।মানুষ এদের কোন পাত্তা দেয় না এবং এদের অস্তিত্ব আছে বলেই আমি মনে করি না দাবি ফিরহাদ হাকিমের। এদিকে কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় জানান এই নিয়ে রাজ্য সরকার কি করবে না করবে সেটার সম্পূর্ণ রাজ্য সরকার জানেন। তবে কেউ নিজেদের হাতে আইন তুলে নিতে পারে না। যদিও এদের গুন্ডা গার্দি অনেক আমরা দেখেছি। এদের কোনো লাভ নেই জানিয়ে দিয়েছেন কল্যাণ বাবু। পর্যন্ত শেষ পর্যন্ত বিজেপি-তৃণমূলের এই চাপানউতোরের রথযাত্রা কি সত্যিই সাফল্য লাভ করবে তা জানতে হলে অপেক্ষা করতে হবে এখনো অনেক কটা দিন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!